মৃৎশিল্প আজ ফের মানুষের দরবারে মৃৎশিল্প আজ ফের মানুষের দরবারে

প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া মৃত্শিল্প আজ ফের মানুষের দরবারে। রাজ্য সরকারের সহযোগিতায় মুর্শিদাবাদের কাঁঠালিয়ার পুতুল পেয়েছে তার নিজস্ব পরিচিতি। মাটির জিনিস তৈরির জন্য এখন আর হাতে চালানো যন্ত্রের ওপর ভরসা করতে হয় না। কাঁঠালিয়ার মৃৎশিল্পীরা সরকারের সহযোগিতায় পেয়েছে মেশিন। তাতে জিনিস সংখ্যা বাড়ে, সময় লাগে কম। বিশাল ওজনের চাকা হাতে ঘোরাতে যা পরিশ্রম করতে হত তাও আর করতে হয় না। এই সুবিধার ফলে তাদের শিল্প আবার নতুন করে পরিচতি পাচ্ছে। শুধু কী দেশ..বিদেশেও পরিচিতি পাচ্ছে কাঁঠালিয়ায় তৈরি মাটির ভাঁড়, পুতুল। হয়েছে নিজস্ব সমবায় সমিতি, স্বাস্থ্যবীমা।  খুশি মৃত্শিল্পীরা।

ট্রান্সফর্মারে কাজ করতে গিয়ে তড়িদাহত হলেন দুই বিদ্যুত্‍কর্মী ট্রান্সফর্মারে কাজ করতে গিয়ে তড়িদাহত হলেন দুই বিদ্যুত্‍কর্মী

ট্রান্সফর্মারে কাজ করতে গিয়ে তড়িদাহত হলেন দুই বিদ্যুত্‍কর্মী। বহরমপুরের স্বর্ণময়ী বাজারের ঘটনা। এগারো হাজার ভোল্টের ট্রান্সফর্মারে কাজ করতে উঠেছিলেন ভুবন শেখ ও সেলিম শেখ। দুজনেই বিদ্যুত্‍ দফতরের আওতাধী ঠিকা সংস্থার কর্মী। কাজ করার সময় শর্ট সার্কিটের জেরে হঠাত আগুন লেগে যায়। হাত-পা ঝলসে যায় একজনের। ট্রান্সফর্মার পোল থেকে মাটিতে পড়ে যান তিনি। অন্যজন গুরুতর জখম অবস্থায় বিদ্যুতের তারে ঝুলতে থাকেন। পরে দমকল এসে দুজনকে উদ্ধার করে। ঝুলতে থাকা কর্মীকে দড়ি বেঁধে মই দিয়ে নামিয়ে আনা হয়। দুজনই মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি।

হাসপাতাল কর্মীকে মারধরের জেরে ব্যাপক উত্তেজনা মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে হাসপাতাল কর্মীকে মারধরের জেরে ব্যাপক উত্তেজনা মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে

হাসপাতালে একের পর এক ঝামেলা, বিতর্ক চলছেই। শুধু শহর কলকাতাতেই নয়, ছড়িয়ে পড়ছে রাজ্যের জেলায় জেলায়। এবার হাসপাতালে বিবাদ মুর্শিদাবাদে। ওটিতে ঢুকতে বাধা দেওয়ায় হাসপাতাল কর্মীকে মারধরের জেরে রাতভর ব্যাপক উত্তেজনা মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওটিতে ঢুকতে গেলে এক রোগীর পরিবারের সদস্যদের বাধা দেন আক্রান্ত ডায়ালিসিস ইউনিটের কর্মী। এরপরেই তাঁকে আটকে বেধড়ক মারধর শুরু করেন রোগীর আত্মীয়রা।জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওই কর্মীকে। ঘটনার প্রতিবাদে ডায়ালিসিস ইউনিটের কাজ বন্ধ করে দেন সহকর্মীরা। ঘটনার জেরে ইতিমধ্যেই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন হাসপাতালের ডেপুটি সুপার।

যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য

যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল বহরমপুর থানার বিনপাড়ায়। সকালে বাপি শেখ নামে এক স্থানীয় যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার হয় মাঠ থেকে। ঘটনাস্থলে পৌছে দেহ উদ্ধার করেছে বহরমপুর থানার পুলিস। তবে কেন এই নৃশংসভাবে খুন তা নিয়ে এখনও কাটেনি ধোঁয়াশা।  পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে কাল সন্ধেয় মুক্তি পণের দাবিতে বাড়িতে ফোন আসে। এরপর থেকেই বাপি শেখ নিখোঁজ হয়ে যান বলেও জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।  তখনই পুলিসের দ্বারস্থও হয় নিখোঁজের পরিবার। তবে কি অপহরণের পর  মুক্তিপণ না পেয়েই খুন? তদন্তে নেমে এই সম্ভাবনাতেই জোর দিচ্ছে পুলিস।  

মুর্শিদাবাদকে কেন্দ্র করে রাজ্যে বাড়ছে জঙ্গি যোগাযোগ, বলছে গোয়েন্দা তথ্য, জারি হাই অ্যালার্ট মুর্শিদাবাদকে কেন্দ্র করে রাজ্যে বাড়ছে জঙ্গি যোগাযোগ, বলছে গোয়েন্দা তথ্য, জারি হাই অ্যালার্ট

মুর্শিদাবাদকে মূল পয়েন্ট করে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করছে জঙ্গিরা। তদন্তে এমনই তথ্য উঠে এসেছে গোয়েন্দাদের হাতে। তাই নাশকতা রুখতে জাতীয় সড়কে চলছে কড়া নজরদারি। ফরাক্কা থেকে রেজিনগর পর্যন্ত চৌত্রিশ নম্বর জাতীয় সড়ক জুড়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। সন্ধে সাতটার পর অনেক জায়গায় নাকাবন্দি। মুর্শিদাবাদের ঝাড়খণ্ড সীমানা ও বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় বিশেষ নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে। কড়া নিরাপত্তা রেল স্টেশনে। পনেরোই অগাস্টের আগে রাজ্যে নাশকতা চালাতে পারে সন্ত্রাসবাদীরা। এই মর্মে আগেই হাইঅ্যালার্ট পাঠিয়েছে কেন্দ্র। তারপরই রঘুনাথগঞ্জ থেকে প্রচুর বিস্ফোরক উদ্ধার হয়। তাই জেলা জুড়ে বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা। 

কুপ্রস্তাবে সাড়া না পাওয়ায় মহিলার জিভ কেটে নিল দুষ্কৃতীরা কুপ্রস্তাবে সাড়া না পাওয়ায় মহিলার জিভ কেটে নিল দুষ্কৃতীরা

দুষ্কৃতী তাণ্ডব চলছেই। কুপ্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় এক মহিলার জিভ কেটে নিল দুষ্কৃতীরা। মুর্শিদাবাদের জলঙ্গির হুকাহারার ঘটনা। গতকাল বিকেলে মাঠে গরু চড়াচ্ছিলেন ওই মহিলা। অভিযোগ সে সময় দুষ্কৃতীরা পিছন থেকে ধারাল অস্ত্র নিয়ে তাঁকে আঘাত করে। তারপর দুষ্কৃতীরা ওই মহিলার জিভ কেটে নেয়। অচৈতন্য অবস্থায় মাঠ থেকে উদ্ধার করে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছে। ঠিক কী কারণে এই হামলা তা এখনও স্পষ্ট নয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে জলঙ্গি থানার পুলিস। এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।