সারদায় এবার হর্ষ নেওটিয়াকে তলব করল ED

সারদায় এবার হর্ষ নেওটিয়াকে তলব করল ED

শিল্পীর পর শিল্পপতি। শুভাপ্রসন্নর পর এবার হর্ষ নেওটিয়া। সারদাকে নিউজ চ্যানেল বিক্রির তদন্তে আরেক শাসক-ঘনিষ্ঠকে জেরা করছে ED। ২০১২ সালে সারদা গোষ্ঠীকে একটি নিউজ চ্যানেল বিক্রি করেছিল শুভাপ্রসন্নর সংস্থা দেবকৃপা ব্যাপার প্রাইভেট লিমিটেড। ওই কেনাবেচা নিয়ে দেবকৃপার একাধিক শেয়ার হোল্ডারের বয়ানে উঠে এসেছে হর্ষ নেওটিয়ার নাম। পাশাপাশি, হর্ষ নেওটিয়া শুভাপ্রসন্নের আর্ট একরের অন্যতম ট্রাস্টি। তদন্তকারীদের সন্দেহ, সারদাকে চ্যানেল বিক্রি করে পাওয়া টাকার একাংশ ঢুকেছে আর্ট একরেও। হর্ষ নেওটিয়াকে তা নিয়েও প্রশ্ন করবেন তদন্তকারীরা। এর আগেও তাঁকে এ নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।  

পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান ও পঞ্চায়েত সদস্যাকে শ্লীলতাহানি  দুই তৃণমূল নেতার পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান ও পঞ্চায়েত সদস্যাকে শ্লীলতাহানি দুই তৃণমূল নেতার

সরকারি প্রকল্প নিয়ে দাদাগিরি না মানায় পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান ও পঞ্চায়েত সদস্যাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠলো তৃণমূলের ২ নেতার বিরুদ্ধে। বর্ধমানের কালনার বড়ধামাসের ঘটনা। গভীর রাত পর্যন্ত পঞ্চায়েত অফিসে আটকে রেখে তাঁদের মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। রাতেই কালনা থানায় স্থানীয় দুই তৃণমূল নেতা বনমালী মণ্ডল ও পরিতোষ মণ্ডলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগ উঠেছে পুলিসি নিষ্ক্রিয়তারও। অভিযোগ, সরকারি প্রকল্পের আওতাভুক্ত কারা এবং কাদের বাড়ি দেওয়া হবে তা তৃণমূল ঠিক করবে বলে দাবি করা হয়। সেই দাবি না মানায় তিন মহিলার ওপর সদলবলে দুই তৃণমূল নেতা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। তৃণমূলের বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

পুরভোট কাজিয়া: পুরমাতার বিরুদ্ধে নির্দল হয়ে লড়বেন তৃণমূলেরই রাজ্যকমিটির সদস্য পুরভোট কাজিয়া: পুরমাতার বিরুদ্ধে নির্দল হয়ে লড়বেন তৃণমূলেরই রাজ্যকমিটির সদস্য

রাজপুর -সোনারপুর  পুরসভায় শাসকদলের গোষ্ঠীকোন্দল এয়ার প্রকাশ্যে। মঙ্গলবার ৩৫ টি ওয়ার্ডে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে তৃণমূল কংগ্রেস। ১৫ বছর ধরে সংরক্ষিত থাকার পর ৯ নম্বর ওয়ার্ডটি সাধারণ হয়েছে।  প্রার্থীতালিকা অনুযায়ী ওই ওয়ার্ডে প্রার্থী হয়েছে গত দুবারের পুরমাতা নমিতা দাস। কিন্তু নমিতা দাসের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অনুন্নয়নসহ একাধিক অভিযোগ এনে নির্দল প্রতীকে ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্যকমিটির সদস্য তথা এলাকার দাপুটে নেতা হেমন্ত বসু।  ইতিমধ্যেই মা মাটি মানুষের প্রতিনিধির তকমা নিয়ে নির্দল প্রতীক নিয়েই দেওয়াল লিখন, পোস্টার, ফেস্টুনসহ জোর কদমে প্রচারে নেমে পড়েছেন তিনি। যদিও দলীয় প্রার্থী নমিতা দাস হেমন্ত বসুর অভিযোগকে আমল দিতে নারাজ। উল্টে হেমন্ত বসু ও তাঁর অনুগামীদের কাজকর্ম নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। সব মিলিয়ে পুরভোটের আগেই জমে উঠেছে রাজপুর-সোনারপুর পুরসভায় নয় নম্বর ওয়ার্ডে প্রার্থী তালিকা নিয়ে তৃণমূলের কাজিয়া।

তৃণমূলের ভোটে রাজ্যসভায় খনি বিল পাশ করল বিজেপি তৃণমূলের ভোটে রাজ্যসভায় খনি বিল পাশ করল বিজেপি

রাজ্যসভায় খনি ও খনিজ সম্পদ বিল পাশ করিয়ে নিল মোদী সরকার। বাজেট অধিবেশনের প্রথমার্ধের শেষ দিনে পাশ হল সংশোধিত খনি বিল। প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস এবং বাম দলগুলির লাগাতার বিরোধিতা সত্ত্বেও সংসদের উচ্চকক্ষে খনি বিলটি পাশ করানো গেল মূলত তৃণমূলের জন্যই। ধ্বনিভোটে পাশ হওয়া বিলটির পক্ষে ভোট দেয় তৃণমূল। পক্ষে ভোট দেয় এআইডিএমকে, বিএসপি, এসপি এবং বিজেডিও। তবে বিলের বিরোধিতায় আজ ওয়াকআউট করে জেডিইউ। এবার লোকসভায় পাঠানো হবে বিলটি। রাজ্যসভায় বিলটি পাশের আগেই কক্ষ থেকে বেরিয়ে যায় জনতা দলের ১২ জন সাংসদ। রাজ্য সভায় এনডিএ জোটের সাংসদ সংখ্যা ৫৭ জন।  কংগ্রেসের রয়েছে ৬৯ জন। এতদ সত্ত্বেও সরকার বিলের পক্ষে মোট ১১২ জনের সমর্থন অর্জন করেছে, যেখানে বিলের বিরোধীতায় মাত্র ৬৮ টি ভোট পরে।