শ্রীলঙ্কায় বাঙালির ক্রিকেট দাদাগিরি

সোমবার শ্রীলঙ্কায় দাদাগিরি করল বাংলাদেশের ক্রিকেট। টেস্ট ক্রিকেটে তাদের সর্বোচ্চ রান করল বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের দীর্ঘতম ফর্ম্যাটে ডাবল সেঞ্চুরি করার প্রথম স্বাদ পেল কোনও বাংলাদেশী ক্রিকেটার। দেশে যখন তাদের তরুণ প্রজন্ম শাহবাগ স্কোয়ারে বিপ্লবের পথে হাঁটছে, তখন দেশের বাইরে মহম্মদ আশরাফুল- মুশফিকুর রহিমরা বাইশ গজে দেশের ক্রিকেটে বিপ্লব আনার পথে হাঁটলেন। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করল তাদের সর্বোচ্চ ৬৩৮ রান। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসের রানের চেয়ে ৬৮ রান বেশি।

চেতেরার দ্বিশতরান, হায়দরাবাদ টেস্টে অ্যাডভান্টেজ টিম ইন্ডিয়া

হায়দারাবাদ টেস্টে দুরন্ত দ্বিশত করলেন চেতেশ্বর পূজারা। মুরলী বিজয়ের সঙ্গে  স্বপ্নের জুটিটা শেষ অবধি ভেঙে গেলেও পূজারা টেস্ট ক্রিকেট তাঁর দ্বিতীয় দ্বিশতরান পূর্ণ করলেন। ৩৩২ বলে দ্বিশতরান করেন পূজারা। সেই সঙ্গে গড়ে ফেললেন অনন্য এক রেকর্ড। মাত্র ১১ টেস্ট খেলেই হাজার রান পূর্ণ করার নজির গড়লেন পূজারা। ভারতীয় হিসেবে টেস্টে দ্রুততম হাজার রান করলেন সৌরাষ্ট্রের এই ক্রিকেটার। ছুঁলেন কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকরের রেকর্ড। দ্বিতীয় দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পুজারা এবং মুরলি বিজয় ছাড়া আর কোন ভারতীয় ব্যাটসম্যান প্রথম ইনিংসে দাগ কাটতে পারলেন না। টেস্টের তৃতীয় দিন ৫০৩ রানে প্রথম ইনিংস শেষ করে ভারতীয় দল। 

ধোনি দিবসের এদিক ওদিক

২০৬ রানের এরকম একটা অবিশ্বাস্য অপরাজিত ইনিংস খেলে তিনি তখন ড্রেসিংরুমে ফিরছেন, গোটা মাঠ দাঁড়িয়ে তাঁকে সেলাম ঠুকছে। নতুন বিশ্বরেকর্ড কায়েম করার দিনে মানুষটা দেখে কিন্তু মোটেও ক্লান্ত মনে হচ্ছিল না। সঙ্গী শুধু ঠোঁটের গোড়ায় পরিতৃপ্তির মুচকি হাসি। সেই হাসির খোঁজ করতে আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধোনির প্রথম দ্বিশতরানের ইনিংসটা একটু অন্য চোখে দেখতে এই প্রতিবেদন--

ধোনি ধামালে চেন্নাইয়ে সুপার কিং ভারত

চিপকের ২২ গজ সাক্ষী থাকল মহেন্দ্র সিং ধোনির প্রথম টেস্ট দ্বিশতরানের। কেরিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটার সঙ্গেই মাহি সেরে ফেললেন উইকেট কিপার-অধিনায়ক হিসাবে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ডটাও। অসি বোলিং স্কোয়াডকে নিয়ে রীতিমত ছিনিমিনি খেলে দাপটের সঙ্গে পেরিয়ে গেলেন  ডাবল সেঞ্চুরির গণ্ডি। আজ টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন অনন্য কীর্তিকে শুধু তাঁর ড্রেসিং রুমই নয়, কুর্ণিশ জানাল বিপক্ষ দলের যোদ্ধারাও। সচিনের সেঞ্চুরি দেখতে চিপকে ভিড় জমানো হতাশ জনাতাও শেষ বেলায় অপ্রাত্যাশিত ধোনি ধামালে তাই উদ্বেল।