আজকের সাক্ষ্যগ্রহণ পর্বেও বিস্ফোরক ডেভিড কোলম্যান হেডলি

আজকের সাক্ষ্যগ্রহণ পর্বেও বিস্ফোরক ডেভিড কোলম্যান হেডলি

আজকের সাক্ষ্যগ্রহণ পর্বেও বিস্ফোরক ডেভিড কোলম্যান হেডলি। ছাব্বিশ এগারো হামলা বাস্তবায়িত করতে পাক গোয়েন্দা সংস্থা ISI তাকে মোটা টাকা দিয়েছিল বলে মুম্বইয়ের বিশেষ আদালতকে জানিয়েছে হেডলি। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেওয়া বয়ানে হেডলি বলেছে, ভারতে আসার আগে মেজর ইকবাল ও সাজিদ মীর তাকে চল্লিশ হাজার পাকিস্তানি রুপি এবং পচিশ হাজার মার্কিন ডলার দিয়েছিল। হেডলির বয়ান অনুযায়ী, লাগাতার অর্থ জুগিয়েছিল তাহাউর হুসেন রানাও। দুহাজার ছয়ের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে লস্কর জঙ্গি তাহাউর হুসেন রানা চার দফায় হেডলিকে মোটা টাকা পাঠায়। ইন্দাস ইন্ড ব্যাঙ্কের নরিম্যান শাখা থেকে হেডলি ওই টাকা তোলে। ছাব্বিশ এগারো মুম্বই হানার অন্যতম চক্রী জানিয়েছে, হামলার আগে মুম্বই এসেছিল রানা।

হত্যালীলা চালিয়ে  কি পাকিস্তানে ফিরে যাওয়ার প্ল্যান ছিল আজমল কসাভদের? হত্যালীলা চালিয়ে কি পাকিস্তানে ফিরে যাওয়ার প্ল্যান ছিল আজমল কসাভদের?

আত্মঘাতী হামলা, নাকি হত্যালীলা চালিয়ে পাকিস্তানে ফিরে যাওয়ার প্ল্যান ছিল আজমল কসাভদের? ডেভিড কোলম্যান হেডলির সাক্ষ্য শোনার পর এখন এমন সন্দেহ উঁকি দিচ্ছে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের ভাবনায়। শুনানি চলাকালীন হেডলিকে ছত্রপতি শিবাজি টার্মিনাসের ছবি দেখানো হয়। হেডলি জানায়, সে ছত্রপতি শিবাজি টার্মিনাসের ভিডিওগ্রাফি করে টার্গেট হিসেবে নয়, জঙ্গিদের পালানোর পথ হিসেবে। যদিও, মার্কিন আদালতে হেডলি যে বয়ান দিয়েছিল তার সঙ্গে এই বয়ানের মিল নেই। সেখানে হেডলি বলে, জঙ্গিরা সমুদ্রপথে ভারতে ঢুকে আমৃত্যু লড়াই চালাবে, লস্করের তরফে তাকে নাকি এমনটাই জানানো হয়।

 সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের ওপর চাপ বাড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামা সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের ওপর চাপ বাড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামা

  সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের ওপর চাপ বাড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। বললেন, শরিফ সরকারকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখাতেই হবে। জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করতে আরও কড়া পদক্ষেপ করতে হবে ইসলামাবাদকে। সংবাদসংস্থা পিটিআই-কে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ভারত দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসবাদের স্বীকার। পাঠানকোট হামলা তারই এক উদাহরণ। তবে, সন্ত্রাস দমনে ইদানিং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ যেভাবে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রেখে চলেছেন তার প্রশংসা করেছেন ওবামা। পাঠানকোট হামলার পরও এই উদ্যোগ চালু থাকার কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেই দিয়েছেন তিনি। মোদী ক্ষমতায় আসার পর দিল্লি-ওয়াশিংটন সম্পর্ক আরও মজবুত হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

বীরভূমের ময়ূরেশ্বর থানায় হামলায় এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার ৯ বীরভূমের ময়ূরেশ্বর থানায় হামলায় এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার ৯

বীরভূমের ময়ূরেশ্বর থানায় হামলার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে ন জন। গতকাল রাতভর চলে পুলিসি তল্লাসি। মাজাইপাড়া সহ আশেপাশের গ্রামগুলিতে ব্যাপক ধড়পাকড় চলছে। কার্যত পুরুষশূন্য সবকটি গ্রাম। জনরোষের মুখে পড়ে গতকাল রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে ময়ূরেশ্বর থানা। মারমুখী জনতার হাত থেকে বাঁচতে থানা ছেড়ে পালান ওসি রাকেশ সাধুখাঁ সহ পুলিসকর্মীরা। দুর্ঘটনায় এক পথচারীর মৃত্যুকে ঘিরে গণ্ডগোল শুরু হয়। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় পুলিসের একটি ভ্যান। থানা ঘেরাও করেও, পুলিসের আরেকটি জিপে আগুন ধরিয়ে দেয় জনতা। থানা ছেড়ে ব্যারাকে আশ্রয় নেয় পুলিস। পরে সিউড়ি থেকে বিশাল বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলে, তারা ফের থানায় ফেরে। 

