ইস্তফাপত্র কি প্রত্যাহার করবেন নীতীশ? আজই হয়ত মিলবে উত্তর

ইস্তফাপত্র কি প্রত্যাহার করে নেবেন নীতীশকুমার? এই প্রশ্নকে সামনে রেখেই রবিবার দিনভর উত্তপ্ত রইল বিহারের রাজনীতি। যদিও দিনের শেষে এই প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। পদত্যাগের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য আজ পর্যন্ত সময় নিয়েছেন নীতীশ কুমার। আজ ফের জেডিইউ পরিষদীয় দলের বৈঠক। অন্যদিকে রবিবার রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছে বিহার বিজেপির প্রতিনিধি দল।ক্রমশই জটিল হয়ে উঠছে বিহারের রাজনৈতিক পরিস্থিতি। লোকসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির পরেই শনিবার মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন নীতীশ কুমার। তারপর থেকেই উত্তাল হয়ে ওঠে বিহারের রাজনীতি। রবিবার সকালে রটে যায় পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন শরদ যাদব। খবর ছড়াতেই রাস্তায় নেমে পড়েন জেডিইউ সমর্থকরা। শুরু হয়ে যায় বিক্ষোভ। নীতীশ কুমারকেই মুখ্যমন্ত্রী থাকতে হবে বলে দাবি তোলেন তাঁরা। নতুন দলনেতা বাছতে বিকেলে বসে জেডিইউ পরিষদীয় দলের বৈঠক। এই বৈঠকেও দলীয় বিধায়করা দাবি তোলেন, কোনও নেতা বদল নয়, মুখ্যমন্ত্রী থাকুন নীতীশকুমার। এই দাবির মুখে খানিকটা পিছু হঠেন নীতীশও। সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য সোমবার পর্যন্ত সময় নিয়েছেন তিনি।

মধ্যমগ্রামকাণ্ডে রাজ্যকে অস্বস্তিতে ফেলে নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে চাইলেন নীতীশ কুমার

মধ্যমগ্রামকাণ্ডে আরও অস্বস্তি বাড়ল রাজ্য সরকারের। বিহার সরকার সাহায্যের আশ্বাস দেওয়ার পর, এবার নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। আগামিকালই বিহার যাচ্ছেন মধ্যমগ্রামকাণ্ডে নির্যাতিতার পরিবার। মেয়ের ওপর অমানবিক অত্যাচার। বাড়ি বদল। রাতের অন্ধকারে শুধু দুষ্কৃতীদেরই নয়, হুমকি দিয়েছে পুলিসও। শেষ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে নির্যাতিতার। অভিযোগ দুষ্কৃতীরাই বাড়িতে ঢুকে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। কিন্তু এরপরেও পাশে দাঁড়ায়নি পুলিস, পাশে দাঁড়ায়নি সরকার।