হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের তদন্ত ভার এনআইএ-র হাতে তুলে দেবে অন্ধ্র সরকার

বিস্ফোরণের পর ১২ দিন কেটে গিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক দাবি করেছে দ্রুত নিষ্পত্তি হবে হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের তদন্তের। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কার্যত তদন্তে কোনও খেই পায়নি অন্ধ্রপ্রদেশ পুলিস। ফলে তদন্তের ভার এনআইএ হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল অন্ধ্র সরকার। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী কিরণ কুমার রেড্ডি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি সবিতা রেড্ডির পৌরহিত্যে বসা একটি বৈঠকে বিস্ফোরণের তদন্তভার জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিস্ফোরণের ধ্বংসের মাঝে ফুটল মানবিকতার ফুল

বিস্ফোরণে বাবা-মাকে হারিয়েছিল শিশুটি। ফুটপাথে কাঁদছিল। তাকে বুকে টেনে নিতে চাইলেন পেশায় চিত্রশিল্পী পাপালাল। কিন্তু, বেঁকে বসলেন সমাজের মাতব্বররা। শিশুটির জাত যে আলাদা। শেষপর্যন্ত, সমাজের সঙ্গে লড়াই করেই শিশুটিকে বড় করে তোলার সিদ্ধান্ত নিলেন পাপালাল। সন্ত্রাসদীর্ণ হায়দরাবাদে এ যেন মানবতার এক নতুন দৃষ্টান্ত। এ দৃষ্টান্ত পাপালাল আর তার মেয়ে ফতিমার।   

বিস্ফোরণের তদন্তে মার্কিন গোয়েন্দাদের দ্বারস্থ হতে পারে ভারত

হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের তদন্তে এবার মার্কিন গোয়েন্দাদের সাহায্য নেওয়ার কথা ভাবছেন ভারতীয় তদন্তকারীরা। সূত্রের খবর, সিসিটিভি ফুটেজকে বিশ্লেষণ করে অপরাধী চিহ্নিত করতে এফবিআইয়ের বিশেষজ্ঞদের সহযোগিতা চাইতে পারে ভারত। এছাড়াও, নাশকতায় ব্যবহৃত অর্থের উত্স জানতে মার্কিন গোয়েন্দাদের সাহায্যে নেওয়া হতে পারে। তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের ঠিক আগে হাওয়ালা মারফত ভারতে প্রচুর অর্থ এসেছিল। এই ঘটনায় আলহুজি ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফার্ম নামে দুবাইয়ের এক আর্থিক সংস্থার নামও উঠে আসছে।

বিস্ফোরণস্থল ঘুরে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী, কথা বললেন আহতের সঙ্গে

হায়দরাবাদে গিয়ে বিস্ফোরণস্থল ঘুরে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী। ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্তকারী অফিসারদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কিরণকুমার রেড্ডি।  ঘটনাস্থল থেকে যশোদা হাসপাতালে গিয়ে দেখা করেন বিস্ফোরণে আহতদের সঙ্গে। এর আগে আজ সকাল ১১টা নাগাদ বেগমপেট বিমানবন্দরে অবতরণ করে তাঁর  বিশেষ বিমান। সেখান থেকে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টারে তিনি পৌঁছন সরুরনগরের ভিক্টোরিয়া গ্রাউন্ডে। সেখান থেকে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় তাঁর কনভয়। দিল্লি ফিরে যাওয়ার আগে, বিমানবন্দরেই মুখ্যমন্ত্রী কিরণকুমার রেড্ডির সঙ্গে বৈঠক করেন মনমোহন সিং।

সাইবাবা মন্দিরই ছিল জঙ্গি টার্গেট

দিলসুখনগরের সাঁইবাবা মন্দিরই জঙ্গিদের প্রাথমিক নিশানা ছিল। পুলিস সূত্রে এমনই ইঙ্গিত মিলছে। বিস্ফোরণের ঠিক আগেই ওই মন্দিরে যান পুলিস কমিশনার। সে কারণেই সম্ভবত নিশানা পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছিল জঙ্গিরা।

গ্রেফতার হয়নি কেউ, দল গঠন করে চলছে বিস্ফোরণের তদন্ত

হায়দরাবাদ বিস্ফোরণের দু`দিন পরও কাউকে গ্রেফতার করতে পারল না পুলিস। ছ`জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও কোনও সূত্র না মেলায় তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। নাশকতার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পাক নাগরিক ফৈয়জ কাকজি ও ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গি রাজু ভাইয়ের খোঁজ চলছে। গতকাল রাতে ফের তিহার জেলে বন্দি ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন জঙ্গি মকবুলকে জেরা করে পুলিস। তদন্তের জন্য ১৫টি দল গঠন করা হয়েছে। হায়দরাবাদে জঙ্গিরা নাশকতা চালাতে পারে বলে গত নভেম্বরেই খবর পাওয়া গিয়েছিল। খোদ পুলিস কমিশনার গতকাল এই স্বীকারোক্তি করেছেন। এরপরও, বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায় পুলিসের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

আজ সন্ত্রাস-আর্ত হায়দরাবাদে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

জোড়া বিস্ফোরোণের পর আজ হায়দরাবাদে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।  হাসপাতালে গিয়ে বিস্ফোরণে আহত মানুষদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী কিরণ কুমার রেড্ডির সঙ্গেও প্রধানমন্ত্রী কথা হবে বলে জানা গিয়েছে। রেড্ডির কাছে তদন্তের বিষয়ে খোঁজখবর নেবেন প্রধানমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হায়দরাবাদের দিলসুকনগরে কয়েকমিনিটের ব্যবধানে দুটি বিস্ফোরণ হয়। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন ১১৭।

বিস্ফোরণের তদন্তে গঠিত ৬টি দল, দ্রুত কিনারার আশ্বাস

হায়দরাবাদের দিলসুকনগরে বিস্ফোরণের তদন্তে নেমে অনেকটাই এগিয়েছে পুলিস। শনিবার এমটাই দাবি জানিয়েছেন অন্ধ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সবিতা ইন্দ্র রেড্ডি। বৃহস্পতিবারের জোড়া বিস্ফোরণে প্রাণ হারান ১৭ জন। আহতের সংখ্যা ১১৭। গত ২৪ ঘণ্টায় তদন্তে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। যে সূত্রগুলিকে কাজে লাগিয়ে বিস্ফোরণের কারণ উদঘাটন করতে দেরি হবে না বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী।