মৃত্যুর পর অঙ্গদানের ইচ্ছাপূরণ হল না বাসুদেব বসুর

মৃত্যুর পর অঙ্গদানের ইচ্ছাপূরণ হল না বাসুদেব বসুর

শোভনা সরকার পেরেছিলেন। বাসুদেব বসু পারলেন না। শেষ ইচ্ছে ছিল মৃত্যুর পর অঙ্গদানের। কিন্তু, জানা ছিল না নিয়ম। বাসুদেব বসুর মৃত্যুর পর বিস্তর ছোটাছুটি করেও অঙ্গদান করাতে পারলেন না তাঁর মেয়ে।

জনতার রোষে ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত শিশুর বাবা, মানবিক পুলিস জনতার রোষে ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত শিশুর বাবা, মানবিক পুলিস

আড়াই বছরের মেয়ের ব্লাড ক্যানসার। জলপাইগুড়ি-শিলিগুড়ি হয়ে শেষমেশ কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে আসেন সুদেব ঋষি। দুদিন ঘুরে বেড়ানোর পর ডাক্তাররা বললেন, চিকিত্সা হবে না। ফেরত যেতে হবে গ্রামে। দিশেহারা শিশুর বাবার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। পাগল হয়ে যাওয়ার জোগার।

এসএসকেএম হাসপাতালে তুমুল অশান্তি, চলল রাতভোর ঘেরাও এসএসকেএম হাসপাতালে তুমুল অশান্তি, চলল রাতভোর ঘেরাও

স্বাস্থ্য দফতরকে ঢেলে সাজানোর মুখ্মন্ত্রীর ঘোষনার পর ২৪ ঘণ্টাও কাটল না। এরই মধ্যে ফের একবার অশান্ত হয়ে উঠল SSKM হালপাতাল। দুর্ঘটনায় আহত উত্তর ২৪ পরগনার এক বালকের চিকিত্‍সায় দেরির অভিযোগ এনে SSKM-এর এমার্জেন্সিতে কর্তব্যরত এক ইন্টার্নকে মারধর করল একদল যুবক।

কয়লা বোঝাই মালগাড়িতে উঠে ওভারহেড তারে বিদ্যুত্‍পৃষ্ট কিশোর কয়লা বোঝাই মালগাড়িতে উঠে ওভারহেড তারে বিদ্যুত্‍পৃষ্ট কিশোর

কয়লা বোঝাই মালগাড়িতে উঠে ওভারহেড তারে বিদ্যুত্‍স্পৃষ্ট হল এক কিশোর। তপসিয়ার কুষ্টিয়া এলাকার ঘটনা। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই কিশোরকে SSKM হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে বলতেই সংজ্ঞা হারালেন মদন মিত্র (ভিডিও) সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে বলতেই সংজ্ঞা হারালেন মদন মিত্র (ভিডিও)

পাহাড়প্রমাণ মানসিক চাপই কারণ? পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সেটা বলবেন চিকিত্সকরা। তবে, এমনটা যে হতে পারে, আঁচ করতে পারেননি কেউই। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে সংজ্ঞা হারালেন মদন মিত্র।

মদনে এবার আরও কঠোর কমিশন, হাসপাতালে থাকলেও কার্যত বন্দিই তিনি মদনে এবার আরও কঠোর কমিশন, হাসপাতালে থাকলেও কার্যত বন্দিই তিনি

মদনে এবার আরও কঠোর কমিশন। হাসপাতালেই নিষেধাজ্ঞার জালে বন্দি ভবানীপুরের বড়দা। পরিবারের সদস্যরা ছাড়া আর কেউ এসএসকেএমে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। মোবাইল ফোনও ব্যবহার করতে পারবেন না মদন মিত্র। আজ থেকেই লাগু এই নিয়ম-নিষেধাজ্ঞা।   

মদন মিত্রের চিকিত্সায় মেডিক্যাল বোর্ড গঠন এসএসকেএমের, শ্বাসকষ্ট থাকায় তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে মদন মিত্রের চিকিত্সায় মেডিক্যাল বোর্ড গঠন এসএসকেএমের, শ্বাসকষ্ট থাকায় তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে

মদন মিত্রের চিকিত্‍সার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করল এসএসকেএম। মেডিক্যাল বোর্ডের তত্ত্বাবধানে মদন মিত্রের কয়েকটি ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। এখনও শ্বাসকষ্ট থাকায় তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে।

