শীতে জমজমাট পাহাড়ের রাজনীতি, কংগ্রেস বা বামেদের সঙ্গে জোট করতে পারে মোর্চা শীতে জমজমাট পাহাড়ের রাজনীতি, কংগ্রেস বা বামেদের সঙ্গে জোট করতে পারে মোর্চা

জমে গেল পাহাড়ের রাজনীতি। পাহাড় সফরে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইঙ্গিত দেন, পাহাড়ের বাকি সব দলগুলিকে জড়ো করে মোর্চার বিরুদ্ধে প্রার্থী দিতে পারে তৃণমূল। প্রার্থী হিসেবে বেছে নেওয়া হতে পারে একদা বিমল গুরুংয়ের কাছের কাউকে। আজ পাল্টা দিলেন বিমল গুরুং। বললেন, তৃণমূলের বিভাজনের রাজনীতির মোকাবিলায় কংগ্রেস বা বামেদের সঙ্গেও জোট করতে পারে মোর্চা। বস্তুত শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন, এভাবে বিজেপিকেও বার্তা দিলেন মোর্চা সভাপতি। কারণ মোর্চা কংগ্রেস কিংবা বামেদের সঙ্গে জোট বাঁধলে পাহাড়ে ক্ষতি বিজেপিরই। একই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, জিটিএ আইন মানছে না রাজ্য সরকার নিজেই।

হরকায় হড়কালো মোর্চা, দল ছাড়লেন কার্শিয়ংয়ের বিধায়ক হরকায় হড়কালো মোর্চা, দল ছাড়লেন কার্শিয়ংয়ের বিধায়ক

পাহাড়ে রাজনীতির নাটক জমিয়ে দিয়ে মোর্চা ছাড়লেন হরকা বাহাদুর ছেত্রী। আর দলত্যাগের পর দল সম্পর্কে বিস্ফোরক তিনি। মোর্চা সুপ্রিমোকে স্বৈরাচারী বলতেও ছাড়লেন না। এবার কি তবে যোগ দেবেন তৃণমূলে ?  তৃণমূল শিবিরের প্রচ্ছন্ন মদতেই কি এতটা সাহসী হরকা বাহাদুর?  ইতিমধ্যেই সেরে ফেলেছেন এক মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকও। তবে প্রশ্নের সরাসরি জবাব না দিয়ে জল্পনা জিইয়ে রাখলেন তিনি। বিধায়ক পদে ইস্তফা দেওয়া নিয়ে বিতর্কের জেরে মোর্চা নেতৃত্বের সঙ্গে ফারাকটা বড় হচ্ছিল। শুক্রবার একেবারে চিড় ধরে গেল তাতে। মোর্চা ছাড়লেন, কিন্তু বিধায়ক পদে থেকে গেলেন হরকা বাহাদুর ছেত্রী।