পরিবহণ সংস্কারের পথে রাজ্য, একই বোর্ডে CTC, CSTC ও WBSTC, চেয়ারম্যান রচপাল সিং

পরিবহণ সংস্কারের পথে রাজ্য, একই বোর্ডে CTC, CSTC ও WBSTC, চেয়ারম্যান রচপাল সিং

রাজ্যের রুগ্ন পরিবহণ নিগমগুলিকে নিয়ে অবশেষে সংস্কারের পথে হাঁটতে চলেছে রাজ্য সরকার। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে আপাতত একই বোর্ডের আওতায় আনা হচ্ছে CTC, CSTC ও WBSTCকে। বোর্ডের চেয়ার ম্যান হবেন প্রাক্তন মন্ত্রী রচপাল সিং।

নতুন বাস, ঠাসা যাত্রী নিয়েও টিকিট সমস্যায় লোকসানে চলছে CSTC নতুন বাস, ঠাসা যাত্রী নিয়েও টিকিট সমস্যায় লোকসানে চলছে CSTC

ঝাঁ চকচকে নতুন বাস। নতুন রুট। ঠাসা যাত্রী। তবু লোকসান? রাষ্ট্রায়ত্ত পরিবহণ নিগম CSTCর সমস্যার তালিকায় নয়া সংযোজন এটাই। কারণ? টিকিট।

সিএসটিসি-এর সাত হাজার কর্মী হঠাৎ জানলেন সরকারি সিদ্ধান্তে তাঁদের বেতন কমল ২৫% সিএসটিসি-এর সাত হাজার কর্মী হঠাৎ জানলেন সরকারি সিদ্ধান্তে তাঁদের বেতন কমল ২৫%

সরকারের সিদ্ধান্তে কোপ পড়ল পরিবহণ কর্মীদের একাংশের বেতনে। রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থা CSTC-র কর্মীদের বেতন পঁচিশ শতাংশ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় ওভার টাইমের টাকাও এবার থেকে পাবেন না তাঁরা। সরকারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার সাত হাজার কর্মী।

রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার সংযুক্তিকরণের পথে রাজ্য

তিনটি রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থাকে জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। সিএসটিসি, সিটিসি এবং ডব্লিউবিএসটিসিকে জুড়ে একটি পরিবহণ সংস্থা তৈরি করা হবে। রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে আজ এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনটি সংস্থার সংযুক্তিকরণের ফলে কর্মীর প্রয়োজন অনেক কমে যাবে।

এখনও কাটল না পরিবহণ কর্মীদের বেতন জট

সরকারি পরিবহণ সংস্থার কর্মীদের বেতন জট এখনও কাটল না।  অধিকাংশ কর্মী বেতন পেলেও, একাংশের বেতন এখনও অনিশ্চিত। ৪ মাসের বেশি সময় হয়ে গেলেও বেতন পাচ্ছেন না পরিবহণ সংস্থার ওই কর্মীরা।

সঙ্কট কাটাতে পরিষেবায় কোপ, বন্ধ ১৮ টি রুট

রাজ্যে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর শিল্প পুনর্গঠন মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির আশ্বাস ছিল-রুগ্ন রাষ্ট্রায়ত্ত্ব পরিবহণ সংস্থা থেকে কোনও কর্মী ছাঁটাই হবেনা। প্রতিশ্রুতি ছিল, সবকটি সংস্থাকে ঢেলে সাজিয়ে লাভজনক করার চেষ্টা করবে মমতা ব্যানার্জির সরকার।

পথে নামল সিএসটিসি কর্মী সংগঠন

ভুতল পরিবহন, সিটিসি সহ রাষ্ট্রায়ত্ত পরিবহণ সংস্থার কর্মীদের অক্টোবর মাস থেকে বেতন হয়নি। বন্ধ পেনশন। বকেয়া বেতন এবং পেনশনের দাবিতে এবার পথে নামল সিএসটিসি কর্মী সংগঠন এবং ক্যালকাটা ট্রামওয়েজ ওয়ার্কাস এন্ড এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন।

সাত তারিখেও হল না বেতন

মাসের সাত তারিখেও বেতন পাননি রাজ্যের আঠেরো হাজার পরিবহণ কর্মী। বরাবরই তাদের বেতনের আশি শতাংশ দেয় রাজ্য সরকার। বাকি কুড়ি শতাংশ স্বশাসিত পরিবহণ সংস্থাগুলি দেয়।

বেতন না পেয়ে বিক্ষোভ

বেতন না পেয়ে প্রধান কার্যালয়ে বিক্ষোভ দেখান ট্রাম কোম্পানীর কর্মীরা। অক্টোবর মাসের বেতন এখনও পাননি তাঁরা। গত কয়েক মাস ধরেই বেতন অনিয়মিত হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ।

বেতন পেলেন না পরিবহণ কর্মীরা

রাজ্য সরকারের আর্থিক সঙ্কটের প্রথম কোপ পড়ল পরিবহণ সংস্থার কর্মীদের উপর। প্রায় আঠেরো হাজার পরিবহণ কর্মী অক্টোবর মাসের বেতন পাননি। কবে পাবেন, তাও জানেন না তাঁরা। পাঁচটি সরকারি পরিবহণ সংস্থাতেই গত একত্রিশে অক্টোবর নির্দেশিকা পাঠিয়ে দিয়েছে সরকার।

ধরনায় বসলেন সিএসটিসি-র অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা

গত তিনমাস ধরে রাষ্ট্রায়ত্ত পরিবহণ সংস্থা সিএসটিসি-র অবসরপ্রাপ্ত ছহাজার কর্মীর পেনশন বন্ধ। এদের মধ্যে রয়েছেন উনত্রিশ-শো মহিলা কর্মী। পেনশন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম আর্থিক সংকটে পড়েছেন সিএসটিসি-র অবসরপ্রাপ্ত ছহাজার কর্মী ও তাদের পরিবার।

সিএসটিসি কর্মীদের পেনশন নয়, সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের

টানা তিনমাস পেনশন পাচ্ছেন না সিএসটিসির ছ হাজার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী। চরম আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে দিন কাটছে তাঁদের। আর্থিক সঙ্কটে নাজেহাল হয়ে সেপ্টেম্বর মাসের চোদ্দ তারিখ আত্মহত্যাও করেছেন একজন। ইতিমধ্যেই পরিবহণ দফতর রাজ্যের পাঁচটি পরিবহণ সংস্থাকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে পেনশনের দায়ভার বহন করবে না সরকার। সরকারের এই নির্দেশিকার পর শুধু সিএসটিসি নয় চরম আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন রাজ্যের সব পরিবহণ সংস্থার অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা।গত জুন মাস থেকে পেনশন বন্ধ হয়ে যায় ছ হাজার অবসরপ্রাপ্ত কর্মীর।

পেনশন সংকটে পরিবহন দফতর

পেনশন নিয়ে গভীর সংকটে পরেছেন সরকারি পরিবহণ সংস্থার কয়েক হাজার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী। প্রায় তিন মাস হয়ে গেল পেনশন বন্ধ। জুলাই মাসের পর থেকে পেনশন পাননি সিএসটিসি অথবা উত্তরবঙ্গ পরিবহণ সংস্থার কোনও কর্মী।কবে থেকে পেনশন পাবেন তাও জানেন না পরিবহণ সংস্থার অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা।