পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে ফের বিতর্কে সরকার, পিপি সর্বাণী রায়ের নিশানায় মুখ্যমন্ত্রী

পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে ফের বিতর্কে সরকার, পিপি সর্বাণী রায়ের নিশানায় মুখ্যমন্ত্রী

পার্ক স্ট্রিট গণধর্ষণে তিন অপরাধীর দশ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে নগর দায়রা আদালত। রায়ে খুশি নয় নির্যাতিতার পরিবার। তিন অপরাধীর কঠোরতর শাস্তির দাবিতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছে তারা। রায়ের কপি হাতে পেলেই আবেদন জানানো হবে হাইকোর্টে। জানানো হয়েছে নির্যাতিতার পরিবারের তরফে। এদিকে, সাজাপ্রাপ্ত সুমিত বাজাজের পরিবারের তরফেও জানানো হয়েছে, রায়ের কপি খুঁটিয়ে পড়ে তাঁরাও হাইকোর্টে আবেদন জানাবেন।

কলকাতার উপকণ্ঠে ফের গণধর্ষণ, এবার মহেশতলায় কলকাতার উপকণ্ঠে ফের গণধর্ষণ, এবার মহেশতলায়

মহেশতলা: কলকাতার উপকণ্ঠে ফের গণধর্ষণ।

পার্ক স্ট্রিটে ফের শ্লীলতাহানি, প্রশ্নের মুখে শহরের নিরাপত্তা

পার্ক স্ট্রিটে ফের শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল। শনিবার রাত একটা নাগাদ পার্ক স্ট্রিটের একটি রেস্তোরাঁর বাইরে বন্ধুর জন্য অপেক্ষা করছিলেন এক মহিলা। অভিযোগ সে সময়ই ওই মহিলার পরিচিত এক ব্যক্তি তাঁকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এই ঘটনায় পার্ক স্ট্রিট থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

কমল হাইকোর্টে আদালতের সংখ্যা, বিলম্বিত হওয়ার পথে পার্ক স্ট্রিট মামলা

হাইকোর্টের নির্দেশে কলকাতায় ফৌজদারি মামলার আদালতের সংখ্যা নয় থেকে কমে তিনে এসে দাঁড়াল। এর ফলে বিচারপ্রক্রিয়া আরও দীর্ঘ হবে বলে আশঙ্কা আইনজীবীদেরই একাংশের। প্রথম দিনেই যার প্রভাব পড়েছে পার্ক স্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ড মামলার শুনানিতে।   

পার্ক স্ট্রিট গণধর্ষণ কাণ্ডের টাইমলাইন

অবশেষে ঘটনার এক বছর ১৪ দিন পর পার্ক স্ট্রিট মামলার চার্জগঠন হল। এই এক বছরে বহু বিতর্ক, বহু অভিযোগ উঠেছে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে। মূল অভিযুক্ত এখনও ধরা পড়েনি। অবশেষে সেই গুরুত্বপূর্ণ মামলার চার্জ গঠনকে কেন্দ্র করে কৌতূহল পুলিসমহলেও।

ধৃতদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের চার্জ, এখনও অধরা কাদের

ঘটনার এক বছর ১৪ দিন পর অবশেষে আজ পার্কস্ট্রিট গণধর্ষণকাণ্ডের চার্জ গঠন হল। ধৃতদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ, শারীরিক নিগ্রহ, ষড়যন্ত্র এবং অশ্লীল আচরণের অভিযোগ আনা হয়েছে। বিচার প্রক্রিয়া দ্রুত শেষ করার জন্য আগামী আগামী ২ মার্চ এই মামলার শুনানির দিন ধার্য করেছেন বিচারক মধুছন্দা ঘোষ। নগর ও দায়রা আদালতে আজ চার্জ গঠন হয়েছে।

পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডের প্রতিবাদ মিছিলে বাধা, অবস্থানে বুদ্ধিজীবীরা

পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে নিষ্ক্রিয় প্রশাসন। প্রধান অভিযুক্ত এখনও অধরা। পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডের বর্ষপূর্তিতে অবিলম্বে অভিযুক্ত সহ সব অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে এই দাবি নিয়ে গান্ধী মূর্তি থেকে পার্ক স্ট্রিট থানা পর্যন্ত মিছিলে পা মিলিয়েছিলেন বুদ্ধিজীবীরা। কিড স্ট্রিটে পৌঁছলে সেই মিছিল আটকে দেয় পুলিশ।

পার্ক স্ট্রিট কাণ্ড: বছর ঘুরেও মিলছে না আলোকবর্তিকার সন্ধান

পার্ক স্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ড। ঘটনার ভয়াবহতা তো ছিলই। পাশাপাশি রাজনৈতিক চাপানউতোর, একাধিক বিতর্ক রাতারাতি প্রচারের আলোয় ঠেলে দিয়েছিল এক সাধারণ মহিলাকে। সাজানো ঘটনা, ক্লায়েন্টের সঙ্গে গোলমাল। এমন হাজারো বক্রোক্তিতে বারবার লাঞ্জিত হয়েছেন। তবু হাল ছাড়েননি। কিন্তু এক বছর ধরে চূড়ান্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে যিনি একা অসম লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন, আজ কেমন আছেন তিনি?

পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে ধৃতদের জামিনের আবেদন খারিজ

পার্কস্ট্রিস্ট কাণ্ডে দুই অভিযুক্তের জামিনের আবেদন নাকচ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট। দুই অভিযুক্ত সুমিত বাজাজ ও নাসের খানের জামিনের আবেদন নাকচ করে সবোর্চ্চ আদালত জানিয়ে দিয়েছে, এই ঘটনার দুই অভিযুক্ত এখনও পলাতক,এই অবস্থায় বাকিদের জামিন দেওয়া হবে না। অভিযুক্তদের জামিনের আবেদনের সঙ্গেই এদিন এই সংক্রান্ত মামলাটিও খারিজ করে দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।

`পার্ক স্ট্রিটে ধর্ষণ হয়নি`, কুরুচিকর মন্তব্য কাকলির

রাজনীতির কারবারিদের সৌজন্যের সীমা লঙ্ঘন নিয়ে বিতর্ক যখন তুঙ্গে, ঠিক তখনই ফের কুরুচিকর মন্তব্যের অভূতপূর্ব নজির গড়লেন তৃণমূলও সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার। পার্ক স্ট্রিটে সেদিনের ধর্ষণের শিকারকে সরাসরি ওই দিন পার্ক স্ট্রিটে কোনও ধর্ষণের ঘটনাই ঘটেনি। যা হয়েছে, তা হল মহিলার সঙ্গে তার খদ্দেরের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি। আজ সিএনএন আইবিএন-কে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন, "...পার্ক স্ট্রিটের ঘটনা সম্পূর্ণ আলাদা। এটি ধর্ষণের কোনও ঘটনাই নয়। ওই মহিলা (ধর্ষিতা) এবং তাঁর খদ্দেরের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির জের।"

পার্কস্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ড : টিআই প্যারেডে সনাক্ত অভিযুক্তরা

পার্কস্ট্রিট কাণ্ডে টেস্ট আইডেন্টিফিকেশন বা টি আই প্যারেডে ৩ অভিযুক্তকেই সনাক্ত করলেন ধর্ষিতা মহিলা। বুধবার টিআই প্যারেডে ৩ অভিযুক্তের সনাক্তকরণের পর এবার পার্কস্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ডে তদন্তের জাল গোটাতে ব্যস্ত কলকাতা পুলিসের গোয়েন্দারা।

পার্ক স্ট্রিটে ধর্ষণই, কি বলছেন বিশিষ্টজনেরা

অবশেষে পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডের জট খুলে পুলিস জানাল ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে ধর্ষণই হয়েছিলেন মহিলা। পার্কস্ট্রিটের ঘটনায় মহিলার অভিযোগকে মিথ্যা বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। নগরপালও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। কিন্তু নির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে যুগ্ম কমিশানার দময়ন্তী সেন দাবি করলেন মহিলার ধর্ষণের অভিযোগ সত্যি। ধর্ষণকাণ্ডে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। আরও দুজনের খোঁজ চলছে। ঘটনাটি সম্পর্কে কি প্রতিক্রিয়া এই শহরের বিশিষ্টজনদের?