আজ কোজাগরী লক্ষ্মী পুজো, দুর্গা কন্যাকে গৃহস্থের বাড়িতে প্রতিষ্ঠার দিন, কিন্তু লক্ষ্মীছাড়া বাজারদরের দাপটে ঘুম ছুটেছে সাধারণের

আজ কোজাগরী লক্ষ্মীপুজো। গৃহস্থের বাড়িতে বাড়িতে চলছে লক্ষ্মী আরাধোনার তোড়জোড়। শাঁখ বাজিয়ে, সুগন্ধি ধুপ দিয়ে আজ দুর্গা কন্যাকে বরণ করার পালা। প্রার্থনা একটাই, ঘর আলো করে যেন পাক্কা এক বছর মা লক্ষ্মী পরিবারের একজন হয়েই বিরাজ করেন। পরিবারের একজন হয়েই। মা দুর্গার বিসর্জনের পর ফাঁকা বারোয়ারী মণ্ডপ গুলিতে খুশির রেশ ধরে রেখে উপস্থিত লক্ষ্মী দেবী। চলছে খিচুড়ি, লুচি, লাবড়া সহ বহু সুখাদ্যে ভরা লক্ষ্মী ভোগের প্রস্তুতিও। শীতের খবর নিয়ে হাজির কপিও। কিন্তু বাজার যে লক্ষ্মীছাড়া। তাই সাধ আর সাধ্যের মধ্যে তাল মেলাতে গিয়ে বেশ সমস্যায় পড়েছেন গৃহস্থরা। ফলমুল থেকে শাকসব্জির দাম যেমন বেড়েছে, পাল্লা দিয়ে দাম বেড়েছে প্রতিমারও।

পুজোর আগে ফের কল্পতরু মুখ্যমন্ত্রী, ছোট পুজো গুলিতে এককালীন ৫ হাজার টাকা সরকারি সাহায্যের ঘোষণা

ফের কল্পতরু মুখ্যমন্ত্রী। পুজো ও ইদ উপলক্ষ্যে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে ছিল সমন্বয় বৈঠক। আদতে তা হয়ে দাঁড়াল সরকারি অনুদানের মঞ্চ। শহরের মোট আড়াই হাজার বড় মাপের বারোয়ারি পুজো কমিটিগুলির মধ্যে বিজ্ঞাপন বা স্পনসরশিপ বাবদ যাদের আয় কম, তাদের পুজোর আগে ৫ হাজার টাকা করে সরকারি কোষাগার থেকে অনুদানের কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। মঞ্চ থেকে আটটি দফতরের মন্ত্রীকে নির্দেশ দেওয়া হল এই সাহায্য দেওয়ার। পাশাপাশি সরকারি বিজ্ঞাপন বিশ্ব বাংলা ব্র্যান্ডের ফ্লেক্স বা হোর্ডিং পুজো কমিটি মণ্ডপে লাগালেই তাদেরও এককালীন ৫ হাজার টাকা দেবার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।