রাজীব খেলরত্ন পুরস্কার পেলেন সানিয়া মির্জা

রাজীব খেলরত্ন পুরস্কার পেলেন সানিয়া মির্জা

ভারতে ক্রীড়া জগতের সর্বোচ্চ সম্মান রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কার পেলেন টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা। রাষ্ট্রপতি ভবনে জাতীয় ক্রীড়া দিবসে তাঁর হাতে এই পুরস্কার তুলে দিলেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। 

নতুন বছরের শুরুটা হার দিয়ে করে দেদার শপিং সানিয়ার

নতুন বছরের শুরুটা হার দিয়ে হল সানিয়া মির্জার। সিডনিতে ডব্লু টিএ আপিয়া ইন্টারন্যাশানাল টুর্নামেন্টের ডাবলসের প্রথম রাউন্ডে সানিয়া মির্জা-কারা ব্ল্যাক হারলেন স্ট্রেট সেটে। সানিয়ারা হারলেন ৩-৬, ৬-২। ক দিন পরেই শুরু হচ্ছে বছরের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। তার আগে এই হার চিন্তায় রাখার কথা সানিয়াকে।

মহাকাব্যিক মহাযুদ্ধে চির প্রতিদ্বন্দ্বী ফেড এক্সপ্রেসকে হারিয়ে এটিপি ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনালে নাদাল

থামানো যাচ্ছে না দুরন্ত গতির রাফাকে। এই বছর নিজের রূপকথার টেনিসের দুরন্ত গতি বজায় রেখে এটিপি ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনালে পৌঁছালেন তিনি। সেমিফাইনালে হারালেন `চির শত্রু` রজার ফেডেরারকে।টেনিস ইতিহাসের দুই জীবন্ত কিংবদন্তীর মহা সমরের সাক্ষী থাকল এটিপি ওয়ার্ল্ড ট্যুর। টেনিস কোর্টের এই দুই `চির শত্রু`র খেলা মানেই রচিত হয় মহাকাব্য। আর এ বছরের দুরন্ত ফর্মের মর্যাদা রেখে এই মহাকাব্যের নায়ক সেই রাফায়েল নাদাল। রবিবার ফেড এক্সপ্রেসকে ৭-৫, ৬-৩ হারিয়ে এটিপি ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনালে উঠলেন রাফা। সোমবার ফাইনালে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী নোভাক জকোভিচ ও স্ট্যানিসলাস ওয়ারিঙ্কার মধ্যেকার যুদ্ধের বিজেতা।

রাফা, ইউএস ওপেন ও চৈনিক রহস্য

রাফায়েল নাদালের ইউএস ওপেন জয়ের রহস্যটা কী? উত্তরটা বোধ হয় শতকরা ১০০জন একই দেবেন। আকাশচুম্বী প্রতিভার সঙ্গে অপরিশীম প্রতিভার মিশেল। কিন্তু নাদাল বোধহয় নিজে মোটেও সেটা মনে করেন না। তাঁর কাছে জয়ের ঠিকানা লুকিয়ে আছে একটি চাইনিজ রেঁস্তোরার ফ্রায়েড রাইসের মধ্যে। খেলোয়াড়দের মধ্যে খেলা নিয়ে বিভিন্ন কুসংস্কার সর্বজনবিদিত। নাদালও সেই লিস্টের বাইরে নন। তাঁর সংস্কারের নবতম সংস্করণ ইউএস ওপেনের প্রতিটি ম্যাচের আগে নির্দিষ্ট একটি রেঁস্তোরায় গিয়ে একই খাবার খাওয়া।

রাফা ঝড়ে মাথা নোয়ালেন জোকার, ইউএস ওপেনের রাজা নাদালই

হার্ড কোর্টে রাফা রাজ অব্যাহত। সোমবার ইউএস ওপেনের ফাইনালে বর্তমানে পুরুষদের টেনিস দুনিয়ার সেরা দুই মহারথীর লড়াইয়ে শেষ হাসিটা হাসলেন রাফায়েল নাদালই। কোর্ট জুড়ে তাঁর অবিশ্বাস্য ক্ষিপ্রতা, টপস্পিনের কাছে হার মানলেন বিশ্বের অধুনা এক নম্বর নোভাক জকোভিচ। জোকারকে ৬-২, ৩-৬, ৬-৪, ৬-১ সেটে পরাজিত করলেন রাফা। ইউএস ওপেনের ট্রফিটা দখল করার সঙ্গে সঙ্গেই রাফা টুপিতে যুক্ত হল ১৩টি গ্র্যান্ডস্লামের পালক। নাদালের সামনে এখন শুধু ফেডেরার (১৭) এবং পিট সাম্প্রাস (১৪)।

মরসুমের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম থেকে বিদায় ফেডের

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন থেকে বিদায় নিলেন রজার ফেডেরর। এ দিনের রুদ্ধশ্বাস সেমিফাইনালে অ্যান্ডি মারের কাছে ৬-৪, ৬-৭, ৬-৩, ৬-৭, ৬-২ সেটে পরাজিত হন ফেড। এই প্রথম কোনও গ্র্যান্ড স্লামে মারে হারালেন ফেডেররকে। রবিবার বিশ্বের ১ নম্বর নোভাক জকোভিচের মুখোমুখি হবেন মারে।