এসআই অমিত চক্রবর্তী হত্যা মামলায় এক অভিযুক্তকে ছিনতাই দুষ্কৃতীদের

এসআই অমিত চক্রবর্তী হত্যা মামলায় এক অভিযুক্তকে ছিনতাই দুষ্কৃতীদের

দুবরাজপুর থানার এসআই অমিত চক্রবর্তী হত্যা মামলায় এক অভিযুক্তকে ছিনতাই করে পালাল দুষ্কৃতীরা। এসআই হত্যা মামলায় এক অভিযুক্তকে ধরতে আজ ভোর রাতে খোজ মহম্মদপুর গ্রামে অভিযান চালায় পুলিস। অভিযুক্ত ধরা পড়ে যাওয়ার পরই পুলিসের সামনে পড়তে থাকে একের পর এক বোমা। তখনই অভিযুক্তদের নিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা।

 দুবরাজপুরের SI অমিত চক্রবর্তী হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার হল আরও এক দুবরাজপুরের SI অমিত চক্রবর্তী হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার হল আরও এক

দুবরাজপুরের SI অমিত চক্রবর্তী হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার হল আরও এক জন। ধৃত শেখ দুলাল এলাকায় তৃণমূল কর্মী হিসেবে পরিচিত। গতরাতে দুবরাজপুরের মামুদপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এনিয়ে এই ঘটনায় ধৃতের সংখ্যা বেড়ে হল সতের। দুর্গাপুর, আসানসোল শিল্পাঞ্চলে একাধিক চুরি-ছিনতাইয়ের মামলায় অভিযুক্ত শেখ দুলাল। SI হত্যাকাণ্ডে পুলিসের চার্জশিটে তিন নম্বরেই নাম রয়েছে শেখ দুলালের। দুহাজার চোদ্দর পাঁচই জুলাই দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া বোমায় খুন হন SI অমিত চক্রবর্তী। সিউড়ি আদালতে মামলা রুজু করে নিহতের পরিবার। অভিযুক্তের তালিকায় নাম ওঠে পঞ্চাশ জনের। তাদের বেশিরভাগই শাসকদলের ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত। এই মামলায় ধৃতদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে খুন সহ একাধিক ধারায় চার্জ গঠন হয়েছে। ধৃতের তিন দিনের পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

মেটাগ্রামে সিপিআইএম নেতা খুনের ঘটনার গ্রেফতার দুই তৃণমূল কর্মী

সিপিআইএম কর্মী খুনের ঘটনায় আজ বারো ঘন্টার দুবরাজপুর বন্‌ধ-এর ডাক দিয়েছে বীরভূম জেলা বামফ্রন্ট। গোটা জেলা জুড়ে প্রতিবাদ কর্মসুচীও পালন করাও হবে আজ। গতকাল বীরভূমের মেটেগ্রামে খুন হন সিপিআইএম নেতা ভাস্কর মজুমদার। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও এক সিপিআইএম সমর্থক। মেটে গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ, গতকাল তৃণমূলের বাইকবাহিনী গ্রামে ঢুকে তফসিলি পাড়ায় লুঠপাট চালায়। কয়েকটি বাড়িতে আগুন ধরানো হয়।

দুবরাজপুর, তেহট্টের ঘটনা অনভিপ্রেত, মানলেন মমতা

তেহট্টের ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। তদন্তের স্বার্থে এসডিও, এসডিপিও এবং ওসিকে সরানো হচ্ছে। আজ মহাকরণে এই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুবরাজপুরে পুলিসের আচরণেও সন্তুষ্ট নয় রাজ্য সরকার। তেহট্টে গুলি চালানোর ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার মহাকরণে মুখ্যমন্ত্রী জানান প্রাক্তন বিচারপতি দিলীপ নায়েকের নেতৃত্বে কমিশন গঠন করা হবে। ঘটনায় পুলিসের কেউ দায়ী থাকলে তাঁর বিরুদ্ধেও নিরপেক্ষ তদন্ত হবে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

