জোট ভাঙার কোনও প্রশ্ন নেই বলছেন অধীর, রবীন

জোট ভাঙার কোনও প্রশ্ন নেই বলছেন অধীর, রবীন

যে বারোটি আসন নিয়ে সমস্যা রয়েছে, সেবিষয়ে রাতেই সিপিএম রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর একাধিক সদস্যের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন অধীর চৌধুরী। তাঁর বক্তব্য,জোট ভাঙার কোনও প্রশ্ন নেই। জোট হবেই। যেসব আসন আলোচনার ভিত্তিতে চূড়ান্ত হয়েছে তা মানতে হবে দুপক্ষকেই। কংগ্রেসের আসনে বামেরা প্রার্থী দিলে সে সব আসনে কংগ্রেসও প্রার্থী দেবে। প্রয়োজনে দ্বিপাক্ষিক লড়াই হবে। তবে আলোচনার দরজা খোলা থাকছে।

 সিঙ্গুরের মঞ্চ থেকে কংগ্রেসকে সরাসরি জোট বার্তা দিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সিঙ্গুরের মঞ্চ থেকে কংগ্রেসকে সরাসরি জোট বার্তা দিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

সিঙ্গুরের মঞ্চ থেকে কংগ্রেসকে সরাসরি জোট বার্তা দিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। হাত শিবিরের প্রতি তাঁর বার্তা, রাজ্যকে বাঁচাতে একসঙ্গে চলতে হবে। জোট নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করুক কংগ্রেস। যদিও, বুদ্ধবাবুর জোট প্রত্যাশায় কিছুটা হলেও জল ঢেলেছেন  প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। তাঁর মন্তব্য, জোট নিয়ে তাড়াহুড়ো নেই কংগ্রেসের।

লোকসভাতেও চা-বাগানের দুরবস্থার কথা তুললেন অধীর চৌধুরী লোকসভাতেও চা-বাগানের দুরবস্থার কথা তুললেন অধীর চৌধুরী

তিন মাসে একশো ছয়। মৃত্যু-মিছিল  উত্তরবঙ্গে চা- বাগানগুলিতে। শুধু বাগানের নামটাই যা আলাদা। দুরবস্থার ছবি এক। আজও বীরপাড়ায় গেরগেন্ডা চা-বাগানে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। পরিবারের দাবি, অপুষ্টির কারণেই এই মৃত্যু। আজ লোকসভাতেও চা-বাগানের দুরবস্থার ইস্যুটি তোলেন কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী।

সোমেনের অপমান সহ্য করবে না কর্মীরা, অধীরের সামনেই ধুন্দুমার বৈঠকে

ফের কংগ্রেসের বৈঠকে কর্মীদের মধ্যে বেধে গেল মারপিট। সোমেন মিত্রের নাম করে কটূক্তি করায় অধীর চৌধুরীর সামনেই বক্তার ওপর চড়াও হন কর্মীরা। কলকাতা জেলা কংগ্রেসের কর্মী বৈঠকে ঘটে গেল ধুন্দুমার কাণ্ড। শেষ পর্যন্ত অবশ্য কোনওক্রমে অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনেন অধীর চৌধুরীই। তবে এর রেশ যে বহুদূর পর্যন্ত গড়াবে সেই ছবিটাও ছিল স্পষ্ট।

অন্তর্বর্তী রেল বাজেটে বাংলা পেল ১২টি নতুন ট্রেন

অন্তর্বর্তী রেল বাজেট হলেও বাংলার প্রাপ্তি খারাপ নয়। দেশের ৭৩টি নতুন ট্রেনের মধ্যে ১২টি পেল এ রাজ্য। মোট ১৭টি প্রিমিয়াম ট্রেনের মধ্যেও ৬টি বাংলার দখলে। এই কৃতিত্ব রেল প্রতিমন্ত্রী অধীর চৌধুরীর বলেই দাবি কংগ্রেসের।

বেঙ্গল লিডসকে যাত্রাপালের সঙ্গে তুলনা অধীরের

হলদিয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর শিল্প সম্মেলনকে যাত্রাপালার সঙ্গে তুলনা করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অধীর চৌধুরী। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্যের কথায় তামাশা। তৃণমূল কংগ্রেস তাদের ওপর অত্যাচার বন্ধ না করলে প্রত্যাঘাতের হুমকি দিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস নেতারা।

