নেতাজি জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে বিস্ফোরক অর্মত্য সেন!

নেতাজি জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে বিস্ফোরক অর্মত্য সেন!

নেতাজি জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে বিস্ফোরক অর্মত্য সেন। অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে টেনে এনে ফের মোদী সরকারকে বিঁধলেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ। তাঁর অভিযোগ, রাজনৈতিক স্বার্থে  ধর্মের নামে বিভেদ তৈরি করছে বিজেপি সরকার। নেতাজি সুভাষচন্দ্রের ১১৯তম জন্ম জয়ন্তী। প্রতিবারের মতোই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল নেতাজী ভবনে। বসু পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও হাজির অর্মত্য সেন, শর্মিলা ঠাকুররা। উপস্থিত নেতাজির জীবনীকার লিওনার্ড গর্ডনও। আচমকাই বিস্ফোরক অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেন। নেতাজির ধর্ম নিরপেক্ষতার আর্দশকে টেনে অসহিষ্ণুতা বিতর্কে নিয়ে বিঁধলেন বিজেপি সরকারকে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি হস্তক্ষেপের বিরোধিতা অমর্ত্য সেনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি হস্তক্ষেপের বিরোধিতা অমর্ত্য সেনের

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে দাঁড়িয়েই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করলেন অমর্ত্য সেন। আজ প্রেসিডেন্সিতে বিশেষ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তাঁকে ডি লিট দেওয়া হয়। সেই সময়ই নোবেলজয়ী অর্থনীতীবিদ বলেন, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়কে নেহাতই এক সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে ভাবলে চলবে না। প্রেসিডেন্সিতে সরকারি সাহায্য দরকার। কিন্তু সরকারি  নিয়ন্ত্রণের প্রয়োজন নেই ।

দেশে শিক্ষাক্ষেত্রে চরম পর্যায়ে বাড়ছে সরকারি হস্তক্ষেপ: নিজের নতুন বইতে ফের মোদীরাজের বিরুদ্ধে সরব অমর্ত্য সেন দেশে শিক্ষাক্ষেত্রে চরম পর্যায়ে বাড়ছে সরকারি হস্তক্ষেপ: নিজের নতুন বইতে ফের মোদীরাজের বিরুদ্ধে সরব অমর্ত্য সেন

ফের মোদী সরকারের বিরোধিতায় মুখ খুললেন অর্মত্য সেন। নতুন বই দ্য কান্ট্রি অব ফার্স্ট বয়েজ-এ নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের দাবি, NDA জমানায় শিক্ষাক্ষেত্রে সরকারের হস্তক্ষেপ চরম পর্যায়ে পৌছেছে। মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরই নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেন্টর গ্রুপের চ্যান্সেলর পদ  ছাড়তে হয়েছিল তাঁকে। তিক্ততার শুরুটা সেখান থেকেই। তারপর থেকেই একাধিকবার মোদী সরকারের শিক্ষানীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অমর্ত্য সেন। এবার নতুন বই দ্য কান্ট্রি অব ফার্স্ট বয়েজে আরও বিস্ফোরক নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ।  নতুন এই বইটিতে দেশের ইতিহাস ও ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা করেছেন তিনি। তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ

  ভারতের শিক্ষা ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে চাইছে মোদী সরকার: অমর্ত্য সেন ভারতের শিক্ষা ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে চাইছে মোদী সরকার: অমর্ত্য সেন

মোদীর সঙ্গে আরও একবার প্রকাশ্যে এল  অমর্ত্য সেনের বিরোধ। নোবেল বিজয়ী এই অর্থনীতিবিদ সরাসরি অভিযোগ করলেন নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদ থেকে তাঁর অপসারণের পিছনে মূল কলকাঠি নেড়ে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই।

এই সরকার আমাকে চায় না, তাই নালন্দার চ্যান্সলরের পদে আর থাকতে চাই না: অমর্ত্য সেন এই সরকার আমাকে চায় না, তাই নালন্দার চ্যান্সলরের পদে আর থাকতে চাই না: অমর্ত্য সেন

নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন অমর্ত্য সেন। দ্বিতীয়বার নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের পদে তাঁর নাম ঘোষণায় বিলম্ব হওয়ায় তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বর্ষীয়ান এই অর্থনীতিবিদ।

জন মেনার্ড কিনেস পুরস্কার পেলেন অমর্ত্য সেন জন মেনার্ড কিনেস পুরস্কার পেলেন অমর্ত্য সেন

ফের আর এক পালক যুক্ত হল নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের মুকুটে। নয়া প্রচলিত চার্লস্টন-ইএফজি জন মেনার্ড কিনেস পুরস্কার জিতলেন বর্ষীয়ান এই অর্থনীতিবিদ।

প্রধানমন্ত্রী পদে মোদীকে পছন্দ নয় অমর্ত্য সেনের

নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী পদের যোগ্য নন। এমনটাই মনে করেন নোবেলজয়ী বিশ্বখ্যাত অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন।

চিন্তনের বিশ্বে বাঙালির জয়জয়কার, সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত অমর্ত্য সেন, তৃতীয় স্থানে অরুন্ধতী রায়

ভোটবাজারে অন্য ভোট। লোকসভা ভোটের ফল আসার জন্য ষোলোই মে পর্যন্ত অপেক্ষা। কিন্তু তার আগে সেরা চিন্তাবিদেরভোটাভুটির ফল প্রকাশিত হয়ে গেল। দুনিয়ার তাবড় চিন্তাবিদদের প্রথম ছ জনের মধ্যে চার জনই ভারতীয়। চার জনের মধ্যে তিন জন আবার বাঙালি। প্রসপেক্ট পত্রিকার অনলাইন সমীক্ষায় প্রায় সাত হাজার ভোট দাতার ফলাফলে সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত হয়েছেন অমর্ত্য সেন।

ফেসবুকে জীবনানন্দের ছন্দে সুগত বসুকে কটাক্ষ কবীর সুমনের

প্রেসিডেন্সির মেন্টর গ্রুপের চেয়ারম্যান পদে থাকা নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন যাদবপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুগত বসু। এই নিয়ে সুগত বসুকে ফেসবুকে কটাক্ষ করলেন কবীর সুমন। ফেসবুক বার্তায় কবীর সুমনের বক্তব্য, প্রেসিডেন্সির মেন্টর হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশিরভাগ ছাত্রই সুগত বসুকে চান না ।

প্রসঙ্গ অমর্ত্য: ক্ষমা চাইলেন চন্দন, থামল না বিতর্ক

চন্দন মিত্র ক্ষমা চেয়ে নিলেও অমর্ত্য সেনকে ঘিরে বিতর্ক পিছু ছাড়ল না বিজেপির। আজ শিবসেনা মুখপত্র সামনায়, অমর্ত্য সেনের বিরুদ্ধে নতুন করে তোপ দেগেছেন উদ্ভব ঠাকরে। ঘনিষ্ঠ শরিকের এই অবস্থানে নতুন করে অস্বস্তিতে নরেন্দ্র মোদীর দল। চন্দন মিত্রের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন নীতীশ কুমার।

বাজপেয়ি চাইলে ভারতরত্ন ফেরাতে রাজি অমর্ত্য সেন

অটলবিহারি বাজপেয়ী চাইলে তিনি ভারতরত্ন ফিরিয়ে দেবেন এমন কথাই বললেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। মোদীকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে বিজেপি সাংসদ চন্দন মিত্র দাবি করেছেন অর্মত্য সেনের ভারতরত্ন কেড়ে নিতে হবে। এখন যদি সম্ভব নাও হয় বিজেপি ক্ষমতায় এলে নোবেলজয়ী এই অর্থনীতিবিদের ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়া হবে বলেও হুমকি দিয়েছিলেন।

