গম্ভীর আর ওয়ার্নার যা করেছেন, ক্রিকেটে কেউ কখনও করেননি!

গম্ভীর আর ওয়ার্নার যা করেছেন, ক্রিকেটে কেউ কখনও করেননি!

আপনি খুব ক্রিকেটভক্ত? আইপিএলের কোনও খেলা মিস করেননি? অথবা, টেস্ট হলে টেস্ট, একদিনের ম্যাচ হলে একদিনের ম্যাচ অথবা টি২০, কিছুই বাদ রাখেন না কখনও? ক্রিকেট হলেই গোগ্রাসে গেলেন? তাহলে আপনার জন্য একটা মজার তথ্য দিই। ভালো লাগবে।

ধোনির এমন ছবি কখনও কেউ দেখেননি এর আগে ধোনির এমন ছবি কখনও কেউ দেখেননি এর আগে

তিনি মহেন্দ্র সিং ধোনি। অধুনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সেরা ফিনিশার। তথ্য, পরিসংখ্যান, ধারাবাহিকতা সব তাঁর হয়েই কথা বলে। কিন্তু সবকিছুরই পরিবর্তন হয় এই পৃথিবীতে। তাই আচ্ছে দিন ধোনির থেকে এখন বেশ খানিকটা দূরেই বিরাজ করছে। ধোনি এখন ডুবে বেজায় খারাপ দিনের স্রোতের মাঝে।

কালকে গৌতম গম্ভীর কী রেকর্ড করলেন জানেন তো? কালকে গৌতম গম্ভীর কী রেকর্ড করলেন জানেন তো?

গতকাল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে কলকাতা নাইট রাইডার্সের জয় নিশ্চয়ই খুব উপভোগ করেছেন। নাইটরা এখন আইপিএলের পয়েন্ট টেবলের শীর্ষ স্থানেও রয়েছে।

 আজই জন্মদিন ক্রিকেটের চার মুর্তি গম্ভীর, ম্যাক্সওয়েল, দিলশান এবং আজমলের! আজই জন্মদিন ক্রিকেটের চার মুর্তি গম্ভীর, ম্যাক্সওয়েল, দিলশান এবং আজমলের!

১৪ ফেব্রুয়ারিতে ভ্যালেন্টাইন্স ডে। প্রেমের দিন। কিন্তু ১৪ অক্টোবর ক্রিকেটের এমন দিন কীভাবে! কথায় বলে ক্রিকেট বড্ড রোম্যান্টিক। তা বলে সে তার নিজের প্রেমের দিন পালন করে ১৪ অক্টোবর! কেন এমন বলা? তার কারণ, আজ সাম্প্রতিক ক্রিকেট বিশ্বের তিন সেরা মারকুটে এবং এক সেরা স্পিনারের জন্মদিন। চার মুর্তির নামগুলো একটু শুনে নিন। সঙ্গে বার্থ ডে ইয়ারটাও, ১) গৌতম গম্ভীর-১৯৮১, ২) গ্লেন ম্যাক্সওয়েল-১৯৮৮, ৩) তিলকরত্নে দিলশান-১৯৭৬, ৪) সঈদ আজমল-১৯৭৭ ! তিন মারকুটে ব্যাটসম্যানের জন্মদিন পালন করলে একজন স্পিনারের জন্মদিন পালন ফ্রি!

'বুড়োদের' বাদ দিয়েই বিশ্বকাপের লাকি থার্টির নাম ঘোষিত 'বুড়োদের' বাদ দিয়েই বিশ্বকাপের লাকি থার্টির নাম ঘোষিত

ইঙ্গিতটা ছিলই। সেটাই সত্যি হল। ২০১১ বিশ্বকাপে যারা দেশকে ট্রফি এনে দিয়েছিলেন তারাই বাদ পড়ে গেলেন '১৫ বিশ্বকাপের প্রাথমিক ৩০ জনের দলে। বীরেন্দ্র সেওয়াগ, গৌতম গম্ভীর, হরভজন সিং, যুবরাজ সিং, জাহির খান। গত বিশ্বকাপে ম্যান অফ দি টুর্নামেন্ট হয়েছিলেন যুবরাজ সিং। ১১ বিশ্বকাপে যারা ছিলেন দলের অপরিহার্য সদস্য চার বছর পরের বিশ্বকাপে তাঁরা প্রাথমিক দলেও ঠাঁই পেলেন না। বিশ্বকাপের চূড়ান্ত ১৫ জনের দলেও এঁদের থাকার সম্ভাবনা কার্যত শেষ হয়ে গেল।  

জাতীয় দলে ফেরার লড়াই ছেড়ে দিলেন সেওয়াগ, গম্ভীর! জাতীয় দলে ফেরার লড়াই ছেড়ে দিলেন সেওয়াগ, গম্ভীর!

