আদতে যমজ, কিন্তু জন্ম নিল দুই ভিন্ন বছরে

আদতে যমজ, কিন্তু জন্মনিল দুই ভিন্ন বছরে। দুই মা তাদের ২০১৩ সালের শেষ দুই সন্তানের জন্ম দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ২০১৪ সালের প্রথম দুই সন্তানেরও জন্ম দিলেন। কয়েক মিনিটের ফারাক। তার মধ্যেই এই দুই মায়ের দুই সন্তান দুই ভিন্ন বছরের পৃথিবীর প্রথম আলো দেখল।

বছর শেষে আনন্দের গুগল ডুডলে ডিস্কোর ছোঁয়া

আজ বছরের শেষ দিন। ২০১৩ জুড়ে গুগল তার হোমপেজে একের পর এক অসাধারণ ডুডল উপহার দিয়েছে। তা বচ্ছরান্তের দিনটাই বা কেন বাকি থাকে কেন? আজকের গুগল ডুডল ডিস্কো মুডে। যার মধ্যে 2, 0, 1, 3 সংখ্যাগুলি মনের আনন্দে নাচানাচি করছে। 3 এর পাশেই মিটিমিটি হাসি নিয়ে অপেক্ষা করছে উত্তেজিত 4। বোঝা যাচ্ছে 2013 শেষ হলেই 3-এর জায়গা দখল করবে 4.

মুকুটতাতো পরেই আছে, তিনিই শুধু নেই...

২০১৪ সালে আর শোনা যাবে না অননুকরণীয় সেই কণ্ঠস্বরে আর নতুন কোনও গান। ভরসা শুধু পুরনো গানের রেকর্ডগুলো। জলসাঘরের দরজাতো বন্ধ সেই ২৪ অক্টোবর থেকে। যে দিন আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন কিংবদন্তী মান্না দে। তবুও তিনি আছেন। থাকবেন। যতদিন ভারতীয় সঙ্গীত নিঃশ্বাস ফেলবে সেই প্রতিটি নিঃশ্বাসে আমাদের মধ্যে ফিরে আসবেন মান্না দে। বারবার। তাই নতুন বছরে দিনগুলো হয়ত তাঁর শারীরিক উপস্থিতি পাবে না, কিন্তু না থেকেও তাঁর সৃষ্টির মধ্যে দিয়েই দিনগুলো এই মহীরুহের ছায়ার আরামে নিশ্চিন্ত থাকবে।

হ্যাপি নিউ ইয়ার সচিন...

একটা নতুন বছর দরজায় কড়া নাড়ছে। ক্রিকেটের দুনিয়াটা একই ভাবে রেকর্ড, সাফল্য, ব্যর্থতা, কারোর অবসর কারোর আগমনের আবর্তে ঘুরবে। ব্যাট হাতে কেরামতি দেখাবেন নতুন পুরনো রথী মহারথীরা। শুধু থাকবেন না তিনি। যাঁর ২২গজের রুস্তমির মৌতাতে আচ্ছন্ন হয়ে মিলেমিশে আছে আমাদের ছোট-বড় বেলা। সেই তিনি, সচিন রমেশ তেন্ডুলকরকে আর কোনও দিনও দেখব না ক্রিকেট নামক খেলাটার সবুজ মাঠের চৌহদ্দীর মধ্যে। আর কোনও দিনও তিনি ব্যাট হাতে নামলে দুরুদুরু কাঁপবে না বুক। আর কোনও দিনও পুরদস্তুর নাস্তিক মন শুধু একজনের সাফল্য কামনায় প্রার্থনা করবে না।

ফিরে এস ঋতুপর্ণ, নতুন বছরে রামধনুর লড়াই চাইছে তোমায়...

১১ ডিসেম্বর। বছর শেষের মাসের এই দিনটা হঠাৎ করে বদলে দিল এদেশের বহু মানুষের জীবন। তাদের ভালবাসার অধিকারে রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপের ছাপ্পা পড়ল। সৌজন্যে দেশের শীর্ষ আদালত। ২০১০সালের দিল্লি হাইকোর্টের রায় নস্যাৎ করে সুপ্রিমকোর্ট এই দিনই ঘোষণা করল, বহাল থাকবে ৩৭৭ ধারা। আদালত বলছে এই ধারার লিখিত কিছু নিয়মাবলীর উল্টোদিকে হেঁটে নিজের ভালবাসার জানান দিলেই সব্বোনাশ। একুশে আইনের দেশে ঢুকতে হবে জেলে। বৃহদার্থে সবার উপর এই আইনের কচকচি ন্যাস্ত হলেও আসলে ৩৭৭ ধারা সরাসরি আক্রমণ হেনেছে সমকামী, উভকামী, রূপান্তরকামী মানুষদের ভালবাসার অধিকারের উপর। নিজের পছন্দের মত যৌনসঙ্গী নির্বাচনের অধিকারের উপর।

বছর জুড়ে আন্দোলন আর আন্দোলনের মুখ...

