বিদেশের আকাশে এবার মুখোমুখি ভারত ও চিনের বিমানবাহিনী বিদেশের আকাশে এবার মুখোমুখি ভারত ও চিনের বিমানবাহিনী

বিদেশের আকাশে এবার মুখোমুখি ভারত ও চিনের বিমানবাহিনী। ভারতের তেজস বেশি শক্তিশালী না চিনের জেএফ ১৭ থান্ডার, সামনাসামনি মোকাবিলায় তার পরীক্ষা হতে চলেছে পশ্চিম এশিয়ার আকাশে। ২১ থেকে ২৩ জানুয়ারি বাহরিনের আকাশে হতে চলেছে চিন ও ভারতের এই মহড়া। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা চিনের জেএফ ১৭ থান্ডারের চেয়ে এগিয়ে রাখছেন ভারতের তেজসকেই। আধুনিক বায়ুসেনায় শুধু বোমাবর্ষণের ক্ষমতা বা গোলাগুলি চালানোর দক্ষতা দিয়ে যুদ্ধবিমানের সক্ষমতা বিচার হয় না। ফাইটার জেট কত বেশিক্ষণ লড়াইয়ে টিকে থাকতে পারে, গতিবেগে কীভাবে প্রতিপক্ষকে টেক্কা দিতে পারে, কত দূর পাড়ি দিয়ে হামলা চালাতে পারে, এই বিষয়গুলি আধুনিক যুদ্ধে খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সব কটি বিষয়েই তেজস এগিয়ে জেএফ ১৭ থান্ডারের চেয়ে।

'ন্যাচারাল' লাইট পিলারে মঙ্গোলিয়ার আকাশে নিয়ন আলোর চোখধাঁধানো লাইটিং, অবাক পৃথিবী    'ন্যাচারাল' লাইট পিলারে মঙ্গোলিয়ার আকাশে নিয়ন আলোর চোখধাঁধানো লাইটিং, অবাক পৃথিবী

বর্ষবরণ করতে আলোর সারি, চোখধাঁধানো লাইটিং, এ আর নতুন কি! সেটাই হয়ে আসছে। সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু এ আলো, যা দেখছেন, তা কিন্তু মোটেই কষ্টেসৃষ্টে তৈরি করা নয়। এ এক্কেবারে ন্যাচারাল। উত্তর চিনের মঙ্গোলিয়ার কিছু অংশে দেখা গেল এই বিস্ময়। তৈরি হল লাইট পিলার। শীতের আকাশে বহু রঙের আলোক-মালা। নিউ ইয়ার উপলক্ষ্যে শহর সাজানো হয় যে নিয়ন লাইট দিয়ে, তারই কামাল এই পিলারগুলি। খুদে নিয়নের আলোই যেন, ছুঁয়ে নিল আকাশ। রাতভর দেখা গেল এই ছবি। তাপমাত্রা মাইনাসের বহু নিচে থাকলেও, এ দৃশ্য দেখতে ভিড় জমে যায় সাধারণ মানুষের। শীতের তোয়াক্কা না করেই, রাস্তায় নেমে পড়েন মানুষজন। বিশেষজ্ঞদের মতে, তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে নেমে যাওয়াই এই লাইট পিলার তৈরির কারণ। তবে অতশত কারণ খুঁজতে কে যায়! সব চোখই যে ব্যস্ত অনন্যসাধারণ এই সৌন্দর্যের সাক্ষী হতে।