দাউদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকলে দুবাইতে থাকতাম: শ্রীসন্থ

দাউদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকলে দুবাইতে থাকতাম: শ্রীসন্থ

স্পট ফিক্সিং মামলায় বেকসুর খালাস হয়ে বাড়ি ফিরলেন শ্রীসন্থ। শনিবার দিল্লি আদালত এই মামলায় শ্রীসন্থ সহ সব অভিযুক্তকে বেকসুর খালাস ঘোষণা করেছে। রবিবার সকালে শ্রীসন্থ কেরালার বাড়িতে ফেরেন। কোচি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌছতেই অনুরাগীরা ফুলের মালা পরিয়ে বরণ করে নেন ঘরের ছেলেকে। বিমানবন্দরে শ্রীসন্থ জানান তার বিরুদ্ধে দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে যোগাযোগের অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু তিনি দাউদকে চেনেনই না। শ্রীসন্থের দাবি দাউদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকলে তিনি আজ ভারতে থাকতেন না। দুবাইতে থাকতেন। আর তিনি ক্রিকেটারও থাকতেন না, অন্য কিছু হতেন।

৫ মাস পর স্পট ফিক্সিং কাণ্ডের দ্বিতীয় রিপোর্ট ৫ মাস পর স্পট ফিক্সিং কাণ্ডের দ্বিতীয় রিপোর্ট

স্পট ফিক্সিং ইস্যুতে দ্বিতীয় রিপোর্ট দেওয়ার জন্য পাঁচ মাস সময় চেয়ে নিল লোধা কমিটি। সুপ্রিম কোর্টের কাছে এই সময়সীমা চেয়ে আবেদন করেছেন এই কমিটির প্রধান আর এম লোধা। আইপিএলের চিফ অপারেটিং অফিসার সুন্দররমনের বিষয়ে এখনও তদন্তের রিপোর্ট পেশ করেনি পুলিস। এই রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে লোধা কমিটি। পাশাপাশি বিসিসিআই-এর সংবিধান সম্পর্কিত বেশ কিছু বিষয় খতিয়ে দেখে পরবর্তী রিপোর্ট পেশ করতে চাইছে লোধা কমিটি। বিশেষ করে কনফ্লিক্ট অফ ইন্টারেস্টের বিষয়টি নিয়ে রিপোর্ট দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা সাবধানতা অবলম্বন করতে চাইছে তারা। এর ফলে সাময়িক হলেও কিছুটা স্বস্তিতে বোর্ড কর্তারা।