`বাল্য-বিবাহই ধর্ষণের সমাধান`, খাপের পাশে চৌতালাও

ধর্ষণের অভিযাগে জেরবার হরিয়ানা। বিতর্কের সুনামি তুলে, রাজ্যের খাপ পঞ্চায়েতের সরল `সমাধান সূত্র`, বাল্য বিবাহেই ধর্ষণের প্রতিকার সম্ভব। আশ্চর্যজনক ভাবে দল নির্বিশেষে রাজ্যের প্রথম সারির নেতারা হয় বিষয়টি নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন, অথবা প্রকারান্তরে মৌন সমর্থন জানিয়ে আসছিলেন। এবার একেবারে প্রকাশ্যেই খাপ-বিধানের পাশে দাঁড়ালেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওম প্রকাশ চৌতালা।

বাড়ছে ধর্ষণ, আত্মঘাতী ধর্ষিতার বাড়িতে সোনিয়া

একের পর এক ধর্ষণের ঘটনায় সংবাদ শিরোনামে হরিয়ানা। গত ২৮ দিনে রাজ্যে ১১টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ। আজ আরও দুটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। আর, এসবের মধ্যেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপান-উতোর। ভূপিন্দর সিং হুডার নেতৃত্বাধীন হরিয়ানা সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই সাজানো ধর্ষণের ঘটনা প্রচার করা হচ্ছে বলে কংগ্রেসের অভিযোগ। যদিও, তফশিলি জাতি উপজাতি কমিশন থেকে শুরু করে বিরোধিরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় হুডা সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগে সরব হয়েছেন। আবার, রাজ্যের প্রভাবশালী খাপ পঞ্চায়েত বিধান দিয়েছে, বাল্যবিবাহের মাধ্যমেই নাকি ধর্ষণ প্রতিরোধ করা সম্ভব। এই পরিস্থিতিতে আজ হরিয়ানা গেলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।