অস্ট্রেলিয়া সফরে দলে না রেখে বার্তাটা আগেই পৌঁছে গিয়েছিল। জাতীয় দলের দরজাটা হয়তো আর খুলবে না বীরেন্দ্র সেওয়াগ, গৌতম গম্ভীরের জন্য। দৈবাত্‍ কিছু ঘটে না গেলে বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনাও আর নেই। ভারতীয় ক্রিকেটের হল অফ ফেমে চলে যাওয়া ওপেনিং জুটি বীরেন্দ্র সেওয়াগ-গৌতম গম্ভীর হয়তো জাতীয় দলে ফেরার আশা ছেড়ে দিলেন।

আর কতটা গম্ভীর হলে গৌতমকে খেলানো যায়! প্রশ্ন ক্রিকেট সমালোচকদের আর কতটা গম্ভীর হলে গৌতমকে খেলানো যায়! প্রশ্ন ক্রিকেট সমালোচকদের

সাউদাম্পটনে ভারতের বিশাল ব্যবধানে হার ধোনিবাহিনীর আত্মবিশ্বাস একটু হলেও খামতি দেখা দিতে পারে। গত টেস্টে প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যানদের খারাপ পারফরমেন্স নিয়ে মুখ খুলেছে ক্রিকেট সমালোচকরা। তবুও ধোনির মেজাজ ফুরফুরে! ম্যানচেস্টারে নামার আগে কোনও টেনশন নিতে চাননা কুল অধিনায়ক।  ক্রিকটে বিশেষজ্ঞরা প্রশ্ন তুলছেন, শিখর ধাওয়ানের পারফরমেন্স নিয়ে। পরিবর্তে তাঁরা চাইছেন রিজার্ভ বেঞ্চে বসে থাকা অর্ধশত টেস্ট খেলা গৌতম গম্ভীরকে। তাতে ওপেনিং জুটিতে বাঁহাতি সমন্বয়ও ভাঙছেনা, ভাগ্য ঠিক থাকলে ধাওয়ানের ক্ষরা কাটিয়ে উঠতে পারে গম্ভীর। বলা যেতে পারে এই মুহূর্তে গম্ভীরকে খেলানো হল  সাপও মরল, লাঠিও ভাঙল না।

সেওয়াগ-গম্ভীররা তলিয়ে গেলেন, ভেসে উঠলেন যুবরাজ

জাতীয় দলে রাজকীয় প্রত্যাবর্তন হল যুবরাজ সিংয়ের। ওয়েস্ট ইন্ডিজ-এ-এর বিরুদ্ধে বিধ্বংসী পারফরমেন্সের পর যুবরাজ সিংহের কামব্যাক কার্যত নিশ্চিতই ছিল৷ অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একটি টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজের ঘোষিত ১৫ জনের দলে যুবরাজ জায়গা পেলেও ঠাঁই পেলেন না দুই সিনিয়র ওপেনার গৌতম গম্ভীর, বীরেন্দ্র সেওয়াগ৷

নাইট কাটিয়ে প্লেঅফে সানদের সূর্যোদয়, রঙ হারাল মাছরাঙারা

অবশেষে সানের প্লেঅফে সূর্যোদয় হল। পয়েন্ট তালিকায় প্লেঅফ থেকে একধাপ নিচে থাকায় একটা টান টান স্নায়ু যুদ্ধ চলছিল লক্ষ্মন-কৃষ্ণের ড্রেসিংরুমে। কোহলিদের বিরাট জয় আরও বারুদ যোগানের কাজ করে দেয়। তারপর একটাই পথ খোলা।

লাস্ট বয়কে হারিয়ে নাইটদের গম্ভীর হাসি

অবশেষে আর একটা জয়ের মুখ দেখল কলকাতা নাইট রাইডার্স। পেপসি আইপিএলের দুর্বলতম দল পুণে ওয়ারিয়র্সের বিরুদ্ধে গতকাল ৪৬ রানে সহজে জয় তুলে নিল শাহরুখের নাইটরা।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পুনের দুর্বল বোলিং বাহিনীর বিরুদ্ধে কোনও রকমে ১৫০ রানের বাউন্ডারিটা টপকান গম্ভীর এন্ড কোম্পানি। অধিনায়কের হাফসেঞ্চুরি আর রায়ান টেন দুসখাতে ৩১ রানের সৌজন্যে পুণের বিরুদ্ধে মোটামুটি ভদ্রস্থ ১৫৩ রানের টার্গেট দেয় কলকাতা। যদিও আইপিএলের নিরিখে ১৫২রানের সীমাটা কোনও ব্যাপারই নয় তবুও পুনের বর্তমান হালত এতটাই সঙ্গিন ওই কটা রান করতেই হিমশিম খেল যুবরাজরা। মাত্র ১৯.৩ ওভারে ১০৬ রানেই গুটিয়ে যায় পুণের ইনিংস। যুবরাজ থেকে ফিঞ্চ, পুণের সবাই যেন ঠিকই করে ফেলেছেন এবারে আইপিএলে লিগ টেবিলে শেষ জায়গাটা ছেড়ে তাঁরা একপাও নড়বেন না।