শ্বাসকষ্টের কারণে এসএসকেএমে ভর্তি করা হল মদন মিত্রকে শ্বাসকষ্টের কারণে এসএসকেএমে ভর্তি করা হল মদন মিত্রকে

ভোটের পরদিনই হঠাত্‌ বুকে ব্যথা মদন মিত্রের। সঙ্গে শ্বাসকষ্ট। তড়িঘড়ি তাঁকে আনা হল এস এস কে এমে। আলিপুর সেন্ট্রাল জেল থেকে তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে ভর্তি করা হল পিজিতে। গতকাল দিনভর জেলের ভিতর নজরবন্দি ছিলেন কামারহাটির হেভিওয়েট তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র। সেলের ভিতরে দিনভর তাঁর পিছু ছাড়েননি ডেপুটি জেলর এবং দুজন সিপাই। দিনভর মনমরা ছিলেন তিনি। টিভিতে মাঝেমধ্যেই ভোটের খবর দেখেছেন। কিন্তু চিন্তায় মুখে তোলেননি তেমন কিছুই। বাবার অনুপস্থিতিতে গড় সামলান ছেলে শুভরূপ মিত্র। তারপর আজ হঠাত্‌ই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

এজেসি বোস ফ্লাইওভারে আত্মহত্যার চেষ্টা মহিলার এজেসি বোস ফ্লাইওভারে আত্মহত্যার চেষ্টা মহিলার

আচার্য জগদীশচন্দ্র বোস ফ্লাইওভারে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক মহিলা। আজ সকালে ঘটে এই দুর্ঘটনাটি।

এসএসকেএম হাসপাতালের নির্মীয়মাণ হস্টেলে আগুন এসএসকেএম হাসপাতালের নির্মীয়মাণ হস্টেলে আগুন

এসএসকেএম হাসপাতালের নির্মীয়মাণ হস্টেলে আগুন। মঙ্গলবার রাতে আগুন নিয়ে আতঙ্ক ছড়াল এসএসকেএমে। মেন হস্টেলের কাছেই তৈরি হচ্ছে নতুন হস্টেল। রাত দশটা নাগাদ সেখান থেকে আগুন দেখতে পান রোগীর আত্মীয় এবং হাসপাতালের কর্মীরা। পাশেই নেফ্রোলজি বিভাগ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছয় দমকলের তিনটি ইঞ্জিন। দ্রুত আগুন আয়ত্ত্বে আনেন দমকলকর্মীরা। চলে যায় ট্রমা কেয়ার ইউনিট এবং হাসপাতালের কর্মীরাও। দমকলের অনুমান, নির্মীয়মাণ বাড়ির মিটার বক্স কিংবা বাড়িতে জড়ো করা আবর্জনাস্তুপ থেকেই আগুনের সূত্রপাত। তবে দমকলকর্মীদের তত্‍পরতায় আগুন নিভিয়ে ফেলা সম্ভব হয়। কীভাবে আগুন লাগল, তা নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং দমকল বিভাগ পৃথক তদন্ত শুরু করেছে। 

'বুকের বা দিকে ব্যাথা হচ্ছে', জেলের ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে ফের এসএসকেএমেই 'প্রাক্তন মন্ত্রী'? 'বুকের বা দিকে ব্যাথা হচ্ছে', জেলের ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে ফের এসএসকেএমেই 'প্রাক্তন মন্ত্রী'?

জেলখানার বদলে কি এবারও বন্দি মদন মিত্রের জায়গা হবে এসএসকেএমে? জল্পনাটা নিজেই উস্কে দিয়েছেন খোদ মন্ত্রী মশাই। গতকাল আদালতে যাওয়ার পথে তাঁর বুকের বা দিকে ব্যাথা হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন মদন মিত্র। জেল হেফাজতের নির্দেশের সময়ও মেডিক্যাল অ্যাসিসট্যান্সের আবেদন জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবীরা। সেই আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত। ফলে এবারও শেষপর্যন্ত  বন্দি প্রাক্তন মন্ত্রী এসএসকেএমেই যান কি না তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।

'মন মানছে না' মন্ত্রীর, ২১ নম্বর ঘর খালি করে ভাবানীপুরের বাড়িতেই মদন মিত্র  'মন মানছে না' মন্ত্রীর, ২১ নম্বর ঘর খালি করে ভাবানীপুরের বাড়িতেই মদন মিত্র

