বইমেলায় প্রকাশিত বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নতুন বই

বইমেলায় প্রকাশিত বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নতুন বই

এবার বই মেলায় আত্মপ্রকাশ করল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নতুন বই। অনেকগুলি প্রবন্ধ মিলিয়ে একটি বই। মূলত রাজনৈতিক নানা ইস্যুর সমাহার। বিশ্লেষণের ঢঙে অতীত-বর্তমানকে নিয়ে কাঁটাছেঁড়া। দেদার বিকোচ্ছেও সেই বই।

তুণীরের জয়দেব বসু সংখ্যা প্রকাশ করলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

কবি জয়দেব বসুকে নিয়ে তুণীরের বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। পত্রিকাটি উদ্বোধন করে তিনি বলেন, "রাজনৈতিক বিশ্বাস দৃঢ় থাকলেই ভাল কবিতা লেখা যায় না। কবিতা লেখার জন্য বিশ্বাসের পাশাপাশি প্রয়োজন হয় আলাদা দক্ষতারও।" সিপিআইএমের সদর দফতর মুজফ্ফর আহমেদ ভবনে সোমবার প্রকাশিত হল এই পত্রিকাটি।

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে নোটিস পাঠাল তৃণমূল

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে আইনি নোটিস পাঠাল তৃণমূল। আটচল্লিশ ঘণ্টার মধ্যে তথ্যপ্রমাণ না দিলে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করা হবে। এই মর্মে জানানো হয়েছে নোটিসে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সত্‍, একথা মানতে নারাজ তিনি, চব্বিশ ঘণ্টার স্টুডিওয় এই মন্তব্য করেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। সেই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়াতেই আইনি নোটিস পাঠিয়েছে তৃণমূল।

`সততা` বিতর্কে যুযুধান দুই পক্ষ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সত্‍, একথা তিনি মানেন না। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের বিরোধিতায় এবার পাল্টা আক্রমণে নামলেন তৃণমূল নেতারা। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর সততা নিয়ে গোটা দেশে কোনও প্রশ্ন নেই। অথচ মানুষ নির্বাচনে যাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন, সেই বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য এসব প্রশ্ন তুলছেন। সেই কারণে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মানসিক ভারসাম্য নিয়েই প্রশ্ন তুললেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী।

রাজ্যসরকারের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধের ডাক বুদ্ধদেবের

পঞ্চয়েত নির্বাচনে মানুষের রায় বানচাল করার চেষ্টা চালাবে রাজ্য সরকার এবং শাসক দল। শনিবার দমদমে দলের এক কর্মিসভায় একথা বলেন সিপিআইএম নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। পঞ্চায়েতের লড়াইয়ে দুলীয় কর্মীদের এক ইঞ্চি জমিও না ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের লক্ষ্যে সর্বাত্মকভাবে  নেমে পড়ার পরিকল্পনা করেছে সিপিআইএম। 

মেলালেন, তিনি মেলালেন...

তিনি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়। যাঁদের দেখা যায় সারাবছর যুযুধান, কবিকে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁরা সবাই একসঙ্গে নতমস্তক। রবীন্দ্র সদনে তখন শেষ শয্যায় শায়িত নীললোহিত। কবির মরদেহের সামনে, প্রেক্ষাগৃহের বাইরে - দেখা গেল রাজনীতিবিদদের সৌজন্যের বিরল ছবি।