নাইটের অন্ধকারচ্ছন্ন গলিতে প্লে-অফের জায়গা খুঁজছে রাজস্থান

হিসাব বলছে পেপসি আইপিএলে প্লে-অফের রাস্তা কলকাতা নাইট রাইডার্সের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। গতবারের চ্যাম্পিয়ানদের ঝুলিতে তাই বেঁচে থাকা কিঞ্চিৎ সম্মান ছাড়া বর্তমানে হারানোর কিছুই আর নেই। সেই পরে থাকা ছিটেফোঁটা সম্মান রক্ষার তাগিদে আজ বাজিগরের নাইটরা ইডেনে মুখোমুখি হচ্ছেন শিল্পা সুন্দরীর রাজস্থান রয়্যালসের।

আজ দ্বিমুখী বদলার ম্যাচে কলকাতার সামনে চেন্নাই

ঘরের মাঠে ধোনি ধামালের কাছে নাস্তানাবুদ হয়েছিল নাইট বাহিনী। আজ ফিরতি খেলায় সিংহের গুহায় ঢুকে সেই পরাজয়ের প্রতিশোধ নেওয়ার কঠিন চ্যালেঞ্জ গম্ভীরদের সামনে। পরপর তিন ম্যাচ হারের পর আগের ম্যাচে কিংস XI ইলেভেন পাঞ্জাবকে হারিয়ে কিছুটা চনমনে কলকাতা নাইট রাইডার্স। কিন্তু সেই চনমনে ভাব বিধ্বংসী চেন্নাইয়ের উড়ান থামাতে কতখানি সক্ষম হবে সেই নিয়ে নাইটদের অন্দরমহলেই সন্দেহ প্রবল। খাতায় কলমে আজকের লড়াইটা লিগ টেবিলে দু`নম্বরে থাকা চেন্নাই কিংসের সঙ্গে সাত নম্বরে থাকা কলকাতা নাইট রাইডার্সের। এবারের আইপিএলের নিরিখে এটা কিং খানের দলের বদলার ম্যাচও বটে। কিন্তু এর আড়ালে আর একটি অমোঘ সত্যিও যে লুকিয়ে আছে। এই মাঠেই আইপিএল-৫-এর ফাইনালে ধোনির চেন্নাইকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন ট্রফিটা দখল করেছিল গম্ভীরের কলকাতা। সেই ইতিহাস মনে হয় না চেন্নাই দলের স্মৃতি থেকে মুছে গেছে। তাই এবারের হিসাবনিকাশের অলক্ষ্যেই আর একটা বদলার কাউন্টডাউনও কিন্তু শুরু হয়ে গেছে। আর ২২ গজে প্রতিশোধের মামলায় মহেন্দ্র সিং ধোনি নামক ব্যক্তিটি যে কতখানি নির্মম সে বিষয়ে সম্যক জ্ঞান আছে নাইট দলের সবারই। তাই আশা করা যায় আজ আরও অনেক ক্রিকেটিয় অঙ্কের সঙ্গে এই ফ্যাক্টরটিও মাথায় নিয়ে খেলতে নামবেন কলকাতার সৈন্যরা।

স্মিথের ব্যাটিং দাপটে সচিনময় কলকাতা অস্তমিত

ঘরের মাঠে মুম্বইয়ের কাছে হার নাইটদের। বুধবারের ম্যাচে ৫ উইকেটে কলকাতা হারই বড় নয়, বৃষ্টি ভেজা মাঠে দুই প্রত্যাশায় জটে ছিল শহর। এক গম্ভীরদের জয় আর দ্বিতীয়টি সচিনের জন্মদিনে

ভগবানের দুরন্ত ব্যটিং। কিন্তু কেউই কোনও আশা রাখাতে পারেননি।

ম্যাচের মাঝেই প্রকাশ্য ঝামেলা গম্ভীর-কোহলির

আইপিএলে ঝামেলায় জড়ালেন দিল্লির দুই ক্রিকেটার। চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স-কেকেআর ম্যাচে  বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন গৌতম গম্ভীর এবং বিরাট কোহলি। গেইল ঝড়ে উড়ে যাওয়ার ম্যাচে সাক্ষী থাকল দুই ভারতীয় দলের ক্রিকেটারের প্রকাশ্য বিবাদ দেখে। ভাজ্জি-শ্রীশান্তের চড় কাণ্ডের মত ওতটা বাড়াবাড়ি না হলেও নিঃসন্দেহে আজকের কোহলি বাম গম্ভীর কাণ্ডটা নিয়ে ঝড় উঠবে।

গেইলের মস্তানিতে ক্রস বিদ্ধ কেকেআর

কোনও কোনও জিনিস থাকে যেখানে একজনের সঙ্গে আরেকটা জিনিস জড়িয়ে যায়। এই যেমন পিট সাম্প্রাস আর উইম্বলডন, বোল্ট আর অলিম্পিক, পেলে আর বিশ্বকাপ, ঠিক তেমনই আইপিএল আর ক্রিস গেইল। সেটাই ঘটল বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুতে।