রেলপুলিসের হাত থেকে তদন্তভার গেল সিআইডি-র হাতে, এখনও কিনারা হল না অনিরুদ্ধ চেল মৃত্যু রহস্যের

কেটে গেছে আট বছর। রেল পুলিসের হাত থেকে তদন্ত গেছে সিআইডির হাতে। তবু পুরুলিয়ায় চিকিতসক অনিরুদ্ধ চেলের মৃত্যু রহস্যের এখনও কিনারা হয়নি। অনিরুদ্ধের চেলের পরিবার এবার তাই সিবিআই তদন্তের দাবি জানাচ্ছে। দুহাজার ছয়ের একুশে ফেব্রুয়ারি বোকারো থেকে পুরুলিয়ায় বাড়ি ফিরছিলেন ডাক্তার অনিরুদ্ধ চেল। কিন্তু বাড়ি আর ফেরা হয়নি। ভোরবেলায় মৃতদেহ উদ্ধার হয় গৌরীনাথধাম স্টেশনের কাছে রেললাইনে। একটি দুমরে মুচরে যাওয়া গাড়ির মধ্যে মেলে মৃতদেহ। জিআরপি তদন্তে বলা হয় মৃত্যুর কারণ দুর্ঘটনা ।

গুড়িয়া-কাণ্ডে চার্জশিট পেশ করল সিআইডি

গুড়িয়া-কাণ্ডে চার্জশিট পেশ করল সিআইডি। ঘটনায় ১১ জনের বিরুদ্ধে খুন, ষড়যন্ত্র ও তথ্য প্রমান লোপাটের অভিযোগ আনা হয়েছে। মূল অভিযুক্ত হোমের সম্পাদক উদয়চাঁদ কুমার। ফরেনসিক রিপোর্ট পাওয়ায় পরে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট পেশ করা হবে বলে জানা গেছে। গুড়াপের দুলাল স্মৃতি সংসদ হোমের ঘটনায় চার্জশিট পেশ করল সিআইডি। গত পয়লা জুলাই এই হোমের আবাসিক গুড়িয়া নিহত হন। তারও পাঁচদিন আগে তাঁর মৃত্যু হয়েছিল বলে অভিযোগ। এই গুড়িয়াকে খুনের আগে ধর্ষণ করা হয় বলেও অভিযোগ ওঠে। শেষ পর্যন্ত গুড়িয়াকে মাটিতেও পুঁতে দেওয়া হয়। চব্বিশ ঘণ্টার খবরের জেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে মাটি খুঁড়ে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল। তদন্তে নেমেছিল সিআইডি। সেই তদন্ত শেষেই এগারো জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।