চিড়েন, ভারতের একমাত্র মহিলা কমার্শিয়াল প্যারাগ্লাইডিং পাইলট

চিড়েন, ভারতের একমাত্র মহিলা কমার্শিয়াল প্যারাগ্লাইডিং পাইলট

  "কুছ করনে কি হো আস..আশায়ে..."। উইমেন পাওয়ার। জয়জয়কার চারদিকে। শুধু চাই মনের জোর, প্রবল ইচ্ছেশক্তি আর লক্ষ্যে পৌছতে কঠোর পরিশ্রম। তাহলেই, হাতের মুঠোয় দুনিয়া। যে ফর্মুলায় কামাল করে দেখিয়েছেন,  সিকিমের অখ্যাত গ্রামের মেয়ে চিড়েন ভুটিয়া। 

স্বপ্ন থেকে বাস্তবের মাটি ছুঁয়ে ইতিহাসের পাতায় আভানি, মোহনা ও ভাবনা স্বপ্ন থেকে বাস্তবের মাটি ছুঁয়ে ইতিহাসের পাতায় আভানি, মোহনা ও ভাবনা

লক্ষণরেখা পার হওয়ার রাস্তাটা সহজ ছিল না। প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর ও বাঙালি বায়ুসেনা-প্রধান অরূপ রাহা ছক ভাঙার সিদ্ধান্ত নেন। যুদ্ধবিমানের ককপিটও খুলে দেওয়া হয় মহিলাদের জন্য। শেষ ধাপে ছজন মহিলা ক্যাডেট দৌড়ে ছিলেন। তাঁদের মধ্যে ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নিলেন আভানি, মোহনা ও ভাবনা।

পাখির ধাক্কায় বিমানে গর্ত! পাখির ধাক্কায় বিমানে গর্ত!

আবার পাখির সঙ্গে সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্থ হল বিমান। পাখির ধাক্কায় গর্ত হয়ে গেল বিমানের সামনের অংশে। তবে তাতে কোনও প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেনি। বিমানের সমস্ত মানুষই নিরাপদে ছিলেন।

বিশ্বের প্রথম উড়ন্ত কুকুর বিশ্বের প্রথম উড়ন্ত কুকুর

আকাশে ওড়ে এমন একটা জিনিসের নাম বলুন তো? ইনস্ট্যান্ট জবাব পাখি, উড়োজাহাজ, বেলুন, প্যারাশুট আরও কত কী। এমনকি মানুষও। ডানা মেলে না উড়লেও প্লেনে চড়ে ওড়ে মানুষ। কিন্তু এসব চেনা নামের বাইরের একটি আবাক করা নাম এবার বলা যাক। কুকুর। আকাশে এবার নিজে নিজেই উড়বে কুকুর।

মাঝ আকাশে জ্ঞান হারালেন পাইলট, কপ্টার চালালেন অনভিজ্ঞ মহিলা মাঝ আকাশে জ্ঞান হারালেন পাইলট, কপ্টার চালালেন অনভিজ্ঞ মহিলা

মাঝপথে হঠাত্‍ই জ্ঞান হারালেন পাইলট। ছোট কপ্টারটা হঠাত্‍ই নড়ে উঠল। এবার উপায়! কেউ হাল না ধরলে কপ্টার গোত্তা খেয়ে মাটিতে আছাড় খাবে। তাহলে উপায়? সাহস করে এগিয়ে এলেন এক স্প্যানিশ মহিলা। তিনি হলেন জ্ঞান হারিয়ে ফেলা পাইলটের স্ত্রী। পাইলটের স্ত্রী হলেও প্লেন বা কপ্টার চালানোর অ, আ, ক, খ তো দূরে থাকা এই বিষয়ে সামান্য জ্ঞানও নেই। মহিলা বসলেন পাইলটের আসনে। প্রথমেই যোগাযোগ করলেন এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলারের সঙ্গে। এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলাররা অভয় দিলেন মহিলাকে। প্লেনের বিষয়ে কোনও জ্ঞান-অভিজ্ঞতা নেই, শুধু এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলার-দের পরামর্শ শুনে প্লেনকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকলেন। প্লেন চলতে থাকল একেবারে মসৃণভাবে।

কোথায় গেল আস্ত একটা বিমান? ১০ দিন পরও নেই খোঁজ

দশদিন পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু, এখনও কোনও হদিশই মেলেনি মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমানটির। তল্লাসিতে কোথাও কোনও খামতি রাখছে না মালয়েশিয়া। আর এরমধ্যেই সামনে এসেছে বিমানের কো-পাইলটের কাছ থেকে পাওয়া শেষ বার্তাটি।

পাঁচ বছর বয়সে পাইলট হয়ে গিনিসবুকে চিনের দুষ্টু ছেলে

বেজিং ওয়াল্ডলাইফ পার্কের ওপর দিয়ে উড়ে গেল প্লেনটা। গত ৩১ অগাস্ট ৩৫ মিনিট ধরে আকাশে চক্কর কাটল সেটা। অবাক করা কথাটা হল পাইলটের বয়সে। সেই পাইলটের বয়স মাত্র ৫ বছর। যে বয়েসে খেলনা প্লেনও অনেকেই চালাতে পারে না। সেই ৫ বছর বয়েসেই আস্ত একটা প্লেন দক্ষতার সঙ্গে চালাল হি আইদে, ডাক নাম দুদু (বাংলায় যাকে দুষ্টু বলে)। দুদুই এখন বিশ্বের কনিষ্ঠতম পাইলট। কদিনের মধ্যেই গিনিস বুক ওয়ার্ল্ডে উঠতে চলেছে দুদুর নাম।

প্রাণ বাঁচাতে প্রাণ নিতেও প্রস্তুত যুবরাজ হ্যারি

প্রাণ বাঁচাতে হলে প্রাণ নিতেও হবে। আফগান সীমান্ত থেকে ফেরার পথে ফেরার পথে এই কথাই বললেন যুদ্ধরত যুবরাজ হ্যারি। গত সোমবারই শেষ হয়েছে তাঁর ২০ সপ্তাহের দ্বিতীয় পর্যায়ের কর্মসময়। আফগানিস্তানে ব্রিটিশ ঘাঁটি ক্যাম্প ব্যাস্টিওনে অ্যাপাচে কো-পাইলট হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন প্রিন্স হ্যারি।

বঞ্চণার বিরুদ্ধে এবার অনশনে এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটরা

আরও অস্বস্তিতে এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ। তাদের বিরুদ্ধে শোষণ এবং বঞ্চণার অভিযোগ তুলে এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য অনশনে বসলেন পাইলটদের একাংশ। ইন্ডিয়ান পাইলটস গিল্ডের তরফে জানানো হয়েছে, রবিবার থেকে দিল্লির যন্তর মন্তরে তাদের ১১ জন সদস্য অনশনে বসেছেন।

নবম দিনেও অচলাবস্থা জারি এয়ার ইন্ডিয়ায়

নবম দিনে পড়ল এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটদের ধর্মঘট। বুধবার সকালে দিল্লি ও মুম্বই বিমানবন্দর থেকে ৯টি আন্তর্জাতিক বিমান বাতিল হয়ে যায়। মঙ্গলবারও পাইলটদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করার আর্জি জানিয়েছিলেন অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রী অজিত সিং।

ষষ্ঠ দিনেও জারি এয়ার ইন্ডিয়ার জটিলতা

ষষ্ঠ দিনেও কাটল না এয়ার ইন্ডিয়ার জটিলতা। পাইলটরা নরম হলেও ধর্মঘট চলছেই। ফলে রবিবারও হয়রান হচ্ছেন যাত্রীরা। শেষ পাওয়া খবরে এদিন অন্তত ২২টি উড়ান বাতিল করেছে বিমানসংস্থাটি। ওদিকে এয়ার ইন্ডিয়ার ১১ জন পাইলটের লাইসেন্স বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু করেছে ডিজিসিএ।

বিপজ্জনক প্রতিবাদ

ঝাঁকুনি দিয়ে বিমান অবতরণ। আর তারপরই মাইক্রোফোনে ভেসে এল ক্যাপ্টেনের গলা। যাত্রীদের উদ্দেশ্যে ক্ষমা চেয়ে জানানো হল তাঁদের দুরবস্থার কথা। বেতন নিয়ে সংস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে আপাতত এই ধরনের বিপজ্জনক পন্থা নিয়েছেন কিংফিশার এয়ারলাইন্সের বেশ কিছু পাইলট।