বাম-বন্‌ধে ব্যাপক সাড়া তেহট্টে, কংগ্রেসের কালা দিবস রাজ্য জুড়ে

পুলিসের গুলি চালানোর প্রতিবাদে বামেদের ডাকা বারো ঘণ্টার বনধে স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া মিলল তেহট্টে। সকাল থেকেই এলাকার দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। রাস্তাঘাটেও লোকজন বিশেষ নেই। তেহট্টের বনধের পাশাপাশি, নদিয়া জেলাজুডে আজ প্রতিবাদ আন্দোলনও করবে বামেরা। অন্যদিকে, তেহট্টের ঘটনার প্রতিবাদে আজ রাজ্যজুড়ে কালাদিবস পালনের ডাক দিয়েছে কংগ্রেস। কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী দীপা দাশমুন্সিও আজ তেহট্টে যাচ্ছেন। যদিও, এখনও পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়া কোনও রাজনৈতিক দলের নেতানেত্রীকে তেহট্টের হাউলিয়ায় যেতে দেওয়া হয়নি।

আঠারো মাসে পাঁচবার পুলিসের গুলি, মৃত ৫

ফের পুলিসের গুলিতে মৃত্যু গ্রামবাসীর। আবারও পুলিসের বিরুদ্ধে অসহিষ্ণুতার অভিযোগ। ২০১১-র অক্টোবর থেকে ২০১২-র নভেম্বর। পুলিসের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে পাঁচজন নিরীহ গ্রামবাসীর। পুলিসের গুলি রেয়াত করেনি শিশু বা মহিলাদেরও। পুলিস কি ক্রমশ ট্রিগার হ্যাপি হয়ে উঠছে? তা নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

দুবরাজপুর কাণ্ড: ড্যামেজ কন্ট্রোল বৈঠক আজ

দুবরাজপুরে জমি সমস্যার সমাধান সূত্র খুঁজে বের করতে আজ আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বিধানসভায় দুপুর বারোটায় এই বৈঠক হবে। উপস্থিত থাকবেন কৃষিজমি রক্ষা কমিটির আট প্রতিনিধি। আন্দোলনকারীদের দাবিদাওয়ার পাশাপাশি, বৈঠকে লোবা গ্রামে আটকে থাকা বেঙ্গল এমটার মাটি কাটার যন্ত্রটি নিয়েও আলোচনা হবে। শিল্পমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের কাছে যন্ত্রটা ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ রাখতে পারেন বলে খবর।

লোবায় গ্রামবাসীদের খবর জানতেন মুখ্যমন্ত্রীও

দুবরাজপুরের লোবা গ্রামে জমি আন্দোলনকারীদের ওপর যে অত্যাচার চালানো হচ্ছে, সেকথা বহুদিন আগে থেকেই জানতেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ এই তথ্য সামনে এসেছে একটি চিঠির মাধ্যমে। লোবা গ্রামের জমির মালিকরা ২৭ সেপ্টেম্বর মুখ্যমন্ত্রীকে ওই চিঠি লেখেন। গত দুদিন ধরে মুখ্যমন্ত্রী বারবার বলেছেন, লোবায় কোনও জমি আন্দোলন চলছে না। বহিরাগতরা অশান্তি করছে। চিঠিতে পরিস্কার দীর্ঘদিন ধরে লোবার বাসিন্দারাই জমির নায্য ক্ষতিপূরণ চেয়ে আন্দোলন চালাচ্ছেন। যা মুখ্যমন্ত্রীকেও তাঁরা জানিয়েছিলেন চিঠির মাধ্যমে।

গ্রামবাসীদের ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার কথা শুনলেন বাম বিধায়করা

মাওবাদীদের ভয়ে শিল্পমন্ত্রীকে লোবা গ্রামে যেতে দিতে রাজি হননি পুলিস কর্তারা। গ্রামের মুখ থেকে গাড়ি ঘুরে ফিরে গিয়েছিলেন শিল্পমন্ত্রী। আর পুলিস ছাড়াই গ্রামে গিয়ে কথা বললেন বাম পরিষদীয় দলের বিধায়করা। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উঠে আসল গ্রামবাসীদের বক্তব্যে।  

দুবরাজপুরে পুলিসি অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন তৃণমূল জেলা সভাপতি