অমর্ত্য সেনের ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়ার দাবি তুললেন বিজেপি সাংসদ

অর্থনীতিতে নোবেল জিতে যিনি দেশের নাম সবার উপরে নিয়ে গিয়েছিলেন, সেই অমর্ত্য সেনের ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়ার দাবি তুললেন বিজেপি সাংসদ চন্দন মিত্র। বিজেপি ক্ষমতায় এলে অমর্ত্য সেনের ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়া হবে এমন হুমকিও দিয়েছেন বিজেপির এই সাংবাদিক-সাংসদ। নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দেখতে রাজি নই অমর্ত্য সেনের এমন মন্তব্যে বিজেপি যে কতটা ক্ষুব্ধ তারই একটা নমুনা দেখালেন এই বিজেপি সাংসদ।

বিরোধীদের বিক্ষোভে সংসদে পাশ হল না খাদ্য সুরক্ষা বিল

আজও সংসদে এখনও পর্যন্ত পাশ করানো গেল না খাদ্য সুরক্ষা বিল। আজ সংসদের উভয়কক্ষেই কয়লা ও রেল দুর্নীতি নিয়ে প্রবল বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিরোধী সাংসদরা। দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ইস্তফার দাবিতে জোরালো স্লোগান তোলেন তাঁরা। যতক্ষণ না এই দুই মন্ত্রী পদত্যাগ করছেন ততক্ষণ তাঁরা কোনও বিল পাশ হতে দেবেন না বলে সংসদে জানিয়েছেন বিরোধীরা। প্রবল হইহট্টগোলের মধ্যে সংসদের উভয়কক্ষ বেলা ১২টা অবধি মুলতুবি হয়ে যায়। এরপর আবার সংসদের কার্যাবলী সুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফের একই ভাবে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিরোধীরা। রাজ্যসভা বেলা একটা এবং লোকসভা বেলা ২টো অবধি মুলতুবি হয়ে গেছে।

খাদ্য নিরাপত্তা বিল নিয়ে বিরোধীতার সমালোচনায় অমর্ত্য

খাদ্য নিরাপত্তা বিল নিয়ে সংসদে আলোচনায় বাধা দেওয়ায় বিরোধীদের তীব্র সমালোচনা করলেন অমর্ত্য সেন। সোমবার এক  বিবৃতিতে তিনি জানান, সংসদের অধিবেশন বানচাল না করে বিরোধীদের উচিত, সেই বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেওয়া। এব্যাপারে সংবাদমাধ্যমের ভূমিকারও সমালোচনা করেন  নোবেলজীয় অর্থনীতিবিদ। অভিযোগে হইচই বাধিয়ে দেন ডান-বাম উভয়পক্ষই। বিরোধীদের এই ভূমিকার সমালোচনা করেছেন অমর্ত্য সেন।

ভারতে অগ্রগতির মূল বাধা অশিক্ষা: অমর্ত্য সেন

অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতের পিছিয়ে পড়ার অন্যতম কারণ শিক্ষার অভাব। বোলপুরে প্রতীচি ট্রাস্টের এক সেমিনারে বৃহস্পতিবার এই মন্তব্য করেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেন। তাঁর অভিযোগ স্বাধীনতা পরবর্তী দশকগুলিতে ভারতের শিক্ষার প্রসারে যথেষ্ট উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। যে কোনও সমাজের অগ্রগতির মূলে রয়েছে শিক্ষা। শিক্ষার অভাবেই অন্যান্য দেশের তুলনায় ক্রমশ পিছিয়ে পড়ছে ভারত। এমনই মনে করেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেন। তাঁর অভিযোগ, স্বাধীনতার পরবর্তী দশকগুলিতে প্রত্যাশিত হারে এদেশে শিক্ষার প্রসার ঘটেনি। বিষয়টি নিয়ে শঙ্কাও প্রকাশ করেছেন তিনি। শিক্ষার প্রসারে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলিকে আরও গুরুত্ব দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন অর্মত্য সেন।