বহিষ্কার নয়, জেঠমালানিকে শোকজ করল বিজেপি

সাংসদ রাম জেঠমালানিকে সাসপেন্ড করার পর বিজেপিতে এখন আশঙ্কার কালো মেঘ। জল্পনা চলছিল জেঠমালানিকে আজ হয়তো আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। এখনই তা না করে ৮৬ বছরের বর্ষীয়াণ নেতাকে শোকজ নোটিস পাঠানো হল। এদিকে আবার দলের বিহারের বলিউড তারকা নেতা শত্রুঘ্ন সিনহাকেও সাসপেন্ড করার কথাও শোনা যাচ্ছে। রামজেঠমালানির মত শত্রুঘ্নও বিজেপি সভাপতি পদ থেকে নিতিন গড়করির অপসারণের পক্ষে প্রকাশ্যে সওয়াল করেছিলেন। গড়করির বিরুদ্ধে তোপ দেগে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের রক্তচক্ষুর সামনে পড়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা।

গড়করি-হটাও-দলে এবার শত্রুঘ্ন সিনহাও

বিজেপি সভাপতি পদ থেকে নিতিন গড়করির অপসারণে আদর্শগতভাবে তিনি যে রাম জেঠমালানি, যশবন্ত সিনহার পক্ষে তা স্পষ্ট করে দিলেন বিজেপি নেতা শত্রুঘ্ন সুনহা। পাটনা সাহিবের বিজেপি সাংসদ আজ সাংবাদিকদের বলেন, জেঠমালানি এবং যশবন্ত সিনহার উত্থাপিত প্রশ্নগুলি গুরুত্ব দিয়ে বিচার করা উচিত। তিনি আরও বলেন, "দলের শীর্ষ পদে থাকা কোনও নেতাকে শুধু সৎ নয়, দৃশ্যত সৎ থাকতে হবে।" যশবন্ত সিনহা এবং রামজেঠমালানি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে শত্রুঘ্ন সিনহা বলেন, "এঁরা দুজনেই প্রধানমন্ত্রী পদে যোগ্য প্রার্থী। তবে এই মুহূর্তে লালকৃষ্ণ আডবাণীই যোগ্যতম প্রধানমন্ত্রী পদের দাবিদার।"