পিটিয়ে মারার পর মুখে বিষ ঢেলে খুন গৃহবধূ পিটিয়ে মারার পর মুখে বিষ ঢেলে খুন গৃহবধূ

গৃহবধূকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে শ্বশুর ও শাশুড়িকে বেধড়ক মারধোর করল গ্রামবাসীরা।  এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বাসন্তী থানার শিবগঞ্জে। অভিযোগ, গতকাল রাতে গৃহবধূ জ্যোত্স্না মিস্ত্রিকে পিটিয়ে মারে তাঁর শ্বশুর ও শাশুড়ি। মৃত্যুর পর মুখে বিষ ঢেলে দেহটি বাসন্তী হাসপাতালে নিয়ে যায় স্বামী বিনয় মিস্ত্রি। সন্দেহ হওয়ায় পুলিসে খবর দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বেগতিক দেখে পালিয়ে যায় বিনয়। আজ সকালে শ্বশুর ও শাশুড়ি পালানোর চেষ্টা করলে ধরে ফেলেন গ্রামবাসীরা। এরপর বেধড়ক মারধোর করা হয় তাঁদের। মাথা কামিয়ে দেওয়া হয় শ্বশুর বীরেন মিস্ত্রির। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ঢিল ছোড়া দূরত্বে থানা থাকলেও বারবার খবর দেওয়া সত্ত্বেও এলাকায় আসেনি পুলিস। দশ বছর আগে জ্যোত্স্নার সঙ্গে বিয়ে হয় বিনয়ের। বিয়ের পর থেকেই জ্যোত্স্নার ওপর নির্যাতন শুরু করে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। পাড়ার লোকেদের সঙ্গে মিশতে দেওয়া হত না। বাড়ির বাইরেও বেরোতে দেওয়া হত না তাঁকে। এর আগেও বিনয় বিয়ে করেছিল। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির নির্যাতনে অতীষ্ঠ হয়ে পালিয়ে যায় সে।

গাড়ি দুর্ঘটনা বিজন সেতুতে, নিহত ১ গাড়ি দুর্ঘটনা বিজন সেতুতে, নিহত ১

রাতের কলকাতায় পথ দুর্ঘটনা। বিজন সেতু থেকে নামার পথে একটি ডিজায়ার গাড়িকে ধাক্কা মারে একটি স্করপিও। ডিজায়ার গাড়িটি ধাক্কা মারে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্যাক্সিকে। গুরুতর আহত হয় রাস্তার পাশে শুয়ে থাকা এক ভবঘুরে। তাঁকে ভর্তি করা হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। অভিযোগ, বেপরোয়াভাবে স্করপিও গাড়িটি চালাচ্ছিলেন চালক। ফের ঘটনাস্থলে আসলে স্থানীয় বাসিন্দারা আটক করে স্করপিওটিকে। গাড়ির চালকের নামে গড়িয়াহাট থানায় ডায়রি করে স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপর পুলিস আসলে স্থানীয় বাসিন্দারাই স্করপিওর চালককে পুলিসের হাতে তুলে দেন। গাড়িটি থেকে উদ্ধার হয়েছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বেশ কয়েকটি ব্যাজ।

ভদ্রেশ্বরের তারকেশ্বরপল্লীতে ডাকাতি, ধৃত ১ ভদ্রেশ্বরের তারকেশ্বরপল্লীতে ডাকাতি, ধৃত ১

বাড়িতে ডাকাত। মায়ের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে রেখেছে দুষ্কৃতীরা। জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ডাকাতদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লেন রেলকর্মী মৃণ্ময় রায়। শুরু হল ধস্তাধস্তি। দুষ্কৃতীদের রিভলবার থেকে ছোঁড়া গুলি কানের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায় মৃন্ময় বাবুর। দুষ্কৃতীর হাতের রিভলবার কেড়ে নেন তিনি। বেগতিক দেখে চম্পট দেয় দুই দুষ্কৃতী। স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে ধরা পড়ে যায় মুন্না রবি দাস এক দুষ্কৃতীকে। না, এ কোনও সিনেমার স্ক্রিপ্ট নয়, এমনটাই ঘটেছে হুগলির ভদ্রেশ্বর তারকেশ্বরপল্লীতে। স্থানীয় বাসিন্দা মৃণ্ময় রায়ের বাড়িতে। ধৃত ডাকাতকে চুচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মৃন্ময় বাবুর সাহসে বিস্মিত ভদ্রেশ্বর থানার পুলিস।

