গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী!

গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী!

রাজনীতি তাঁদের দেশছাড়া করেছে। শরণার্থী শিবিরই এখন অস্থায়ী ঠিকানা। কোনও মতে খাওয়াটুকু জোটে। তবু ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা পিছিয়ে পড়বে, এ কি চোখে দেখা যায়! গ্রিস-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে তাই স্কুল খুললেন চারজন শরণার্থী। বিনা পয়সার স্কুলে ছাত্রও অনেক জুটে গিয়েছে।

আপনিও মনের বাদশা হলে, এই জায়গাগুলোতে যেতেই হবে আপনিও মনের বাদশা হলে, এই জায়গাগুলোতে যেতেই হবে

শাহরুখ খান। নামটাই যথেষ্ট। বিশেষণ দেওয়ার দরকার নেই। তাঁর ভক্ত নন, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়াটাই কঠিন। তিনি যাতেই হাত দেন তাই সোনা হয়ে যায়। মানে, একটা সাধারণ ছবিকেও অসাধারণ করে তোলার জন্য তার একটা ছোট্ট উপস্থিতিই যথেষ্ট।

 ভোটে জিতে ফের গ্রিসে ক্ষমতায় ফিরলেন সিপ্রাস ভোটে জিতে ফের গ্রিসে ক্ষমতায় ফিরলেন সিপ্রাস

গ্রিসে নির্বাচনে ঝড় তুলে ক্ষমতায় ফিরে এলেন বামপন্থী সিপ্রাস। কিছুটা অপ্রত্যাশিতভাবেই নিষ্পত্তিমূলক নির্বাচনে বিপুল জয় পেলেন তিনি। ফের ক্ষমতায় এসে দেশের বেহাল অর্থনীতির হাল ধরার প্রতিশ্রুতি দিলেন তিনি। 

 উদ্বাস্তু সমস্যা: ৫ লক্ষ শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে প্রস্তুত জার্মানি উদ্বাস্তু সমস্যা: ৫ লক্ষ শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে প্রস্তুত জার্মানি

জার্মানি এক বছরের জন্য ৫ লক্ষ শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে প্রস্তুত।এই দায়িত্ব তারা বেশ কিছু বছরের জন্যই নেবে বলে জানিয়েছেন সে দেশের ভাইস চ্যান্সেলর সিগমার গ্যাব্রিয়েল। সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা  জানিয়েছেন এই মুহূর্তে ৮ লক্ষ মানুষ জার্মানি কাছে আশ্রয় চেয়ে আবেদন করেছেন। ২০১৪ সালের থেকে যা চারগুণ বেশি। এর সঙ্গেই গ্যাব্রিয়েল মন্তব্য করেছেন অনান্য ইউরোপীয় দেশগুলোরও উচিৎ সাধ্যমত এগিয়ে এসে বাস্তুহারা মানুষদের আশ্রয় দেওয়া। 

"আমার হাত পিছলে পড়ে যায় আইলান," বাবার কান্না  "আমার হাত পিছলে পড়ে যায় আইলান," বাবার কান্না

সুমদ্রের তটে মুখ থুবড়ে পড়ে থাকা ছোট্ট শরীরটা দেখে থমকে গিয়েছে বিশ্ব। সিরিয়ার সন্তান ৩ বছরের ছোট্ট আইলান কুর্দি। লাল টি-শার্ট, নীল প্যান্ট অক্ষত। ছোট্ট পায়ে সযত্নে পরানো রয়েছে জুতোজোড়াও। শুধু দেহে নেই প্রাণ। সমুদ্রের ঢেউয়ের আওয়াজ মিলিয়ে যাচ্ছে বাবার কান্না। অসহায় স্বাকারোক্তি, "আমার হাত পিছলেই পড়ে যায় আইলান।"

পদত্যাগ করলেন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস, ডাক দিলেন নির্বাচন এগিয়ে আনার পদত্যাগ করলেন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস, ডাক দিলেন নির্বাচন এগিয়ে আনার

পদত্যাগ করলেন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্স সিপ্রাস। নির্বাচন এগিয়ে আনার ডাক দিলেন তিনি।

 ঋণদাতাদের সঙ্গে রফায় মত নেই গ্রিসের আম জনতার, ধর্মঘটের পথে সরকারি কর্মচারীরা ঋণদাতাদের সঙ্গে রফায় মত নেই গ্রিসের আম জনতার, ধর্মঘটের পথে সরকারি কর্মচারীরা

রফায় মত নেই গ্রিসের আম জনতার। সরকারের সমাঝোতার সিদ্ধান্তে বেজায় ক্ষুব্ধ সে দেশের সরকারি কর্মচারীরা এবার ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘটের ডাক দিলেন।

রফার পথে হেঁটে ইউরোপীয় ইউনিয়নেই থাকছে গ্রীস রফার পথে হেঁটে ইউরোপীয় ইউনিয়নেই থাকছে গ্রীস

শেষপর্যন্ত গ্রিসকে ধরে রাখার পথেই হাঁটল ইউরোপীয় ইউনিয়ন। প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাসের প্রস্তাবিত আর্থিক সংস্কারের পথে হাঁটলে গ্রিসকে আর্থিক সাহায্য দিতে সর্বসম্মতভাবে রাজি হলেন ইউরো জোনের দেশগুলির নেতারা। ব্রাসেলসে ষোল ঘণ্টার ম্যারাথন বৈঠক শেষে একথা জানিয়েছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের

