আই লিগের প্রচার বাড়াতে তৈরি হবে ফান্ড, টাকা দেবে ফেডারেশন ও ক্লাব

আই লিগের প্রচার বাড়াতে তৈরি হবে ফান্ড, টাকা দেবে ফেডারেশন ও ক্লাব

আই লিগের প্রচার ও বিপনণ বাড়াতে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন ও আই লিগ খেলা ক্লাবগুলো একসঙ্গে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিল। বৃহস্পতিবার ক্লাবগুলোর সঙ্গে ফেডারেশনের বৈঠকে আই লিগকে আরও জনপ্রিয় করার দিকে বাড়তি জোর দেওয়া হয়। সেখানে ঠিক হয়ে লিগের প্রচার বাড়াতে একটি ফান্ড তৈরি করা হবে। আই লিগ খেলা প্রতিটা ক্লাব সেই ফান্ডে টাকা দেবে। ক্লাবগুলো যা পরিমান টাকা দেবে, ফেডারেশনও সেই টাকা ফান্ডে দেবে। এই ফান্ড থেকে টাকা খরচ করা হবে সারা দেশ জুড়ে আই লিগের প্রচার বাড়াতে। তবে এই ধরনের প্রচেষ্টা নিয়ে প্রশ্ন থাকছেই। পুণে এফসি, বেঙ্গালুরুর মতো ক্লাবের পক্ষে বাড়তি টাকা খরচ করা সমস্যার বিষয় নয়। তবে আই লিগের অনেক ক্লাবেরই আর্থিক সমস্যা রয়েছে। কো-স্পনসরের অভাবও রয়েছে। ক্লাব লাইসেন্সিংয়ের জন্য ইউথ ডেফেলপমেন্ট করতে গিয়ে অর্থ খরচ করতে হয় ক্লাবগুলোকে। এই অবস্থায় আই লিগের প্রচার বাড়াতে ফান্ড তৈরি করা কতটা সম্ভব হবে ক্লাবগুলোর পক্ষ থেকে সেই নিয়ে প্রশ্ন থাকছেই। 

দুর্নীতি বিরোধী ইউনিট খুলছে ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন

এবার বিশেষ দুর্নীতি বিরোধী ও নিরাপত্তা ইউনিট পেতে চলেছে অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন। আই-লিগ ও ইন্ডিয়ান সুপার লিগে দুর্নীতি রুখতেই এই বিশেষ ইউনিটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফেডারেশনের সহ সভাপতি সুব্রত দত্ত।

শাস্তি বেড়ে তিন ম্যাচ নির্বাসিত ওডাফা

ডার্বি কাণ্ডের জের। বাড়তি এক ম্যাচ নির্বাসিত হলেন ওকেলি ওডাফা। বাড়তি এক ম্যাচ নির্বাসিত করার পাশাপাশি দেড় লক্ষ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে তাঁকে। নয়ই ডিসেম্বর বিতর্কিত ডার্বি ম্যাচে ওডাফা লালকার্ড দেখার পর মাঠে গণ্ডগোল ছড়িয়ে পড়ে। দর্শকদের ছোঁড়া ইঁটের আঘাতে আহত হয়েছিলেন রহিম নবি। রেফারি আর ম্যাচ কমিশনারের রিপোর্টে অভিযুক্ত হয়েছিলেন মোহনবাগান অধিনায়ক। এমনকি বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলিও তার রিপোর্টে ওডাফার আচরণ সঠিক ছিল না বলে জানিয়েছিলেন।

ফেডারেশনকে কৌশলে চাপ ইস্টবেঙ্গলের

এক অভিনব সিদ্ধান্তে ফেডারেশনকে চাপে রাখার চেষ্টা করল ইস্টবেঙ্গল। বুধবার ইস্টবেঙ্গলের কর্মসমিতির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে জনসমর্থন এবং শতাব্দী প্রাচীন ক্লাব প্রসঙ্গ টেনে মোহনবাগানকে নির্বাসন মুক্ত করা হয়েছে, তাহলে মহমেডান স্পোর্টিংকে কেন আই লিগে খেলার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। এই আর্জি ফেডারেশনের কাছে।