পুলিস ফাঁড়িতেই চলছে কচিকাচাদের নিয়ে প্রাথমিক স্কুল! পুলিস ফাঁড়িতেই চলছে কচিকাচাদের নিয়ে প্রাথমিক স্কুল!

পুলিস ফাঁড়িতেই চলছে কচিকাচাদের নিয়ে প্রাথমিক স্কুল। ক্লাস নিচ্ছেন পুলিসকর্মীরাই। এই বিরল দৃশ্য দেখা গেছে শিলিগুড়ির প্রত্যন্ত গ্রাম মিলনপল্লীর পুলিস ফাঁড়িতে। এলাকায় কোনও স্কুল না থাকায় শিশুদের পড়াশোনার প্রাথমিক দায়িত্ব সামলাচ্ছেন  উর্দিধারীরাই। শিলিগুড়ি শহর থেকে ছত্রিশ কিলোমিটার দূরে তিস্তা নদীর ধারে প্রত্যন্ত গ্রাম মিলনপল্লী। পাশেই রয়েছে আরও তিনটি গ্রাম গাজলডোবা, দুধিয়া এবং চাকীমারী। তিনটি গ্রামে প্রায় দশ হাজার মানুষের বসবাস । গ্রামের দিন আনা দিন খাওয়া বেশিরভাগ মানুষের জীবিকা কৃষিকাজ।  গ্রামে ছিলনা কোনও স্কুল। শিশুদের ভবিষ্যত নিয়ে তেমন কেউ মাথাও ঘামাননি।  দুহাজার তেরো সালে মিলনপল্লী পুলিস ফাঁড়িতেই শুরু হয় নবদিশা পাঠ প্রাথমিক বিদ্যালয়। বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিশুদের স্কুলে পাঠানোর আর্জি জানান পুলিসকর্মীরাই।

আমেরিকার অরল্যান্ডে নাইট ক্লাবে গুলি চালানোর ঘটনায় মৃত্যু দুজনের আমেরিকার অরল্যান্ডে নাইট ক্লাবে গুলি চালানোর ঘটনায় মৃত্যু দুজনের

আমেরিকার অরল্যান্ডে শহরে একটি নাইট ক্লাবে গুলি চালানোর ঘটনায় মৃত্যু হল দুজনের। জখম কমপক্ষে দশজন। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। পুলিস জানিয়েছে, গভীর রাতে গ্লিটজ আল্ট্রা লাউঞ্জ নামে ওই নাইট ক্লাবে হঠাতই গুলি চলে। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় একজনের। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মারা যান দ্বিতীয়জন। গুলি চালানোর ঘটনায় মোট তিনজন জড়িত বলে দাবি পুলিসের। ক্লাব কর্তৃপক্ষের অনুরোধে সেখানে অতিরিক্ত নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করেছিল পুলিস। তারপরেও কী করে ক্লাবের মধ্যে অস্ত্র ঢুকল, খতিয়ে দেখতে শুরু হয়েছে তদন্ত। শহরে এখনও আতঙ্কের ছায়া।

পাচারকারী সন্দেহে এক যুবককে বেধড়ক পেটাল এলাকার লোকজন পাচারকারী সন্দেহে এক যুবককে বেধড়ক পেটাল এলাকার লোকজন

