নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানে ভাঙরা নাচলেন ভাজ্জি নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানে ভাঙরা নাচলেন ভাজ্জি

খুশিতে ভাজ্জির 'দিল', 'গার্ডেন গার্ডেন'। এক নেহি, দো দো লাড্ডু ফুটা হ্যায়, ভাজ্জির বিয়েতে এসে বন্ধু পার্থিব প্যাটেল তো এমনটাই বলছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বহুদিন বাইরে থেকে অবশেষে ভারতীয় ক্রিকেট দলে ফেরা। আবার এ বছরই বিয়ের বন্ধনেও আবদ্ধ হওয়া। দুই লাড্ডু তো বটেই। খুশিতে বাঁধ ভাঙলেন ভাজ্জি, নিজেকে ধরে রাখতে না পেরে একেবারে পৌঁছে গেলেন মঞ্চে। মাইকে মিকা, তালে ভাজ্জি, আর দেখে কে? কখনও সিং ইজ কিং আবার কখনও বোলে তারা রা রা... নেচেই চলেছেন ভাজ্জি। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করেও এতটা খুশি হয়েছিলেন কিনা তা বোধহয় হরভজন নিজেও বলতে পারবেন না। মিকার সাথেই গলা মেলাতে দেখা যায় গায়ক গুরুদাস মনকেও। একটা সময় মঞ্চে উঠে আসেন ভাজ্জির হবু স্ত্রী অবিনেত্রী গীতা বসরাকেও।  

হরভজন- গীতার বিয়ে ২৯ অক্টোবর, বিয়ের A-Z হরভজন- গীতার বিয়ে ২৯ অক্টোবর, বিয়ের A-Z

বিয়ে করতে চলেছেন হরভজন সিং। বান্ধবী বলিউড নায়িকা গীতা বাসরার সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা ভাজ্জি। বেশ কয়েক বছর ধরেই গীতা বাসরার সঙ্গে ভাজ্জি একসঙ্গে দেখা যাচ্ছিল। গত বছর আইপিএলে হরভজনের বেশ কেয়কটি ম্যাচ গ্যালারিতে বসে দেখেছিলেন। তখন থেকেই জল্পনা ছিল ভাজ্জি-গীতা এবার হয়তো বিয়ে করবেন। আগামী ২৯ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিয়ে করবেন ভাজ্জি-গীতা। জলন্ধরে হবে বিয়ের আসর। বিয়ের আসরে উপস্থিত থাকবেন যুবরাজ সিং, মহেন্দ্র সিং ধোনি সহ একঝাঁক ক্রিকেটার। বলিউডের বেশ কয়েকজন তারকাকেও দেখা যাবে এই অনুষ্ঠানে। তবে অক্টোবর থেকে শুরু হতে চলা দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভাজ্জি যদি ভারতীয় দলে সুযোগ পান তাহলে বিয়ের দিন পরিবর্তন হবে।

'রিং মাস্টার'কে 'চাবুক' মারলেন ভাজ্জি, জাহির, লক্ষ্ণণ। সচিনের পাশে মুরলিথরন 'রিং মাস্টার'কে 'চাবুক' মারলেন ভাজ্জি, জাহির, লক্ষ্ণণ। সচিনের পাশে মুরলিথরন

'রিং মাস্টার' ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে পড়ছেন। ভারতীয়রা তো বটেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটাররাও সচিনের পাশেই দাঁড়াচ্ছেন।  সচিন তেন্ডুলকরের সুরেই গ্রেগ চ্যাপলকে আক্রমণ করলেন তাঁর পুরনো তিন শিষ্য হরভজন সিং, জাহির খান, ভিভিএস লক্ষ্মণ। হরভজন সিং তো বলেই ফেললেন, তিন বছর কোচিংয়ের দায়িত্ব নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটকে ৬ বছর পিছিয়ে দিয়েছিলেন গ্রেগ। জাহির খান আবার অভিযোগ করলেন, গুরু গ্রেগ তাঁর কেরিয়ার শেষ করে দিতে চেয়েছিলন। জাহির বলেন, কোচ থাকাকালীন গ্রেগ চ্যাপেল তাঁকে বলেছিলেন , "আমি থাকাকালীন তুমি আর ভারতের হয়ে খেলতে পারবে না।"ভিভিএস লক্ষ্ণণ আবার এ বিষয়ে বললেন, গ্রেগের অধীনে খেলার অভিজ্ঞতা দুঃস্বপ্নের মত।