শক্তিশালী ভূমিকম্প অস্ট্রেলিয়ায়, জারি সুনামি সতর্কতা

শক্তিশালী ভূমিকম্প অস্ট্রেলিয়ায়, জারি সুনামি সতর্কতা

৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সটাউনের সমুদ্র উপকূলে ভয়াবহ ভূমিকম্প। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.১ । এর জেরে সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়। তবে পরে তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

ভয়ঙ্কর ভিডিও! ট্যাক্সিতে এক ব্যক্তিকে তাড়া করল মহিলা ভূত! তারপর.. ভয়ঙ্কর ভিডিও! ট্যাক্সিতে এক ব্যক্তিকে তাড়া করল মহিলা ভূত! তারপর..

রাতে একা ট্যাক্সি নিয়ে যাতায়াত করেন? তাহলে এবার সাবধান হয়ে যান। সদ্য একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, জাপানে গভীর রাতে ট্যাক্সিতে উঠতে যাচ্ছেন এক ব্যক্তি। আর সেই ট্যাক্সিতেই উঠতে দেখা গেল এক ছায়া মূর্তিকে। ছায়াটি এক মহিলার। শুধু তাই নয়, সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, রাস্তা দিয়ে ওই ব্যক্তি যখন ট্যাক্সি ধরার জন্য দৌড়চ্ছেন, তখন তাঁর পাশেই সেই ছায়া মূর্তিকে দৌড়তে দেখা যাচ্ছে। পরক্ষণেই ওই ব্যক্তি যেই ট্যাক্সির দরজা খুলে ভিতরে গেলেন, তাঁর সঙ্গে সেই ছায়া মূর্তিও ট্যাক্সিতে ঢুকে গেল!

এটাই নাকি বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুনামি! এটাই নাকি বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুনামি!

তীব্র্র ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল পৃথিবীর বিস্তর্ণ এলাকা। এর ফলে সুনামির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এই খবর আমরা মাঝেমধ্যেই শুনতে পাই। ২০০৪ সালে ভূমিকম্পের জেরে ভারত মহাসাগরে সুনামি দেখা দেয়। পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিস্তীর্ণ অঞ্চল এই সুনামির জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রাণ হারান কমপক্ষে আড়াই লাখ মানুষ। এরপর থেকেই বর্তমান সভ্যতার সঙ্গে পরিচিত হয় এই নামটি।

ভয়াবহ ভূমিকম্প ভানুয়াতুতে, জারি করা হয়েছে সুনামি সতর্কতাও ভয়াবহ ভূমিকম্প ভানুয়াতুতে, জারি করা হয়েছে সুনামি সতর্কতাও

কেঁপে উঠল ভানুয়াতু। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ৭.০। জারি করা হয়েছে সুনামি সতর্কতাও।

ফের ভূমিকম্প জাপানে, তবে সুনামির আশঙ্কা নেই ফের ভূমিকম্প জাপানে, তবে সুনামির আশঙ্কা নেই

জাপান, জাপান, ইকুয়েডর। ফের জাপান। ফের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপান। মুহূর্তের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে বাসিন্দাদের মধ্যে। ঘর ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসেন তাঁরা।

১১ মিনিটের ব্যবধানে পরপর ২ বার ভয়ঙ্কর মাত্রার কম্পন ইকুয়েডরে ১১ মিনিটের ব্যবধানে পরপর ২ বার ভয়ঙ্কর মাত্রার কম্পন ইকুয়েডরে

জাপানে ভূমিকম্পের রেশ এখনও কাটেনি। সেই ধাক্কা সামলানোর আগেই ফের ভূমিকম্পের খবর। এবার ইকুয়েডরে। ১১ মিনিটের ব্যবধানে পরপর ২ বার ভয়ঙ্কর মাত্রার কম্পন। প্রথমটি রিখটার স্কেলে ৪.৮ এবং দ্বিতীয়টি আরও ভয়ঙ্কর। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ধরা পড়েছে ৭.৮। ভূমিকম্পের পরপরই স্থানীয় উপকূল এলাকায় সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। রাজধানী কুইটোতে প্রবলভাবে কম্পন অনুভূত হয়েছে বলে খবর। তবে ক্ষয়ক্ষতির ছবি কেমন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। কম্পন অনুভূত হয়েছে উত্তর পেরুতেও। অসংখ্য বাড়ি মাটিতে মিশে গেছে। বহু লোক ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে রয়েছে বলে মনে করছে প্রশাসন। এখনো পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২৮ জন।

ফের ভূমিকম্প জাপানে, সুনামির সতর্কতা জারি ফের ভূমিকম্প জাপানে, সুনামির সতর্কতা জারি

২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই ফের বড়সড় ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপানের কুমামোতো শহর। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের তীব্রতা ছিল ৭। জারি হয়েছে সুনামির সতর্কতা।

সুনামি ভয়াবহতার সবচেয়ে গা শিউরে ওঠা ভিডিও সুনামি ভয়াবহতার সবচেয়ে গা শিউরে ওঠা ভিডিও

২৬ ডিসেম্বর, ২০০৪। দিনটা চাইলেও ভুলতে পারবে না এই প্রজন্ম। পৃথিবীতে এযাবৎ কালের মধ্যে সবচে বড়ো মাপের ভূমিকম্প আঘাত করেছিল ইন্দোনেশিয়ার সমুদ্র উপকূলে। ওই ভূমিকম্প থেকে সৃষ্টি হয়েছিলো প্রলয়ঙ্করী জলোচ্ছ্বাস সুনামির। সেই সুনামিতে ভেসে গিয়েছিলো ভারত মহাসাগরের উপকূলজুড়ে থাকা বিভিন্ন জনপদে মানুষের বসতি। ভয়াবহ সুনামি সব তছনছ করে ছেড়ে দিয়েছিল। শুধুমাত্র ইন্দোনেশিয়ায় সুনামিতে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৩ লক্ষ। সেই সুনামির নানা ভয়াবহ ভিডিও আমরা নানা জায়গায় দেখে থাকি। এমনই এক ভয়াবহ ভিডিও তুলে ছিলেন এক ব্রিটিশ পর্যটক।

ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, জারি সুনামী সতর্কতা ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, জারি সুনামী সতর্কতা

ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প। যা জেরে জারি হল সুনামি সতর্কতা। রিখটার স্কেলে ৭.৯ মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে দক্ষিণ পশ্চিম ইন্দোনেশিয়া। ভূমিকম্পের উত্‍পত্তিস্থল ছিল ইন্দোনেশিয়ার পাদাং থেকে ৮০৮ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে। ৬ মাইল গভীরে ছিল উত্‍পত্তিস্থল। এই কম্পেনর পর সুমাত্রা দ্বীপপুঞ্জে সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

পৃথিবী ১ সেকেন্ড থেমে গেলে কী হবে? পৃথিবী ১ সেকেন্ড থেমে গেলে কী হবে?

চিন্তা কী আর আমাদের একটা। ফেসবুকের নতুন সেলফিটাই ক'টা লাইক পড়ল। স্ট্যাটাস আপডেটটায় কে কী কমেন্ট করল। বাজারে কী নতুন স্মার্টফোন লঞ্চ হলো। হাজারটা চিন্তা। কিন্তু এত কিছু ভাবনা চিন্তার মধ্যে ভেবে দেখেছেন কি কখনো যদি এই সব কর্মকাণ্ড থেমে যায়! মানে পৃথিবীটা যদি ১ সেকেন্ডের জন্য ঘোরা বন্ধ করে দেয় তবে কী হবে?

 ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর কমমাত্রার সুনামি প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর কমমাত্রার সুনামি প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে

সোমবার পাপুয়া নিউ গিনিতে একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প ছোটখাট সুনামি পরিস্থিতি সৃষ্টি করল। এপিসেন্টারের পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হলেও এখনও পর্যন্ত কোনও ক্ষয়ক্ষতি বা আঘাতের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

কেটে গেছে ১০ বছর, আজও সুনামির নামেই কেঁপে ওঠে বুক কেটে গেছে ১০ বছর, আজও সুনামির নামেই কেঁপে ওঠে বুক

ঠিক ১০ বছ আগের এই দিন। ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর। এই দিনেই আছড়ে পড়েছিল সুনামি। সুনামির ছোবল থেকে রক্ষা পায়নি ভারতও। মৃত্যু হয়েছিল প্রায় ২ লক্ষ ৩০ হাজার মানুষের। এক দশক আগের প্রকৃতির সেই নির্মম ধ্বংস

 ৭.৪ ভূমিকম্পে সুনামির আতঙ্ক ৭.৪ ভূমিকম্পে সুনামির আতঙ্ক

ই ১ সালভাডোর দ্বীপে ভয়াবহ ভূমিকম্প। সোমবার রাতে ৭.৪ তীব্রতার কম্পন অনুভূত হয় সেখানে। ভূমিকম্পের পরে সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়েছে উপকূলে। সেখানকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে সুনামির।

আমার সুনামি ধুয়ে দেবে কংগ্রেসকে:মোদি

বিহারে বিপুল জনসমাবেশে কালই নির্বাচনি প্রচার সেরেছেন বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদি। মানুষের ভিড়ে মিশে মোদির আত্মবিশ্বাস, "সারা দেশে সুনামির মতো ঢেউ উঠেছে। এই ঢেউ ধুয়ে দেবে কংগ্রেসকে।"

ফের ভূ-কম্পনে কেঁপে উঠল চিলি, স্থানীয়ভাবে জারি করা হল সুনামি সতর্কতা

ফের কাঁপলো চিলি। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ৭.৮। গতকালই শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে চিলি। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল আট দশমিক দুই। এরপর থেকেই বেশ কয়েকবার ভূ কম্পন অনুভূত হয়। তবে স্থানীয় সময় বুধবার রাতে জোরাল কম্পন অনুভূত হয়েছে। কম্পনের কেন্দ্রস্থল ইকুইক বন্দর থেকে নয় কিলোমিটার দক্ষিণে। স্থানীয়ভাবে সুনামির সতর্কতা রয়েছে। উপকূলবর্তী এলাকা ফাঁকা করে দেওয়া হচ্ছে। এদিকে গতকালের ভূমিকম্পের জেরে বৃহস্পতিবার সকালে ৪০ সেন্টিমিটার উচ্চতার ঢেউ আছড়ে পড়েছে জাপানে। সঙ্গে সঙ্গেই সুনামি সতর্কতা জারি হয়েছে হোককাইডু এবং রোহোকু অঞ্চলে।

সোলোমন দ্বীপের সুনামির জেরে মৃত পাঁচ

সোলোমন দ্বীপপুঞ্জে এক শক্তিশালী ভূমিকম্পের জেরে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জে তৈরি হল সুনামি। প্রায় পাঁচ ফুট দৈর্ঘের এই সুনামির জেরে ভেসে গেছে বহু বাড়িঘর। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মারা গিয়েছেন পাঁচ জন।