ভর্ত্‍‍সনা, শাস্তির মুখে পড়েও পদত্যাগে নারাজ কর্তারা

মোহনবাগানের ঐতিহ্যের কথা ভেবেই সাসপেনশন রদ করা হয়েছে, জানিয়েছেন ফেডারেশনের সভাপতি প্রফুল্ল প্যাটেল৷ কর্মসমিতির বৈঠক শেষে প্রফুল্ল প্যাটেল জানান, "মোহনবাগানের ঐতিহ্য ও ক্লাব সমর্থকদের আবেগের কথা মাথার রেখেই নির্বাসন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ তবে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে আর শাস্তি পুনর্বিবেচনা করা হবে না৷ এই প্রথম এবং এটাই শেষ সুযোগ দেওয়া হল মোহনবাগানকে৷" সেই সঙ্গে তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দেন, পরবর্তী সময়ে মোহনবাগান তো বটেই অন্য কোনও দলের ক্ষেত্রে নরম মনোভাব দেখাবে না ফেডারেশন।

আজ বাগানের ভাগ্যপরীক্ষা

মোহনবাগানের নির্বাসন নিয়ে আজ ফেডারেশনের কর্মসমিতির বৈঠক। বৈঠকে যোগ দিতে সোমবার সকালে নয়াদিল্লি গেছেন মোহনবাগানের চার শীর্ষকর্তা। সভাপতি টুটু বসু, সচিব অঞ্জন মিত্র ও অর্থসচিব দেবাশিস দত্ত কাল সকালেই রাজধানীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। নয়াদিল্লি পৌঁছে গিয়েছেন সহসচিব সৃঞ্জয় বসু। কলকাতা ছাড়ার আগে সভাপতির দাবি, ক্লাবের নির্বাসন তোলার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করবেন তাঁরা।

মোহনবাগানকে ফের বলার সুযোগ ফেডারেশনের

আগামী ১৫ জানুযারী ফেডারেশনের কর্মসমিতির বৈঠকে মোহনবাগানকে ডাকছে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা। নিজেদের শাস্তি পুনর্বিবেচনা করার জন্য ফেডারেশনের ১৫ জানুযারী ফেডারেশনের কর্মসমিতির বৈঠকে মোহনবাগানকে ডাকছে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা। নিজেদের শাস্তি পুনর্বিবেচনা করার জন্য ফেডারেশনের কর্মসমিতিতে আবেদন করেছে সবুজ-মেরুন কর্তারা। মোহনবাগানের শাস্তির পুনর্বিবেচনা করার জন্য ১৫ তারিখ বৈঠকে বসবে ফেডারেশনের সর্বোচ্চ কমিটি।

মোহনবাগানের ভাগ্য খোলে কি না তার জবাব ১৫ জানুয়ারি

চলতি আই লিগে মোহনবাগান খেলার সুযোগ পাবে কিনা কিংবা মোহনবাগানের শাস্তি কমবে কিনা,সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে ১৫ জানুয়ারি। সেদিন রাজধানীতে বসছে ফেডারেশনের কার্যকরী সমিতির বৈঠক। কয়েকদিন আগেই নির্বাসনের বিরুদ্ধে ফেডারেশনের কার্যকরী সমিতিতে আপিল করেছিলেন মোহনবাগানের কর্তারা। সেই বৈঠকে মোহনবাগানের শাস্তির বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করবে ফেডারেশনের সর্বোচ্চ কমিটি।

ডার্বি কাণ্ডে আইএফকে হুঁশিয়ারি ফেডারেশনের

গত ৯ ডিসেম্বর ডার্বি ম্যাচকে ঘিরে যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে গেছে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে, তার দায় এড়াতে পারে না আইএফএও। এই মর্মে আইএফএকে কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে সতর্ক করল ফেডারেশন।  

ডার্বি কাণ্ডের ম্যারাথন শুনানি,`ব্যাকফুটেই` থাকল মোহনবাগান

সোমবার নয়া দিল্লিতে ডার্বি কাণ্ডের শুনানি হল। দীর্ঘ সাড়ে পাঁচ ঘন্টা চলা এই শুনানির প্রথম দিকে মূলত ম্যাচের গণ্ডগোলের ভিডিও দেখেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলি। তারপর মোহনবাগান এবং ফেডারেশন, দুই পক্ষেরই বক্তব্য শোনেন বিচারপতি। মোহনবাগানের বক্তব্য ছিল ডার্বি ম্যাচের দিন মাঠে নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা ছিল না। গ্যালারি থেকে ছোঁড়া ঢিলে তাঁদের এক ফুটবলার আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন। এই অবস্থায় দল তুলে নেওয়া ছাড়া আর কোন উপায় ছিল না তাঁদের কাছে। এব্যাপারে ফিফার সংবিধানও উদ্ধৃত করেন তাঁরা।