মমতার জমানার রেল আর অধীরের রেলের ফারাক

রেলের অনুষ্ঠানের খরচ ঘিরে রীতিমতো চাঞ্চল্যকর তথ্য। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের জমানায় রেলের একটি অনুষ্ঠানের জন্য খরচ হত প্রায় ৬ লক্ষ টাকা। সোমবার অধীর চৌধুরীর রেলের অনুষ্ঠানের খরচ লাখ টাকার কম। কেমন করে সম্ভব? তা নিয়েই এই বিশেষ প্রতিবেদন। পুরানো সেই দিনের কথা। রেলের চোখ ধাঁধানো জাঁকজমক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে ডাক পড়ত নামীদামী শিল্পীদেরও। দু চারটে গান গাওয়ার জন্য কেউ পেতেন ৬০ হাজার কেউ বা তারও বেশি।

মুখ্যমন্ত্রীর জনসভায় বন্ধ হল মাইক, অন্তর্ঘাতের অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

মুখ্যমন্ত্রীর প্রথম মুর্শিদাবাদ সফর। বহরমপুরে তাঁর প্রথম জনসভায় প্রশাসনের চূড়ান্ত ব্যার্থতার নজির সৃষ্টি হল। মুখ্যমন্ত্রী সভায় বক্তব্য শুরু করার ১০ মিনিটের মধ্যেই যান্ত্রিক গোলযোগে মাইক বন্ধ হয়ে যায়। ভেঙে পড়ে ব্যারিকেড। যার জেরে জনপ্লাবন মুখ্যমন্ত্রীর সভা মঞ্চের একেবারে সামনে এসে দাঁড়ায়।

এক সাথে চলা নয়, একে অপরের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ডাক কংগ্রেস-তৃণমূলের

ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীকে ঘিরে শহরে শক্তি পরীক্ষার লড়াইয়ে নামল কংগ্রেস ও তৃণমূল। মহাজাতি সদনে সংগঠনের ৭৯তম প্রতিষ্ঠাদিবস পালন করে ছাত্র পরিষদ। উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা।

মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে স্বাগত প্রণবের, কটাক্ষ প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের

কংগ্রেসের প্রবল চাপের কাছে নতিস্বীকার করে প্রণব মুখার্জিকে সমর্থন করতে বাধ্য হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট সম্পর্কের ক্ষেত্রে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বকে নিয়ে তাঁর তিক্ততা গোপন করেননি মুখ্যমন্ত্রী।

পেট্রোল ইস্যুতে মমতার মিছিল, কটাক্ষ বাম-বিজেপি, কংগ্রেসরও

পেট্রোলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পথে নামলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তেল কোম্পানিগুলির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শনিবার যাদবপুর থানা থেকে হাজরা পর্যন্ত মিছিল করে কেন্দ্রে প্রধান সহযোগী দল তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে মিছিলে পা মেলান প্রচুর তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী-সমর্থক।

তেলের আগুন ছড়াল দুই শরিকের সম্পর্কে

পেট্রোলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শনিবার যাদবপুর থেকে হাজরা পর্যন্ত পদযাত্রা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বে এই মিছিল যাদবপুর থেকে শুরু হয়ে আনওয়ার শাহ রোড, টালিগঞ্জ ফাঁড়ি, মুদিয়ালি, রাসবিহারী হয়ে পৌঁছবে হাজরায়।

অধীরের ঘাঁটিতে তৃণমূলের হানা

অধীর চৌধুরীর খাসতালুকে ভাঙন ধরাতে এবার সক্রিয় হল তৃণমূল কংগ্রেস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে দল ভাঙানোর এই প্রক্রিয়ার দায়িত্বে রয়েছেন মুকুল রায়। তৃণমূলের দাবি, বহু অধীর ঘনিষ্ঠ তাদের দলে আসতে চলেছেন। যদিও, কংগ্রেসের পাল্টা বক্তব্য, টাকা দিয়ে দল ভাঙাচ্ছে তৃণমূল। সোমবারই জেলা পরিষদের ১০ জন সদস্য কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম লক্ষ্য ছিল অধীর চৌধুরীর তালুকে ভাঙন ধরানো।

মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ, জোটে জটিলতা, মহাকরণ থেকে বিদায় মন্ত্রী মনোজের

জটিলতার চরমে কংগ্রেস-তৃণমূল জোট। কোনও রাখঢাক না-করে মঙ্গলবার মহাকরণে দাঁড়িয়েই মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন কংগ্রেস নেতা তথা রাজ্যের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ প্রতিমন্ত্রী মনোজ চক্রবর্তী।