দু`বছরেও বিনিয়োগ সেই তিমিরেই

আগামিকালই দুবছর পূর্তি হচ্ছে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত সরকার। দুবছরে ঠিক কোথায় দাঁড়িয়ে রাজ্যের শিক্ষা, স্বাস্থ্য বা শিল্পের হাল? এক নজরে শিল্পমন্ত্রকের সাফল্য-ব্যর্থতার খতিয়ান:

বেআইনি নিয়োগের অভিযোগে কাঠগড়ায় শিল্পমন্ত্রী

সরকারি দফতরে বেআইনি নিয়োগের অভিযোগ এবার শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। অভিযোগ এনেছেন বেঙ্গল গভর্ণমেন্ট প্রেসের আলিপুর শাখার আইএনটিটিইউসি নেতাকর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ, সব রকম নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নিজের বিধানসভা কেন্দ্রের ৪০জনকে ওই প্রেসে নিয়োগ করেছেন শিল্পমন্ত্রী। প্রতিবাদে আজ সকালে ওয়েস্ট বেঙ্গল গভর্মেন্ট প্রেসের আলিপুর শাখায় বিক্ষোভ দেখান আইএনটিটিইউসির সমর্থকেরা। সরকারি ক্ষেত্রে নিয়োগের সমস্ত বিধি ভেঙে ওয়েস্ট বেঙ্গল গভর্ণমেন্ট প্রেসে চল্লিশজনকে নিয়োগ করার নির্দেশ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এমনই অভিযোগ ওয়েস্ট বেঙ্গল গভর্ণমেন্ট প্রেসের আলিপুর শাখার আইএনটিটিইউসি নেতা ও কর্মীদের। তাঁদের আরও অভিযোগ, নিয়োগ হওয়া ব্যক্তিরা অধিকাংশই পার্থবাবুর নির্বাচনী  এলাকা বেহালার বাসিন্দা।   

তারকাহীন শিল্প সম্মেলনেই বিনিয়োগের আশা সরকারের

এবারও তারকাহীন শিল্প সম্মেলন বেঙ্গল লিডস। অতিথিদের তালিকায় নেই আম্বানি ভাই বা সাইরাস মিস্ত্রির নাম। গুজরাতে শিল্প সম্মেলনে যেখানে হাজির হয়েছিলেন তাবড় শিল্পপতিরা, সেখানে কেন বাংলার এই হাল? শিল্পমন্ত্রীর দাবি, নাম নয় কাজের লোক এনেই বাংলায় শিল্পায়নে ক্ষেত্রে সাফল্য আনবেন তাঁরা।

নিগৃহীত অধ্যক্ষ, সাফাই পার্থর

বিধানসভায় নজিরবিহীন তাণ্ডবের ঘটনায় হামলার অভিযোগ আনলেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, বিধানসভায় তাণ্ডব চালাচ্ছে সিপিআইএম। তাঁদের বিধায়কদের মারধরের পাশাপাশি অধ্যক্ষকেও শারিরীক নিগ্রহের অভিযোগ তুলেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।  

সমাধানসূত্র অধরা

দুবরাজপুরের কৃষিজমি রক্ষা কমিটির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বিধানসভায় শিল্পমন্ত্রীর বৈঠকে জট কাটল না। দুই নেতা ফেলারাম মণ্ডল, জয়দীপ মজুমদার সহ জমি রক্ষা কমিটির ৮ সদস্যের প্রতিনিধিদল বৈঠকে যোগ দেন। কমিটির তরফে আলোচনায় অংশ নিয়েছেন পিডিএস নেতা সমীর পুততুণ্ডও। তাঁকে বিধানসভায় ঢুকতে দেওয়া নিয়ে বৈঠকের আগে জটিলতা সৃষ্টি হয়।

শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশেই অভিযান দুবরাজপুরে

শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশেই পুলিসি অভিযান চলেছিল দুবরাজপুরে। গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য। বেঙ্গল এমটার মাটি কাটার মেশিনটি উদ্ধার করার জন্য শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ই পুলিসকে চাপ দিয়েছিলেন। এ বিষয়ে পুলিসের ওপর স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের চাপ ছিল বলেও জানা গেছে। দুবরাজপুরে গ্রামবাসীদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনার পরই বীরভূমের পুলিস সুপার হৃষিকেশ মিনাকে ছুটিতে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। পুলিস সুপার বলেন, তাঁর ওপর চাপ ছিল।

এবার পার্শ্ব শিক্ষকদের কোপে সরকার

সরকারের বিরুদ্ধে এবার ক্ষোভে ফেটে পড়লেন রাজ্যের পার্শ্ব শিক্ষকরা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিশ্রুতিভঙ্গের অভিযোগ আনল রাজ্য পার্শ্ব শিক্ষক সমন্বয় সমিতি।

ফের একবার সিপিআইএমকে আক্রমণ করলেন শিল্পমন্ত্রী

সংগ্রামপুরে বিষমদ কাণ্ড নিয়ে ফের একবার সিপিআইএমকে আক্রমণ করলেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শুক্রবার বিধানসভায় তিনি অভিযোগ করেন, আমরি কাণ্ড থেকে নজর ঘুরিয়ে দিতেই পরিকল্পিতভাবে সিপিআইএম বিষমদ কাণ্ড ঘটিয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দাবি, আমরি কাণ্ডে গ্রেফতার হাসপাতালের নয় কর্তা সিপিআইএম ঘনিষ্ঠ।