রাষ্ট্রপতি শাসনে ঝাড়খণ্ড

ঝাড়খণ্ডে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হল। রাষ্ট্রপতি ভবন সূত্র খবর, আজই ঘোষণাপত্রে সই করেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। চলতি মাসেই মুখ্যমন্ত্রীত্বের দাবিতে বিজেপি সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা। এর পরেই বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার সুপারিশ করেন মুখ্যমন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা। মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্তের পর রাজ্যপাল সৈয়দ আহমেদের কাছে ইস্তফা পত্র তুলে দেন তিনি।

ইস্তফা দিলেন অর্জুন মুন্ডা

ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার সুপারিশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা। আজ মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের পর রাজ্যপাল সৈয়দ আহমেদের কাছে ইস্তফা পত্র তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্যদিকে আজই ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার বিধায়করা হেমন্ত সোরেনের নেতৃত্বে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে সমর্থন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত জানিয়ে এসেছেন। রাজ্যপালের হাতে সমর্থন প্রত্যাহারের চিঠি তুলে দিয়েছেন মুক্ত মোর্চার নেতা শিবু সোরেন।

ঝাড়খণ্ডে সঙ্কটে বিজেপি

গভীর সঙ্কটে পড়ে গেল ঝাড়খণ্ডের বিজেপি নেতৃত্বাধীন অর্জুন মুন্ডার সরকার। জোট সরকার থেকে সমর্থন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিল শরিক ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা। কাল রাজ্যপালের কাছে সমর্থন প্রত্যাহারের চিঠি দেবে শিবু সোরেনের দল। বিরাশি আসনের ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার বিধায়ক সংখ্যা ১৮। বিজেপিরও বিধায়ক আঠারো জন। বিজেপির পক্ষে সমর্থন রয়েছে অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়নের ছয় বিধায়কের। সংযুক্ত জনতা দলের দুই বিধায়কও রয়েছে বিজেপির সঙ্গে। কিন্তু ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা সমর্থন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় অর্জুন মুন্ডার সরকার বিধানসভায় গরিষ্ঠতা হারাল।