এসএসকেএমের উডবার্ন ওয়ার্ড। দীর্ঘ সময় ধরে সেটাই হয়ে উঠেছিল মদন মিত্রর বন্দি জীবনের আস্তানা। পরিবহণমন্ত্রীর শুশ্রূষায় কেবিনে কেমন ব্যবস্থা রেখেছিল রাজ্যের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল? চব্বিশ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।

২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ডেঙ্গির বলি ৩ ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ডেঙ্গির বলি ৩

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ডেঙ্গিতে মৃত্যু হল  তিন-জনের। গতকাল রাতে বিসি রায় শিশু হাসপাতালে ৫ বছরের একটি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ SSKM-এ মারা গেছেন একজন। বর্ধমানে মৃত্যু হয়েছে বীরভূমের কোটাশূরের এক বাসিন্দা

মন্ত্রী বাহিনীর তাণ্ডবের পর কর্মবিরতিতে জুনিয়র ডাক্তাররা, সারাদিন ভোগান্তিতে রোগীরা, কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে উঠল কর্মবিরতি মন্ত্রী বাহিনীর তাণ্ডবের পর কর্মবিরতিতে জুনিয়র ডাক্তাররা, সারাদিন ভোগান্তিতে রোগীরা, কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে উঠল কর্মবিরতি

ডাকসাইটে মন্ত্রীর বাহিনী হাসপাতালে ঢুকে তাণ্ডব চালিয়েছে। মেরে হাত-পা ভেঙে দিয়েছে ডাক্তারের। কিন্তু দোষীরা মন্ত্রীর মদতপুষ্ট হওয়ায়, তাদের ছুঁতে সাহস করছে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমন সব অভিযোগ ঘিরেই গত কয়েকদিন ধরে সরগরম ছিল এসএসকেএম। ক্ষোভ বাড়ছিল জুনিয়র ডাক্তারদের। শনিবার বাঁধ ভাঙল। রোগীরা এসে ফিরে যাচ্ছে। অনেকে হাসপাতালের বাইরে পড়ে ধুঁকছে। সব দেখেও প্রাথমিকভাবে কর্মবিরতির রাস্তা থেকে সরতে চাননি জুনিয়র ডাক্তাররা। তবে শেষ পর্যন্ত কর্তৃপক্ষের সুরক্ষার আশ্বাসে কর্মবিরতির হাত থেকে সরে আসলেন তাঁরা। 

মন্ত্রী বাহিনীর তাণ্ডবের পর কর্মবিরতিতে জুনিয়র ডাক্তাররা, সারাদিন ভোগান্তিতে রোগীরা, কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে উঠল কর্মবিরতি মন্ত্রী বাহিনীর তাণ্ডবের পর কর্মবিরতিতে জুনিয়র ডাক্তাররা, সারাদিন ভোগান্তিতে রোগীরা, কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে উঠল কর্মবিরতি

ডাকসাইটে মন্ত্রীর বাহিনী হাসপাতালে ঢুকে তাণ্ডব চালিয়েছে। মেরে হাত-পা ভেঙে দিয়েছে ডাক্তারের। কিন্তু দোষীরা মন্ত্রীর মদতপুষ্ট হওয়ায়, তাদের ছুঁতে সাহস করছে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমন সব অভিযোগ ঘিরেই গত কয়েকদিন ধরে সরগরম ছিল এসএসকেএম। ক্ষোভ বাড়ছিল জুনিয়র ডাক্তারদের। শনিবার বাঁধ ভাঙল। রোগীরা এসে ফিরে যাচ্ছে। অনেকে হাসপাতালের বাইরে পড়ে ধুঁকছে। সব দেখেও প্রাথমিকভাবে কর্মবিরতির রাস্তা থেকে সরতে চাননি জুনিয়র ডাক্তাররা। তবে শেষ পর্যন্ত কর্তৃপক্ষের সুরক্ষার আশ্বাসে কর্মবিরতির হাত থেকে সরে আসলেন তাঁরা। 

বাবার লিভার নিতে পারল না ছোট্ট শরীর, এসএসকেএমে মৃত জাভেদ বাবার লিভার নিতে পারল না ছোট্ট শরীর, এসএসকেএমে মৃত জাভেদ

লিভার প্রতিস্থাপন করেও বাঁচানো গেল না জাভেদ আলিকে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টা নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার। বুধবার প্রায় ১৭ ঘণ্টা ধরে চলে লিভার প্রতিস্থাপনের গোটা প্রক্রিয়া।