জাকার্তায় জঙ্গি হামলার রেশ না কাটতেই ফের হামলা বুরকিনা ফাসোয় জাকার্তায় জঙ্গি হামলার রেশ না কাটতেই ফের হামলা বুরকিনা ফাসোয়

জাকার্তায় জঙ্গিহানার রেশ এখনও কাটেনি। এরমধ্যেই ফের হামলা। এবার বুরকিনা ফাসোয়। আফ্রিকার এই দেশে জঙ্গি হানায় এখনও পর্যন্ত কুড়ি জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। আহতের সংখ্যা কমপক্ষে পনের। এক মন্ত্রী সহ ৬৩ জন পণবন্দিকে উদ্ধার করেছে পুলিস। বুরকিনা ফাসোর রাজধানীতে একটি হোটেলে হানা দেয় আল কায়দা জঙ্গিরা। নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে চলে ধুন্ধুমার গুলির লড়াই। হোটেলে থাকা অতিথিদের পণবন্দি করে নেয় জঙ্গিরা। গুলিতে মৃত্যু হয় অনেকের। আতঙ্কে পালাতে গিয়ে আহত হন বেশ কয়েকজন। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। 

পাঠানকোট হামলার সত্যতা যাচাই, পলিগ্রাফ টেস্টের মুখোমুখি এসপি সালবিন্দার সিং পাঠানকোট হামলার সত্যতা যাচাই, পলিগ্রাফ টেস্টের মুখোমুখি এসপি সালবিন্দার সিং

এবার পলিগ্রাফ টেস্টের মুখোমুখি গুরদাসপুরের এসপি সালবিন্দার সিং। আগামী সপ্তাহে দিল্লিতে তাঁর পলিগ্রাফ টেস্ট করাতে চলেছে NIA। পাঠানকোট হামলা নিয়ে সালবিন্দর যে সব তথ্য দেন, তার সত্যতা যাচাই করতে এই টেস্ট করানোর সিদ্ধান্ত। গতকালই তাঁকে আরেক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করেন NIA গোয়েন্দারা। এনিয়ে গত কয়েকদিনে পাঁচবার জেরার মুখোমুখি হলেন তিনি। এছাড়া সালবিন্দরকে তাঁর রাঁধুনি এবং কেয়ারটেকারের মুখোমুখি বসিয়েও জেরা করে NIA। কিন্তু সন্তুষ্ট হতে পারেননি গোয়েন্দারা। সূত্রের খবর, এসপির বয়ানে অনেক অসঙ্গতি মিলেছে। আজই আদালতে সালবিন্দারের পলিগ্রাফি টেস্ট করার অনুমতি চাইতে চলেছে NIA। ইতিমধ্যেই এসংক্রান্ত অনুমতি এসে গিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে।

পাঠানকোটে জঙ্গি হামলার পর প্রধানমন্ত্রীর লাহোর সফর নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা পাঠানকোটে জঙ্গি হামলার পর প্রধানমন্ত্রীর লাহোর সফর নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা

পাঠানকোটে জঙ্গি হামলার পর প্রশ্নের মুখে মোদী সরকারের পাকিস্তান নীতি। নিজের দেশকে অন্ধকারে রেখে, প্রধানমন্ত্রীর লাহোর সফরের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা। দিল্লি-ইসলামাবাদ যখনই আলোচনার টেবিলে বসেছে, তখনই পাক জঙ্গিদের বড়সড় সন্ত্রাসের নিশানায় এসেছে ভারত। বিরানব্বইয়ে দিল্লি-লাহোর বাস পরিষেবা শুরু করেছিলেন তত্‍কালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী। কিন্তু বাসের চাকা গড়াতেই শুরু হয়েছিল কার্গিল যুদ্ধ। মোদী জমানাতেও ফিরে এল সেই স্মৃতি। গত ডিসেম্বরে আফগানিস্তান থেকে ফেরার পথে আচমকা লাহোরে নওয়াজ শরিফের মেয়ের বিয়েতে যান মোদী। তার কিছুদিনের মধ্যেই পাঠানকোটে জঙ্গি হানা। মোদীর বক্তব্য, পাকসেনা, মোল্লাতন্ত্রের চাপ এড়িয়ে শরিফ যদি দুদেশের সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যেতে চান, তাহলে আলোচনায় আপত্তি কীসের? উল্টোদিকে বিরোধীদের প্রশ্ন, পাক প্রধানমন্ত্রীর টিকি যদি সেনা আর মোল্লাতন্ত্রের হাতেই বাঁধা থাকে, তাহলে শুধু শুধু নওয়াজের সঙ্গে হৃদ্যতা বাড়ানোর যুক্তি কী? পাঠানকোট হামলার পর আরও জোরাল এই বিতর্ক।