একদিকে নারী আন্দোলনের মুখ, অন্যদিকে আন্দোলন। বছর ভর বিশ্বজুড়ে থাকল এটা। নারী আন্দোলনের প্রতীক হিসাবে মালালা ইউসুফজাই স্বীকৃতি পেলেন গোটা বিশ্বে। অন্যদিকে, আন্দোলনের জেরে দিল্লি গণধর্ষণকাণ্ডে দোষীদের শাস্তির প্রক্রিয়ায় গতি পেল, ফাঁসি হল দোষীদের। দেশজুড়ে যেখানেই মহিলাদের বিরুদ্ধে অত্যাচার হচ্ছে, গর্জে উঠছে সাধারণ মানুষ।

বছর জুড়ে লোকপাল, আদমিরাজ, আন্নার আবেগ

চলতি বছরে দেশের সবচেয়ে আলোচিত নাম হয়ে থাকল লোকপাল বিল। নদীর সঙ্গে যেমন মোহনা জড়িয়ে থাকে, প্রেমের সঙ্গে যেমন জড়িয়ে থাকে বিশ্বাস, তেমনই লোকপাল বিলের সঙ্গে জড়িয়ে দেশের রাজনীতিতে বিপ্লব এনে দিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। একেবারে ছকে বাধা রাজনীতির অঙ্ক ভেঙে আম আদমি পার্টি তৈরি করে কেজরিওয়াল দেশের রাজধানীর মুখ্যমন্ত্রী হতে চললেন।

সেলেব বাস থেকে কারাবাস

এঁরা দেশের সেলেব্রিটি। কিন্তু নিয়তির ফেরে ২০১৩ জেলের পিছনে। ২০১৩ এরা সবাই এখন জেলের ঘানি টানছেন, অথবা টেনেছেন। বিভিন্ন কারণে আদালত এঁদের দোষী সাব্যস্ত করায় এদের হাজতবাস হয়। তাদের দেখুন এক নজরে।

১৩ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ত্রিফলা- উত্তরাখণ্ডে বন্যা, ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড়, অন্ধ্রে হেলেন

জুনের মাঝে দেশের পুণ্যতীর্থ উত্তরাখণ্ডে বন্যার রোষে ধুয়ে গেল গোটা অঞ্চল। সেইসঙ্গে বন্যার কবলে পড়ল উত্তর ভারতও। উত্তরাখণ্ডের বন্যায় মারা গেলেনপ্রায় সাড়ে ৯০০ মানুষ। নিঁখোজ কয়েক হাজার।

২০১৩ বাবা-মা: ঘাতক রূপে, প্রচারমাঝে

নিজেদের সম্মান বাঁচাতে মেয়েকে নিশৃংসভাবে খুন করেছে বাবা-মা। আরুষি হত্যা মামলায় রাজেশ তলোয়ার ও নুপূর তলোয়ারকে দোষী সাব্যস্ত করে এমন কথাই পরিষ্কার রায় দিয়ে জানায় আদালত। চলতি বছর এই ঘটনায় একেবারে স্তম্ভিত হয়ে যায় দেশ।

নেইলোকে নেলসন, মানুষলোক ছেড়ে মহাকালে ম্যান্ডেলা

২০১৩, ৬ ডিসেম্বর। হঠাত্‍ করে বিশ্বের বাতি নিভে গেল। বছরের শেষ মাসে মানুষলোক ছেড়ে পরলোকে চলে গেলেন নেলসন ম্যান্ডেলা। যাঁর মৃত্যু নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বললেন, ম্যান্ডেলা আর আমাদের নন, তিনি এখন মহাকালের।

তেরোর আকাশে-- মহাকাশে ভারতের মহাকাশ বিদ্যা

তেরোয় লাল গ্রহে-- মহাকাশে ভারতের মহাকাশ বিদ্যা

তারকাদের শুভেচ্ছা টুইটে, ১৩ দুনিয়া শুরুতেই বৈচিত্রের

২০১২-র শেষটা ছিল বিভীষিকাময়। তবে প্রতিবাদে, কান্নায়, প্রত্যয়ে সারা দেশকে কোথাও যেন একসূত্রে বেঁধে দিয়ে গেছে বছরটা। গোটা দেশের সঙ্গে বিনোদন জগতও টুইটারে সোচ্চার হয়েছে বছরভর। সেই প্রত্যয় ধরা পড়ল নতুন বছরের শুভেচ্ছাতেও।

বিষাদের আলোতে স্বাগত ২০১৩

বর্ষবরণে মাতল গোটা দেশ। তবে, দিল্লি গণধর্ষণকাণ্ডের জেরে থমকে গেল উত্‍সবের উচ্ছ্বাস। নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর আগে মোমবাতি মিছিলে সামিল হল দিল্লি।

বহু জায়গায় বাতিল হয়ে গেল একতিরিশে ডিসেম্বর রাতের অনুষ্ঠান। বর্ষবরণের রাতে বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়েও বারবার ফিরে এল দিল্লিকাণ্ডের স্মৃতি। 

খোলনলচে পাল্টে তেরোর রাজনীতি

বছর শেষের সপ্তাহটা আসলেই সারা বছর কী হল, কী না হল তার হিসাবনিকাশ শুরু হয়ে যায়। পেশার তাগিদে বছরের ইতিহাস নিয়ে চলে চরম গবেষণা। এই যে আমাদের বিদায়ী ২০১৩, তাতে যে এত ঘটনার ঘনঘটা ঘটবে তা কি আর ছাই জানা ছিল? আর আমদেরও যে খড়ের গাদা থেকে এভাবে খুঁজে খুঁজে সূঁচ অন্বেষণ করতে হবে তাও তো বুঝতে পারিনি। কিন্তু কী আর করা...চাকরিটা যখন রাখতেই হবে তখন কাজটা করেই ফেলতে হল...

মঙ্গল অভিযানের দিন ঘোষণা ইসরোর

মঙ্গল অভিযানের দিনক্ষণ ঘোষণা করল ভারতের মহাকাশ গবেষনা কেন্দ্র ইসরো। ২০১৩ সালের ২৪ নভেম্বর মঙ্গলে পাড়ি দেবে ভারতের রকেট। মূলত সেখানে প্রাণের অস্তিত্ব আছে কিনা, সেটা জানতেই এই অভিযান। পাশাপাশি মঙ্গল গ্রহের পরিবেশ ও মাটি সম্পর্কে অনুসন্ধান চালানো হবে।