দিল্লিতে একঘরে মমতা, ক্ষোভ ফেসবুকে

সংসদে তৃণমূলের আনা অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ হয়ে যাওয়ার পরও পিছু হঠতে নারাজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এজন্য ফের বিরোধীদেরই কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন তিনি। এনিয়ে আজ ফেসবুকে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তিনি। ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, "আমরা আমাদের সীমাবদ্ধতা জানি। সীমাবদ্ধতার কারণেই অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ হয়ে গেছে। আমরা ভেবে ছিলাম, যাঁরা খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগের বিরুদ্ধে সোচ্চার, তাঁদের পাশে পাবো। কিন্তু নানা অছিলায় তাঁরা পাশে দাঁড়ালেন না। কারা সরকারকে বাঁচালেন তা পরিষ্কার।"

অনাস্থায় সমর্থন নিয়ে এখনও দ্বিধায় বিজেপি

কেন্দ্রে সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনতে মরিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন নিয়ে এখনও দ্বিধায় বিজেপি। মঙ্গলবার দিল্লিতে বিজেপি-র সংসদীয় কমিটির বৈঠকে অনাস্থা ইস্যু নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত বেরিয়ে এল না। বৈঠকের পর বিজেপি নেতারা কোনও সিদ্ধান্তই জানালেন না। দলের একটা বড় অংশ মনে করছে সংখ্যার পরিষ্কার একটা অভাব রয়েছে। এই সময় অনাস্থা আনলে পরোক্ষে তাতে কংগ্রেসেরই সুবিধা হবে। তবে বিজেপির আরও একটা মহল মনে করছে মমতাকে খুশি করার এটাই সেরা সময়, তাছাড়া এতেও নিজেদের শক্তিও বুঝে নেওয়া যাবে।

বামেরা অনাস্থা আনলে সমর্থন করবে তৃণমূল, মহাকরণে জানালেন মমতা

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বাম দলগুলি অনাস্থা প্রস্তাব আনলে তাকে সমর্থন জানতে পারে তৃণমূল কংগ্রেস। শর্ত একটাই, প্রস্তাব আনার পর কোনও ভাবেই তা প্রত্যাহার করা চলবে না। আজ মহাকরণে দাঁড়িয়ে এই কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। প্রয়োজনে আলিমুদ্দিনে গিয়ে বিমান বসুর সঙ্গে কথা বলতেও রাজি আছেন বলে জানালেন তৃণমূল নেত্রী। প্রত্যাশিত ভাবেই আজকের সাংবাদিক সম্মেলনে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। আরও একবার কেন্দ্রকে `মাইনরিটি সরকার` বলেন তিনি। খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগের প্রশ্নে বিরোধিতা করা ছাড়াও এলপিজি সহ সামগ্রিক মূল্যবৃদ্ধির ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার লুট চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। সেই কারণেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজনৈতিক `ইগো` ত্যাগ করে ঐক্যবদ্ধ ভাবে লড়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অনাস্থায় সায় নেই: প্রকাশ কারাট

খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগে বিরোধিতা করলেও আগামী শীতকালীন অধিবেশনে তৃণমূল কংগ্রেসের আনা অনাস্থা প্রস্তাব সমর্থন করবে না সিপিআইএম। আজ দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে একথা স্পষ্ট করে দেন দলের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাট। সংসদে আলোচনার মাধ্যমেই এফডিআই প্রশ্নে সরকারের বিরোধিতা করবে তাঁর। এদিন সাংবাদিকদের প্রকাশ কারাট বলেন সরকার ফেলে দেওয়ার পর্যাপ্ত সংখ্যা যোগাড় করা যাবে না। অনাস্থা প্রস্তাব আনলে সরকার টিঁকে যাবে। এর ফলে পরোক্ষে হাত শক্ত হবে সরকারেরই। উল্টে সরকারের দোষ ত্রুটি ঢাকা পরে যাবে।

অনাস্থা আনছেন মমতা, সমর্থন চাইছেন বামেদের

"দেশে লুঠ চলছে, ঝুট চলছে।"এই কথা বলে তৃণমূল সুপ্রিমো জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রে সরকারের বিরুদ্ধে তাঁর দল অনাস্থা প্রস্তাব আনতে চলেছে। পেনশন, এফডিআই আইনের প্রতিবাদে সংসদে এই অনাস্থা আনা হবে বলে শনিবার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একথা জানিয়েছেন। সংসদে আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে বাম দলগুলির কাছেও অনাস্থা প্রস্তাব আনার আবেদন জানিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।