দেশভাগের স্মৃতি ফিরিয়ে ছিটমহল বিনিময়ে আজ নাগরিকত্ব পাবেন দুই বাংলার ৬৪,০০০ মানুষ দেশভাগের স্মৃতি ফিরিয়ে ছিটমহল বিনিময়ে আজ নাগরিকত্ব পাবেন দুই বাংলার ৬৪,০০০ মানুষ

জীবনের কঠিনতম পরীক্ষার মুখে আজ কোচবিহারের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট। শুক্রবার মধ্যরাতে আবারও ফিরে আসতে চলেছে দেশভাগের সেই মুহূর্ত। কোচবিহারের ৩০০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় রয়েছে বাংলাদেশের বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। ৪১ বছর আগে স্বাক্ষরিত ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত চুক্তি অনুযায়ী, ১৬২টি ছিটমহল বিনিময় করবে দুই দেশ। যেই অঞ্চলের ৫০,০০০ বাসিন্দা শুধুমাত্র নাগরিকত্ব থেকেই বঞ্চিত হননি, বঞ্চিত হয়েছেন সবরকম সুযোগ সুবিধা থেকে। অন্যদিকে, বাংলাদেশের ৫৫টি ছিটমহল আজ যুক্ত হবে ভারতের সঙ্গে। ১৪,০০০ মানুষ নাগরিকত্ব পাবেন ভারতের।

২৪ ঘণ্টায় চারবার অস্ত্রবিরতি পাকিস্তানের, সৌহার্দের তাল কেটে ফের শত্রুতা উর্দ্ধমুখী প্রতিবেশী দু'দেশে ২৪ ঘণ্টায় চারবার অস্ত্রবিরতি পাকিস্তানের, সৌহার্দের তাল কেটে ফের শত্রুতা উর্দ্ধমুখী প্রতিবেশী দু'দেশে

চব্বিশ ঘন্টায় চার বার। পাকিস্তানের লাগাতার অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘণের জেরে উত্তপ্ত দেশের উত্তর পশ্চিম সীমান্ত। আরএসপুরা, পুঞ্চ, আখনুরায় পাক বাহিনীর গুলি মর্টার হামলায় হতাহত বেশ কয়েকজন নিরীহ গ্রামবাসী। ইতিমধ্যেই ইসলামাবাদের হস্তক্ষেপ দাবি করেছে ভারত। চাপের মুখে পাল্টা কৌশল হিসেবে ড্রোন ইস্যুতে ভারতীয় হাইকমিশনের প্রতিনিধিকে তলব করে পাকিস্তান।শুক্রবারই জম্মু সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। তার ঠিক আগেই বার বার ইসলামাবাদের অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘনের জেরে উত্তপ্ত নিয়ন্ত্রণ রেখা।

কলঙ্কের দিন মর্যাদা- জিম্বাবোয়েকে হোয়াইটওয়াশ ভারতের, যাদব-বিনি-মণীশরা গুড বুকে উঠলেন কলঙ্কের দিন মর্যাদা- জিম্বাবোয়েকে হোয়াইটওয়াশ ভারতের, যাদব-বিনি-মণীশরা গুড বুকে উঠলেন

দেশে যেদিন আইপিএল কেলেঙ্কারি নিয়ে মাথা হেঁট হল ক্রিকেটের, সেদিনই আফ্রিকার দরিদ্র এক দেশ উড়ল তেরেঙা পতাকা। প্রত্যাশামতই জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৩-০ জিতল ভারত। দ্বিতীয় সারির দল পাঠিয়েও হোয়াইটওয়াশ করল আজিঙ্কা রাহানের দল। প্রথম দুটো ওয়ানডে-র চেয়েও সহজেই তৃতীয় তথা শেষ ম্যাচে সহজ জয় এল। অবশ্য প্রথমে ব্যাট করে ৮২ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারানোর পর বেশ চাপেই পড়ে গিয়েছিল ভারত। রাহানে(১৫), বিজয়(১৩), উথাপ্পা(৩১), মনোজ(১০)-রা ফিরে গিয়েছেন প্যাভিলিয়নে। সেখান থেকে পঞ্চম উইকেটে ১৪৪ রান যোগ করে দলকে দারুণ জায়গায় পৌঁছে দেন কেদার যাদব-মণীশ পাণ্ডে।