পাচারকারী সন্দেহে এক যুবককে বেধড়ক পেটাল এলাকার লোকজন। দেবাশিস চৌধুরী নামের ওই ব্যক্তির বাড়ি ইসলামপুরে। জানা যায়, ওই এলাকারই এক তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিয়ে যায় দেবাশিস চৌধুরী। তরুণী এখন মুম্বইয়ে রয়েছেন। মুম্বই থেকে ফোন করে ওই তরুণী বাড়িতে গোটা ঘটনা জানান। মুম্বই থেকে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়ার কথাও বলেন তরুণী। ইতিমধ্যেই ওই যুবক গ্রামের আরও এক তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়। গোটা ঘটনা জানাজানি হতেই, এলাকায় শোরগোল পড়ে যায়। বর্তমানে যে তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দেবাশিস, তার মাধ্যমে ডেকে পাঠানো হয়। দেবাশিসকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে এলাকার লোকজন। শুরু হয় বেধড়ক মারধর। ঘণ্টাখানেক পর বহরমপুর থানার পুলিস এসে যুবককে গ্রেফতার করে।

সোনারপুরের হরহরিতলায় বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হল প্রৌঢ়ার দেহ সোনারপুরের হরহরিতলায় বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হল প্রৌঢ়ার দেহ

সোনারপুরের হরহরিতলায় বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হল প্রৌঢ়ার দেহ। মৃতা দীপান্বিতা মুখোপাধ্যায় নেতাজিনগরের বাসিন্দা। গলায় ফাঁস লাগিয়ে শ্বাসরোধ করেই খুন করা হয়েছে বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিসের। বৃহস্পতিবার থেকেই নিখোঁজ ছিলেন বছর তেষট্টির ওই মহিলা। বৃহস্পতিবার সকালে অসুস্থ আত্মীয়াকে দেখতে সল্টলেকে যাচ্ছেন বলে বাড়ি থেকে বেরোন দীপান্বিতা মুখোপাধ্যায়। রাতেও বাড়ি না ফেরায় মিসিং ডায়েরি করেন বাড়ির লোক। এরপর শুক্রবার সোনারপুরে ভাইয়ের ফ্ল্যাট থেকে  উদ্ধার হয় ওই মহিলার নিথর দেহ। ভাই কর্মসূত্রে বাইরে থাকায় ফ্ল্যাটের চাবি থাকত মহিলার কাছেই। ফ্ল্যাটের কেয়ারটেকার জানিয়েছেন বৃহস্পতিবার দুপুরে ফ্ল্যাটে আসেন দীপান্বিতা। এরপর আত্মীয় পরিচয় দিয়ে ওই ফ্ল্যাটে আসেন এক ব্যক্তিও। খুনের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস।

শ্রীরামপুরে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে না পেরে  স্কুলেই ভাঙচুর চালাল পরীক্ষার্থীরা শ্রীরামপুরে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে না পেরে স্কুলেই ভাঙচুর চালাল পরীক্ষার্থীরা

হুগলির শ্রীরামপুরে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে না পেরে  স্কুলেই ভাঙচুর চালাল পরীক্ষার্থীরা। হাত মেলালেন অভিভাবকরাও। তবে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে প্রাণে বেঁচেছেন স্কুলের মালিক তথা প্রধানশিক্ষক। সব কিছু মিটে যাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পৌছয় পুলিস। অ্যাডমিট কার্ড দিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।  মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসতেই পারলনা বেসরকারি হিন্দি স্কুল শ্রীরামপুর বিদ্যাপীঠের তেইশ জন পরীক্ষার্থী। অ্যাডমিট কার্ড পেতে পরীক্ষার্থীরা স্থানীয় কাউন্সিলর থেকে মুখ্যমন্ত্রী, এমনকি বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব, সবার কাছেই দরবার করেছে। রবিবার গভীর রাত পর্যন্ত চলেছে চেষ্টা। কিন্তু সোমবারও মেলেনি অ্যডমিট কার্ড। তাই যখন অন্যরা  মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে রওনা হয়েছে তখন শ্রীরামপুর বিদ্যাপিঠের তেইশ জন পরীক্ষার্থী  ভাঙচুর চালিয়েছে স্কুলে গিয়ে।