বিধানসভা ভোটের আগে দলীয় সংগঠন ঢেলে সাজানোর পথে মমতা, শিলিগুড়িতে খারাপ ফলের জন্য দলনেত্রীর রোষানলে গৌতম দেব বিধানসভা ভোটের আগে দলীয় সংগঠন ঢেলে সাজানোর পথে মমতা, শিলিগুড়িতে খারাপ ফলের জন্য দলনেত্রীর রোষানলে গৌতম দেব

বিধানসভা ভোটের আগে দলের সংগঠন ঢেলে সাজানোয় হাত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। শিলিগুড়িতে খারাপ ফলের জন্য দলীয় বৈঠকে তাঁর তোপের মুখে পড়লেন গৌতম দেব। অধীর-দীপার মোকাবিলায় এ বার শুভেন্দুকে মাঠে নামাচ্ছেন মমতা। বামেদের শক্তি ঘাঁটি জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ারে তিনি পাঠাচ্ছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে। মর্যাদার লড়াইয়ে শিলিগুড়ি হাতছাড়া হয়েছে। রাজ্য রাজনীতিতে চালু হয়ে গেছে নতুন লব্জ অশোক মডেল। শনিবার কালীঘাটে দলীয় বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর তোপের মুখে পড়লেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী গৌতম দেব।

ক্যানিংয়ে সিআই অফিসে তৃণমূলের বোমাবাজি ক্যানিংয়ে সিআই অফিসে তৃণমূলের বোমাবাজি

ফের পুলিসের অফিসে তৃণমূলের দাদাগিরি। ক্যানিংয়ের সিআই অফিসের সামনে বোমাবাজির অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। গতকাল রাতে ঘুটিয়ারি শরিফ এলাকায় নিজের গাড়িতে যাচ্ছিলেন ক্যানিংয়ের সিআই রতন চক্রবর্তী। সে সময় স্থানীয় তৃণমূল নেতা কাশেম সরদার ওই পুলিস অফিসারের উদ্দেশ্যে গালিগালাজ করে বলে অভিযোগ। অভিযোগ, গাড়ি থেকে নেমে তৃণমূল নেতাকে চড়-থাপ্পর মারেন রতন চক্রবর্তী। পরে অনুগামীদের নিয়ে সিআই অফিসে চড়াও হয় কাশেম সরদার। পুলিসের দফতরের সামনে বোমাবাজির অভিযোগ উঠেছে কাশের সরদারের বিরুদ্ধে। দফতর থেকে বেড়িয়ে এলে সিআইকে ধাক্কাও মারা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। উত্তেজনা বাড়তে থাকায় ঘটনাস্থলে পৌছন ক্যানিংয়ের এসডিপিওর নেতৃত্বে জীবনতলা ও ক্যানিং থানার বিশাল পুলিসবাহিনী। তবে পুলিসের দফতরের সামনে বোমাবাজি এবং সিআইকে ধাক্কা মারার কথা অস্বীকার করেছেন তিনি।

বিধানসভা ভোটের আগে কালীঘাটে জরুরি বৈঠকে মমতা ব্রিগেড  বিধানসভা ভোটের আগে কালীঘাটে জরুরি বৈঠকে মমতা ব্রিগেড

পাখির চোখ বিধানসভা ভোট। তার আগে জরুরি বৈঠক ডাকলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুপুর একটায় কালীঘাটের বাড়িতে শুরু হবে বৈঠক। হাজির থাকবেন সাংসদ, মন্ত্রীর ও বিধায়করা। থাকবেন দলের অন্য গুরুত্বপূর্ণ নেতারাও। বিধানসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে এই বৈঠক থেকেই তৃণমূলনেত্রী নতুন বার্তা দেবেন বলে মনে করছে রাজনৈতিকমহল। বিধানসভা ভোটের আগে জেলার দায়িত্বও ভাগ করে দেওয়া হতে পারে এই বৈঠক থেকে। বৈঠকে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও কথা হবে। জেলা স্তরে বেশকিছু রদবদলেরও সম্ভাবনা রয়েছে। নতুন মুখ তুলে আনার ক্ষেত্রেও এই বৈঠকে আলোচনা হতে পারে বলে তৃণমূল সূত্রে খবর। 

নামেই শান্তি সভা, বীরভূম অশান্তই নামেই শান্তি সভা, বীরভূম অশান্তই

অনুব্রত মণ্ডলের শান্তি সভার পর থেকেই একের পর এক রাজনৈতিক অশান্তি বীরভূমে। বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে ফের উত্তেজনা ছড়াল মাখড়া গ্রামে। সকাল থেকেই বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। গ্রামেরই এক বিজেপি সমর্থককের ওপর হামলাকে কেন্দ্র করে অশান্তির সূত্রপাত। হাঁসরা বাসস্ট্যান্ডে বাজার করতে গিয়েছিলেন বিজেপি সমর্থক শিশ মহম্মদ। অভিযোগ তখনই ওই কিশোরের ওপর চড়াও হয় সেখানকার তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের হাত থেকে শিশ মহম্মদকে উদ্ধার করে গ্রামে পৌছে দেয় পুলিস। কিন্তু, শিশ মহম্মদ গ্রামে পৌছতেই উত্তেজনা ছড়ায়। গ্রামের তৃণমূল সমর্থক পরিবারগুলির ওপর হামলা শুরু করেন বিজেপি সমর্থকরা। বেধড়ক মারধর করা হয় এক তৃণমূল কর্মীকে।