দুবরাজপুরের লোবা গ্রামে পুলিসি অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ানে উঠে এসেছে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলই পুলিসকে প্ররোচিত করেছিলেন গুলি চালানো জন্য। দুবরাজপুরে পুলিস-জনতা সংঘর্ষে গ্রামবাসীদের কোনও দোষ দেখতে পাননি মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর চোখে পুলিসও ছিল নিরপরাধ। ঘটনার পিছনে মুখ্যমন্ত্রী দেখেছিলেন ষড়যন্ত্র। আর তাঁর শিল্পমন্ত্রীর অভিযোগ ছিল, পুলিসের ওপর হামলা চালিয়েছে সিপিআইএম ও কংগ্রেস। পরে অবশ্য বয়ান বদল করে উগ্র বামপন্থীদের দোষারোপ করেন তিনি। যদিও প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে শিল্পমন্ত্রীর বয়ান মিলছে না।

শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশেই অভিযান দুবরাজপুরে

শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশেই পুলিসি অভিযান চলেছিল দুবরাজপুরে। গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য। বেঙ্গল এমটার মাটি কাটার মেশিনটি উদ্ধার করার জন্য শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ই পুলিসকে চাপ দিয়েছিলেন। এ বিষয়ে পুলিসের ওপর স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের চাপ ছিল বলেও জানা গেছে। দুবরাজপুরে গ্রামবাসীদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনার পরই বীরভূমের পুলিস সুপার হৃষিকেশ মিনাকে ছুটিতে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। পুলিস সুপার বলেন, তাঁর ওপর চাপ ছিল।

দুবরাজপুরে পুলিস বাড়াবাড়ি করেনি: মমতা

প্ররোচনার মুখে পড়েও দুবরাজপুরে পুলিস বাড়াবাড়ি করেনি। পুলিস গুলি চালায়নি। দুবরাজপুরের ঘটনায় আজ পুলিসকে এভাবেই দরাজ সার্টিফিকেট দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুবরাজপুরের ঘটনা পরিকল্পিত বলেও মন্তব্য করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ঘটনার পরিকল্পনা কারা করেছে, তা খতিয়ে দেখতে এডিজি আইনশৃঙ্খলার নেতৃত্বে তদন্ত হবে।

দুবরাজপুরে পুলিস বাড়াবাড়ি করেনি : মমতা

গতকালের দুবরাজপুরের লোবা গ্রামের ঘটনা নিয়ে অবশেষে আজ মহাকরণে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। নন্দীগ্রাম-সিঙ্গুরের সঙ্গে এই ঘটনার কোন তুলনাই চলে না বলে তিনি জানালেন। কারণ এর সঙ্গে জোর করে জমি দখলের কোনও সম্পর্ক নেই। তার সঙ্গেই গতকালের ঘটনা নিয়ে তিনি দুঃখপ্রকাশও করেছেন। ঘটনার কথা স্বীকার করে নিলেও তিনি জানিয়েছেন দুবরাজপুরে পুলিস বাড়াবাড়ি করেনি। তিনি জানিয়েছেন তাঁর কাছে আসা খবর অনুযায়ী স্থানীয় পুলিস রাজ্য পুলিসকে না জানিয়ে ঘটনাস্থলে গেলেও গুলি চালায়নি। তবে ঘটনা যে একটা ঘটেছে সে কথাও স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি।

ভয় কাটেনি দুবরাজপুরের, আজ ঘটনাস্থলে বিরোধীরা

গতকালের ঘটনার পর আজও থমথমে বীরভূমের দুবরাজপুরের লোবা গ্রাম। আহতদের দেখতে সিউড়ি হাসপাতালে যাচ্ছেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তবে লোবা গ্রামে যাবেন না তিনি। অন্যান্য রাজনৈতিক দলের প্রতনিধিরাও আজ লোবা গ্রাম পরিদর্শনে যাচ্ছেন। সিপিআইএম, কংগ্রেস ও বিজেপির প্রতিনিধিরা আজ লোবা গ্রামে যাবেন।

গুলি চলেছে, অবশেষে স্বীকার রাজ্য সরকারের

১৮০ ডিগ্রি ঘুরে বীরভূমের দুবরাজপুরে গুলি চালানোর ঘটনা কার্যত স্বীকার করে নিল রাজ্য সরকার। মঙ্গলবারের  ঘটনায় বেশ অসন্তুষ্ট হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক তদন্তের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে। বীরভূম জেলার এসপিকে ছুটিতে যাওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।