পৃথিবীর একমাত্র দেশের জাতীয় পতাকা যেখানে, তাদের ম্যাপ আঁকা থাকে!

পৃথিবীর একমাত্র দেশের জাতীয় পতাকা যেখানে, তাদের ম্যাপ আঁকা থাকে!

আমাদের ভারতের জাতীয় পতাকা বারবার তো দেখেন। সত্যিই তেরঙা বড্ড সুন্দর। বিশ্বের অনেক দেশের জাতীয় পতাকাই তো দেখেছেন। কিন্তু ভারতের জাতীয় পতাকা সবার মাঝেও কী সুন্দর দেখতে লাগে না? কত গর্ব আমাদের ওই জাতীয় পতাকা নিয়ে। সেটাই তো ঠিক। প্রত্যেকটা দেশই তাদের জাতীয় পতাকা নিয়ে গর্ব করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা তোলার সমর্থন ধাওয়ানের বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা তোলার সমর্থন ধাওয়ানের

জেএনইউ-এর ঘটনায় দেশদ্রোহীতার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছে ছাত্র সংসদের সভাপতি কানহাইয়া কুমার। পড়ুয়াদের মনে দেশের প্রতি প্রেম জাগাতে দেশের ৪৬টি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সবগুলিতে ২০৭ ফুট উচ্চতার জাতীয় পতাকা তোলার সিদ্ধান্ত সমর্থন করলেন ভারতীয় ক্রিকেটার শিখর ধাওয়ান।

জাতীয় পতাকায় অটোগ্রাফ দিয়ে বিতর্কে মোদী জাতীয় পতাকায় অটোগ্রাফ দিয়ে বিতর্কে মোদী

জাতীয় পতাকায় অটোগ্রাফ দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন প্রধানমন্ত্রী। নিউ ইয়র্কে শিল্পোদ্যোগীদের সঙ্গে নৈশভোজের সময়েই বিতর্কিত কাজটি করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ওই নৈশভোজের শেফ, বিকাশ খান্না প্রধানমন্ত্রীকে তিরঙ্গা পতাকায় স্বাক্ষর করতে অনুরোধ করেন। প্রধানমন্ত্রীর সই করা জাতীয় পতাকা তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্টকে উপহার দেবেন বলেও জানান বিকাশ খান্না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী সই করার পরেই বিধিভঙ্গের আশঙ্কায় পতাকাটি ওই শেফের থেকে নিয়ে নেন ভারতীয় কূটনীতিকরা। তবে তাতে বিতর্কে ধামাচাপা দেওয়া যায়নি। অটোগ্রাফ কাণ্ডে প্রধানমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করেছে কংগ্রেস। 

জাতীয় পতাকার সঙ্গে একই দণ্ডে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা

কোথাও ঠাঁই হল দলীয় পতাকার সঙ্গে একই দণ্ডে। কোথাও জুটল না দণ্ডটুকুও। চরম অবহেলায় দীর্ঘক্ষণ পড়ে রইল রাস্তার ধারে। ৬৪তম প্রজাতন্ত্র দিবসে বিভিন্ন জায়গায় অবমাননার সাক্ষী রইল জাতীয় পতাকা।

কিশলয়ে উল্টো করে ছাপা হল জাতীয় পতাকা, নিন্দা সব মহলে

উল্টো করে ছাপা হল জাতীয় পতাকা। যেখানে সেখানে নয়, ছাপা হয়েছে সরকারি পাঠ্যবইয়ে। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ এবছর ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে হিন্দি অনুবাদের যে কিশলয় তুলে দিয়েছে তাতেই উল্টো করে ছাপা রয়েছে জাতীয় পতাকা। প্রশ্ন উঠেছে সরকারি বইয়ে কার দোষে এই মারাত্মক ভুল হল। কার গাফিলতিতে জাতীয় পতাকার এমন অবমাননা তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এ ব্যাপারে সরকারি তরফে কোনও ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।