স্যান্ডির রেশ না কাটতেই আছড়ে পড়ল এথেনা

ভয়ঙ্কর ঘূর্নিঝড় স্যান্ডির আতঙ্ক এখনও পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারেনি আমেরিকাবাসী। তার আগেই মার্কিন মুলুকের উত্তরপূর্বাঞ্চলে ফের থাবা বসালো আরও একটি ঘূর্নিঝড় এথেনা। যার প্রভাবে বুধবার থেকে নিউইয়র্ক, নিউজার্সি সহ বেশকয়েকটি শহরে শুরু হয় বৃষ্টি। সঙ্গে ঘণ্টায় পঞ্চাশ মাইল বেগে ঝোড়ো হাওয়া। তার জেরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিদ্যুতের খুঁটে উপড়ে ও তার ছিঁড়ে, নিস্প্রদীপ লক্ষাধিক বাড়ি। স্যান্ডির তাণ্ডবে দীর্ঘদিন অন্ধকারে ডুবে থাকার পর যেসব বাড়িতে বিদ্যুত সংযোগ স্থাপিত হয়েছিল, এথেনার থাবার ফের আঁধার নেমে এলো তাঁদের জীবনে। নিউইয়র্কের স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, শহরে কবে ফের বিদ্যুত সরবরাহ স্বাভাবিক হবে, সেটা এখন তাদের পক্ষে বলা সম্ভব নয়। কারণ বৃষ্টি চলতে থাকায় মেরামতির কাজও করতে পারছেন না কর্মীরা। এঅবস্থায় নিউইয়র্কবাসীর জন্য বিশেষ কমিউনিটি হল খুলেছে স্থানীয় প্রশাসন। সেখানে কম্বল এবং ব্যাটারি চালিত হিটার দেওয়া হয়েছে।

স্যান্ডির রেশ কাটিয়ে এবার লড়াই ঘুরে দাঁড়ানোর

বিপর্যয়ের রেশ কাটিয়ে এবার স্বাভাবিক জীবনের ছন্দে ফেরার লড়াই। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত আমেরিকায় সেই চেষ্টাই চলছে যুদ্ধকালীন তত্‍পরতায়। নিউ ইর্য়ক থেকে নিউ জার্সি, ডেলাওয়ার থেকে মেরিল্যান্ড সব জায়গায় একই ছবি। কোথাও চলছে উদ্ধারকাজ, কোথাও চলছে রাস্তা সারাই, জমা জল সরানোর কাজ। বিদ্যুত্‍ পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিকের পথে। নিউ ইর্য়কের বিমানবন্দরে শুরু হয়েছে উড়ান। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে যে সময় লাগবে, তা মানছেন সকলেই।

স্যান্ডি বিধ্বস্ত আমেরিকায় মৃত ৪৮

হ্যারিকেন স্যান্ডির তাণ্ডবে তছনছ হয়ে গিয়েছে আমেরিকার পূর্ব উপকূলের বিস্তীর্ণ এলাকা। ঝড়ের কারণে এখনও পর্যন্ত ৪৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। যার মধ্যে নিউ ইয়র্কেই মারা গিয়েছেন ১৮ জন। বিশ্বের সবচেয়ে ধনী দেশের অর্থনৈতিক রাজধানীর যাবতীয় লেনদেন বন্ধ। বন্ধ রাষ্ট্রসংঘের অফিস। জলমগ্ন নিউ ইয়র্কের ভূগর্ভস্থ রেল ব্যবস্থা। বন্ধ শহরের তিনটি প্রধান বিমানবন্দর। দেশজুড়ে বাতিল হয়েছে দেড়হাজার উড়ান।

আমেরিকার পূর্ব উপকূলে আছড়ে পড়ল স্যান্ডি

আমেরিকার উত্তর পূর্ব তটরেখায় আছড়ে পড়ল সুপারস্টর্ম স্যান্ডি। ঝড়ের দাপটে এখনও পর্যন্ত দশ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ঝড়ের দাপটে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে নিউ জার্সি, নিউ ইয়র্ক, মেরিল্যান্ড, পেনসিলভ্যানিয়া ও কানেক্টিকাট। প্রবল ঝড় বৃষ্টিতে কার্যত স্তব্ধ আমেরিকার পূর্ব উপকূলের জনজীবন। গ্রাউন্ড জিরো, অ্যাটলান্টিক সিটি সহ অনেকগুলি শহর জলমগ্ন। বিদ্যুৎহীন প্রায় তিন লক্ষ মানুষ।