বর্ধমান কাণ্ড: বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী না সিমি? কেন্দ্রীয় গোয়ান্দা সংস্থা-রাজ্যের রিপোর্টের ফারাকে বাড়ছে রহস্য  বর্ধমান কাণ্ড: বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠী না সিমি? কেন্দ্রীয় গোয়ান্দা সংস্থা-রাজ্যের রিপোর্টের ফারাকে বাড়ছে রহস্য

বর্ধমান বিস্ফোরণের পিছনে কারা? এ নিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ও রাজ্যের রিপোর্টে বিস্তর ফারাক। বিস্ফোরণের জন্য বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীকেই দায়ী করেছেন রাজ্য সরকার। বাংলাদেশের যোগের উল্লেখ NIA -রিপোর্টেও রয়েছে। কিন্তু, তাঁরা আরও বেশি জোর দিয়েছে সিমির ওপর। সিমি প্রশ্নে আবার রাজ্যের রিপোর্ট নীরব। বর্ধমান বিস্ফোরণ নিয়ে রাজ্যের রিপোর্টে বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীর দিকেই আঙুল তোলা হয়েছে। বলা হয়েছে অভিযুক্তেরা সকলেই বাংলাদেশের জামাত-উল-মুজাহিদিন সংক্ষেপে JMB-র সদস্য। এবং সেই যোগসূত্রের মূলে রয়েছেন নিহত শাকিল গাজি। রিপোর্টে উল্লেখ,

নিউইয়র্কে ২৭ সেপ্টেম্বর মোদী-হাসিনা বৈঠক নিউইয়র্কে ২৭ সেপ্টেম্বর মোদী-হাসিনা বৈঠক

ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগামী সাতাশে সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে বসবে মোদী-হাসিনা বৈঠক।  বিদেশমন্ত্রক সূত্রে এখবর জানানো হয়েছে। এদিকে আজই ভারত সফর সেরে দেশে ফিরে গেলেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী। তাঁর উপস্থিতিতে কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সই হয়েছে। তবে  তিস্তার জল বন্টন ও স্থলসীমান্ত  চুক্তি নিয়ে জটিলতা কাটেনি।ভারত সফরে এসে শুক্রবার  প্রধানমন্ত্রী র সঙ্গে দেখা করেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী আবুল হাসান মহম্মদ আলি। মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান তিনি। তখনই শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন মোদী।  রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের বৈঠকে যোগ দিতে এ মাসেই নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বৈঠকের মাঝেই আলোচনায় বসবেন দুই প্রধানমন্ত্রী।