সুস্মিতা হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার ২ জঙ্গি

সুস্মিতা ব্যানার্জি হত্যাকাণ্ডে দুজনকে গ্রেফতার করল আফগান পুলিস। ধৃতেরা হাক্কানি জঙ্গি গোষ্ঠীর সদস্য বলে জানিয়েছে পাকতিকা প্রদেশের পুলিস প্রধান। ধৃতদের কাছ থেকে দুটি কালাশনিকভ, প্রচুর বিস্ফোরক এবং একটি মোটরবাইক উদ্ধার করা হয়েছে। ধৃতেরা সুস্মিতা ব্যানার্জির গ্রামেরই বাসিন্দা ছিল বলে পুলিস জানিয়েছে। সুস্মিতা হত্যাকাণ্ডের তদন্তকারী দলের সদস্যদের হত্যার চেষ্টাও করেছিল ধৃতেরা। সে উদ্দেশ্যেই মাইন পেতে রাখা হয়েছিল বলে পুলিস জানিয়েছে।

ফেসবুক জানাল নতুন করে প্রেমে পড়েছিলেন সুস্মিতা

সুস্মিতা হত্যাকাণ্ডে নয়া মোড়। ফেসবুকের মাধ্যমে প্রকাশ্যে এল সুস্মিতার নতুন সম্পর্কের কথা। সুস্মিতার এক বান্ধবী শালিনী নস্করের সঙ্গে করা চ্যাট রেকর্ড থেকে জানা গেল, দিল্লির এক আর্কিটেক্ট দীপক কুমারের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন সুস্মিতা। বেশ কিছুদিন নিজের ভাইয়ের স্ত্রীর সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল সুস্মিতার স্বামী জানবাজ খানের। তার জেরেই পারিবারিক ও মানসিক অশান্তির মধ্যে দিয়ে জাচ্ছিলেন সুস্মিতা। ফেসবুকেই আলাপ হয় দীপক কুমারের সঙ্গে।

সুস্মিতাকে `বই লেখা` আর `সিনেমা করার` শাস্তি দিয়েছে তালিবানরা, ২৪ ঘণ্টাকে আফগানিস্তান থেকে জানালেন জানবাজের ভাই

তালিবানরাই খুন করছে সুস্মিতাকে। কিছুক্ষণ আগে লেখিকার স্বামী জানবাজ খানের ভাই যার খান আফগানিস্তান থেকে ২৪ ঘণ্টাকে তালিবানী জঙ্গি হামলার কথা বিস্তারিত ভাবে জানান। তিনি বলেন, বুধবার গভীর রাতে মোটরবাইক আর গাড়িতে করে বাড়িতে চড়াও হয় জনা তিরিশের তালিবান জঙ্গি। তারপর জানবাজ খানকে আঙুর খেতে বেঁধে রাখা হয়। বাড়ির অন্যদের বন্দি করা হয় একটা ঘরে। সুস্মিতাকে নিয়ে যাওয়া হয় ২ কিলোমিটার দূরে আলজাহাদ স্কুলের কাছে।

সুস্মিতার দেহ ফিরিয়ে আনতে মহাকরণে পরিবার

আফগানিস্তানে নিহত সুস্মিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেহ ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিতে রাজ্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানাল তাঁর পরিবার। সুস্মিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই গোপাল বন্দ্যোপাধ্যায় আজ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে মহাকরণে যান। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী না থাকায় তাঁর প্রধান সচিব গৌতম সান্যালের সঙ্গে দেখা করেন গোপালবাবু। সুস্মিতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেহ ফিরিয়ে আনতে রাজ্য সরকার যাতে বিদেশমন্ত্রকের সঙ্গে কথা বলে সেই অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।