দেশের বর্ষসেরা ফুটবলার রহিম নবি

এবছর দেশের সেরা ফুটবলার নির্বাচিত হলেন রহিম নবি। মোহনবাগানের এই ফুটবলার এবছর দেশের হয়ে অনবদ্য পারফরম্যান্স করেন। হাউটনের আমলে দলে সেভাবে সুযোগ না পেলেও কোয়েভারম্যান্সের আমলে নিয়মিত প্রথম একাদশে খেলছেন তিনি। সঠিক ব্যবহারে প্রতি ম্যাচেই নিজেকে ছাপিয়ে গেছেন বাংলার এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। পাশাপাশি ক্লাব ফুটবলেও তাঁর পারফরম্যান্স ছিল নজর কাড়া।

ডার্বি বিতর্কের শুনানিতে মোহনবাগানের দাবি খারিজ

ডার্বি বিতর্কের শুনানিতে মোহনবাগানের আর্জি খারিজ করলেন বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলি।মোহনবাগান ফেডারেশনের কাছ থেকে স্টেডিয়াম সংক্রান্ত বেশ কিছু নথি চেয়েছিল।কিন্তু মোহনবাগানের সেই আর্জি খারিজ করে দেন বিচারপতি।

ডার্বি ডামাডোলের শুনানি আগামী সপ্তাহে

ডার্বি ম্যাচ বিতর্কের তদন্তে একসদস্যের কমিশন গঠন করল এআইএফএফ। সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি এবং রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক কুমার গাঙ্গুলিকে নিয়ে গঠিত হচ্ছে এই কমিশন। ২৪ শে ডিসেম্বর দিল্লিতে মোহনবাগান এবং এআইএফএফ-এর বক্তব্য শুনবেন তিনি। খতিয়ে দেখবেন ওই ম্যাচের ভিডিও ক্লিপিংসও। সেদিন মোহনবাগানের নিরাপত্তাহীনতার দোহাই দিয়ে দল তুলে নেওয়া কতটা যুক্তিযুক্ত ছিল মূলত সেটাই বিচার করবেন তিনি। ফেডারেশন তাঁকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাঁর রায় জানাতে অনুরোধ করেছে।

রেফারিকে নিগ্রহ করে নির্বাসিত ক্লাইম্যাক্স

ডেম্পোর মিডফিল্ডার ক্লাইম্যাক্স লরেন্সকে দুম্যাচের জন্য নির্বাসিত করল ফেডারেশন। ইস্টবেঙ্গল-ডেম্পো ম্যাচে রেফারিকে মারধরের অভিযোগ উঠেছিল ডেম্পো ফুটবলারদের বিরুদ্ধে। ম্যাচের ভিডিও রিপ্লে দেখে শাস্তি নিল ফেডারেশন। এই ম্যাচেই পেনাল্টি না দেওয়ায় সাসপেন্ড করা হয় রেফারিকে। ক্লাইম্যাক্সকে নির্বাসিত করার পাশাপাশি সতর্ক করা হয়েছে ডেম্পোর জাপানি স্ট্রাইকার সুয়েকাকেও।

পেনাল্টি না দিয়ে নির্বাসিত রেফারি

আই লিগে ইস্টবেঙ্গল-ডেম্পো ম্যাচের রেফারি অজিত মিতাইকে এক মাসের জন্য নির্বাসিত করল রেফারি। যুবভারতীতে সেই ম্যাচে ডেম্পোকে একটি নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত করেন মণিপুরের এই রেফারি। তারপরই ফেডারেশন অজিত মিতাইকে একমাসের জন্য ম্যাচ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তাঁকে ফিফা রেফারি শঙ্করের কাছে বিশেষ ট্রেনিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে।

অ্যারোজের দশ ফুটবলারকে জরিমানা এআইএফএফ-এর

নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিল সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য পৈলান অ্যারোজের দশ ফুটবলারকে জরিমানা করল এআইএফএফ। চলতি আই লিগে আর্থার পাপাসের তত্ত্বাবধানে দুরন্ত ফুটবল খেলেছ ফেডারেশনের এই দলটি। কিন্তু কয়েকদিন ধরেই অ্যারোজের বেশ কয়েকজন ফুটবলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছিল। অনুশীলনে সঠিক সময়ে না আসা,রাতে হোস্টেলে না থাকার মত অভিযোগ উঠছিল অলউইন জর্জদের বিরুদ্ধে।