আদালতের চোখে ঘাতক বাবা-মা এখন ঘুম হারা, জেলে কাজের পারিশ্রমিক ৪০ টাকা

সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত তাদের ঘাতক বাবা-মা হিসাবে রায় দিয়েছে। সেই ঘাতক বাবা-মা রাজেশ তলোয়ার, নুপূর তলোয়ার জেলের গারদে ইনসোমনিয়ায় ভুগছেন। তলোয়ার দম্পতির চোখে ঘুম নেই। যা নিয়ে বেশ চিন্তায় পড়েছে দশনা জেল কর্তৃপক্ষ। জেলের সুপার ভিরেশ রাজ শর্মা বললেন, তলোয়ার দম্পতির দু চোখের পাতা এক করছেন না। ওদের চোখেমুখে উদ্বেগের ছবি পরিষ্কার ধরা পড়ছে।

ঘাতক বাবা-মাকে যাবজ্জীবনের সাজা শোনাল সিবিআই আদালত

আজ আরুষি হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত হওয়া তলোয়ার দম্পত্তির সাজা ঘোষণা করবে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। সবার একটাই প্রশ্ন, ফাঁসি হবে কি ঘাতক বাবা-মার! আদালতের চোখে নিজের মেয়েকে ঠাণ্ডা মাথায় খুন করাটা বিরল থেকে বিরলতম অপরাধ হিসাবে গন্য হয় কিনা তার ওপরেই নির্ভর করছে রাজেশ তালোয়ার ও নূপুর তলোয়ারের ভাগ্য।

শোকের ছায়াচ্ছন্ন শহীদ হেমরাজের গ্রাম

শেরনগর। মথুরার কাছে অখ্যাত এক গ্রাম। উত্তরপ্রদেশের হাড় কাঁপানো ঠান্ডাকে অগ্রাহ্য করেই, বুধবার সেখানে হাজির হয়েছিলেন অসংখ্য গ্রামবাসী। কারণ, গ্রামের হেমরাজ নামের ছেলেটা আর বেঁচে নেই! পুঞ্চের মেন্ধর সেক্টরে পাকসেনার মোকাবিলা করতে গিয়ে শহিদ হন হেমরাজ। শোকে ভারাক্রান্ত তাঁর পরিবার। কিন্তু দেশের জন্য ঘরের ছেলে যেভাবে প্রাণ বিসর্জন দিয়েছে, তাতে তাঁরা গর্বিত।

ফের পিছল নূপুর তলোয়ারের জামিনের আবেদনার শুনানি

জামিন পেলেন না নূপুর তলোয়ার। বুধবার তাঁর জামিনের আবেদনের শুনানি ২২ মে পর্যন্ত স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয় এলাহাবাদ আদালত। ঘটনার ঠিক ৪ বছরের মাথায় এদিন একসঙ্গে তিনটি আদালতে আরুষি-হেমরাজ হত্যা মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল।

আরুষি হত্যা মামলা স্থানান্তরের আবেদন খারিজ

আরুষি হত্যা মামলা স্থানান্তরিত করার আবেদন খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট। মামলাটি গাজিয়াবাদ আদালত থেকে দিল্লির আদালতে স্থানান্তরিত করার আবেদন জানায় তলওয়ার দম্পতি। কারণ হিসেবে দিল্লি থেকে গাজিয়াবাদের দূরত্বের কথা উল্লেখ করা হয়।

আরুষি হত্যা মামলা, রাজেশ তলওয়ারের জামিন বহাল রাখল সুপ্রিম কোর্ট

আরুষি তলোয়ার হত্যা মামলায় আরুষির বাবা রাজেশ তলওয়ারের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন বহাল রাখল সুপ্রিম কোর্ট।

আরুষি হত্যা মামলা, রাজেশ ও নূপুর তলোয়ারের বিরুদ্ধে শুনানির নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

আরুষি তলোয়ার হত্যা মামলায় আরুষির বাবা রাজেশ তলোয়ার ও নূপুর তলোয়ারের বিরুদ্ধে শুনানি শুরু করার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। এর আগে নিম্ন আদালত রায় দেয়, আরুষি হত্যায় মূল অভিযুক্ত রাজেশ ও নূপুর তলোয়ার।