হরকায় হড়কালো মোর্চা, দল ছাড়লেন কার্শিয়ংয়ের বিধায়ক হরকায় হড়কালো মোর্চা, দল ছাড়লেন কার্শিয়ংয়ের বিধায়ক

পাহাড়ে রাজনীতির নাটক জমিয়ে দিয়ে মোর্চা ছাড়লেন হরকা বাহাদুর ছেত্রী। আর দলত্যাগের পর দল সম্পর্কে বিস্ফোরক তিনি। মোর্চা সুপ্রিমোকে স্বৈরাচারী বলতেও ছাড়লেন না। এবার কি তবে যোগ দেবেন তৃণমূলে ?  তৃণমূল শিবিরের প্রচ্ছন্ন মদতেই কি এতটা সাহসী হরকা বাহাদুর?  ইতিমধ্যেই সেরে ফেলেছেন এক মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকও। তবে প্রশ্নের সরাসরি জবাব না দিয়ে জল্পনা জিইয়ে রাখলেন তিনি। বিধায়ক পদে ইস্তফা দেওয়া নিয়ে বিতর্কের জেরে মোর্চা নেতৃত্বের সঙ্গে ফারাকটা বড় হচ্ছিল। শুক্রবার একেবারে চিড় ধরে গেল তাতে। মোর্চা ছাড়লেন, কিন্তু বিধায়ক পদে থেকে গেলেন হরকা বাহাদুর ছেত্রী। 

মোর্চার ২৩ নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারির নির্দেশ  মোর্চার ২৩ নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারির নির্দেশ

মদন তামাং হত্যা মামলায় বিমল গুরুংসহ মোর্চার ২৩ জন নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল নগর দায়রা আদালত। রোশন গিরি, হরকা বাহাদুর ছেত্রী, আশা গুরুংসহ মোর্চার একাধিক শীর্ষনেতার নামে জারি হয়েছে গ্রেফতারি পরোয়ানা। সিবিআইকেই গ্রেফতারি পরোয়না কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির জেরে রীতিমতো অস্বস্তিতে মোর্চা নেতৃত্ব। এবিষয়ে গত সপ্তাহেই কলকাতায় এসে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছিলেন মোর্চা বিধায়ক হরকা বাহাদুর ছেত্রী। তবে মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে জানিয়ে দেন, এই মামলা সিবিআইয়ের হাতে রয়েছে। তাই এবিষয়ে রাজ্যের কিছু করার নেই। এনিয়ে পাহাড়বাসী রাজ্য সরকারকে যেন ভুল না বোঝেন। অন্যদিকে, কেন্দ্রও জানিয়ে দিয়েছে যেহেতু সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআই তদন্ত, তাই এবিষয়ে তাদেরও কিছু করার নেই। সোমবার আদালতে আগাম জামিনের আবেদন জানাবেন মোর্চা নেতৃত্ব। আগামিকাল চকবাজারে সভার ডাক দিয়েছিল মোর্চা। তবে শেষ পর্যন্ত সেই সভা বাতিল করা হয়েছে। ফলে, লড়াই শুধুই আইনি পথে, নাকি পাহাড়ে আন্দোলনের কর্মসূচিও নেবে মোর্চা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।