শীতের সান্দাকফু

শীতের দার্জিলিং। গরম কফির কাপে বার বার চুমুক দিয়েও ঠাণ্ডা যাচ্ছে না। বিকেল থেকে একটানা বৃষ্টি। তার মানে সান্দাকফুতে তুষারপাত হচ্ছে।
পরদিন সকালের জিপেই সোজা মানেভঞ্জন। ঘুম, সুখিয়াপোখরি পেরিয়ে পাহাড়ি রাস্তা। ঘণ্টা চারেক সময় লাগে। মানেভঞ্জনই সান্দাকফু ট্রেকের স্টার্টিং পয়েন্ট।
বিকেলে মানেভঞ্জনের মনাস্টিতে কিছুটা সময় কাটানো। রাতে তাড়াতাড়ি শুয়ে পড়াই ভালো। পরদিনের ট্রেক কিন্তু কম রাস্তা নয়।