রফার পথেই গ্রীসের সিপ্রাস সরকার রফার পথেই গ্রীসের সিপ্রাস সরকার

শেষপর্যন্ত গ্রিসকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ধরে রাখতে রফার দিকেই এগোচ্ছে  সিপ্রাস সরকার। ইউরোপীয় ঋণদাতাদের সঙ্গে রবিবারের জরুরি বৈঠকে তাদের দাবি অনেকটাই মেনে নিয়ে আর্থিক সংস্কারের পথে হাঁটার খসড়া প্রস্তাব দেন অ্যালেক্সিস সিপ্রাস।

কোন পথে গ্রিস? উত্তর হয়ত আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষায় কোন পথে গ্রিস? উত্তর হয়ত আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষায়

শেষ পর্যন্ত কী হবে গ্রিসের? ঋণসঙ্কট ঘিরে বেরোবে নতুন কোনও সমাধানসূত্র? নাকি ইউরোজোন ছেড়ে বেরিয়ে যাবে গ্রিস? বিশ্বের সব দেশের রাজধানীতেই এখন চর্চা চলছে এই প্রশ্ন নিয়ে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের চূড়ান্ত সময়সীমা পেয়ে ওবামাকে ফোন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রীর ইউরোপীয় ইউনিয়নের চূড়ান্ত সময়সীমা পেয়ে ওবামাকে ফোন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রীর

ইউরোপীয় ইউনিয়নের চূড়ান্ত সময়সীমা পেয়ে ওবামাকে ফোন করলেন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সি সিপ্রাস। ঋণ প্রস্তাব নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সিপ্রাস বিস্তারিত জানিয়েছেন বলে হোয়াইট হাইসের তরফে জানানো হয়েছে। মঙ্গলবারই গ্রিস সরকারকে ঋণ প্রস্তাব দিতে ফের চূড়ান্ত সময়সীমা বেঁধে দেয় ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

গ্রিসের ঋনের বোঝা কমানো ও ঋণশোধের সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব আনবেন সিপ্রাস গ্রিসের ঋনের বোঝা কমানো ও ঋণশোধের সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব আনবেন সিপ্রাস

গ্রিসকে নিয়ে আজ ব্রাসেলসে ইউরোজোনের নেতাদের বৈঠক থেকে নতুন কোনও সমাধান সূত্র বেরোল না। ঋণসঙ্কট মেটাতে বৃহস্পতিবার গ্রিসের তরফে নয়া প্রস্তাব মিলবে বলে তাঁরা আশাবাদী। তারপরই রবিবার ইউরো ইউনিয়নের নেতারা ফের বৈঠকে বসবেন। গণভোটে না-পন্থীরা জয়ী হওয়ার পর ঋণসঙ্কট মেটাতে নয়া প্রস্তাব দিতে গ্রিসের কাছে আর্জি জানিয়েছেন ইউরোজোনের নেতারা। তবে এখনও পর্যন্ত নতুন কোনও প্রস্তাব দেয়নি গ্রিস। জানা গেছে, গ্রিসের পাহাড় পরিমাণ ঋণের বোঝা ৩০ শতাংশ কমানো এবং ঋণশোধের সময়সীমা ২০ বছর বাড়ানোর প্রস্তাব দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস। এছ়াড়া আলাদা করে অ্যাঞ্জেলা মার্কেল এবং ফ্রাঁসোয়া অলাঁদের সঙ্গেও দেখা করবেন তিনি। 

'না'-এ 'হ্যাঁ'-এর পরেও সঙ্কট কাটেনি, গ্রিস নিয়ে বৈঠকে ইউরো জোনের নেতারা 'না'-এ 'হ্যাঁ'-এর পরেও সঙ্কট কাটেনি, গ্রিস নিয়ে বৈঠকে ইউরো জোনের নেতারা

আর্থিক সঙ্কটে জেরবার গ্রিস। গণভোটে সিপ্রাস সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছে দেশ। মত দিয়েছে 'না' ভোটের পক্ষে। কিন্তু সঙ্কট কাটেনি। বরং আরও ভয়াবহ হয়েছে। ইতিমধ্যেই পদত্যাগ করেছেন অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস ভারুফাকিস। তাঁর জায়গায় আসছেন ইউক্লিড সাকালোটস। আগামী আটচল্লিশ ঘন্টার মধ্যে আর্থিক ত্রাণ নিয়ে একটা সমঝোতায় পৌছতে না পারলে ভেঙে পড়বে গ্রিসের ব্যাঙ্ক ব্যবস্থা।

 'না' ভোটের জয়ের পরের দিনই পদত্যাগ গ্রিসের অর্থমন্ত্রীর 'না' ভোটের জয়ের পরের দিনই পদত্যাগ গ্রিসের অর্থমন্ত্রীর

গত কালই 'না' ভোটের পক্ষে রায় দিয়েছে গ্রিস। আর আজ পদত্যাগ করলেন সে দেশের অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস ভারোফাকিস। জানালেন তাঁর এই পদত্যাদ প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপ্রাসকে বিদেশী ঋণদাতাদের সঙ্গে মধ্যস্থতা করতে সাহায্য করবে।

চাই না ঋণদাতাদের শর্তাধীন আর্থিক ত্রাণ,  'না' ভোটের পক্ষে রায় গ্রিসের চাই না ঋণদাতাদের শর্তাধীন আর্থিক ত্রাণ, 'না' ভোটের পক্ষে রায় গ্রিসের

ঋণদাতাদের শর্ত মেনে আর্থিক ত্রাণ নেওয়ার বিপক্ষে রায় দিল গ্রিস। নিজেদের শর্তে ঋণদাতাদের সঙ্গে নতুন রফাই চাইলেন গ্রিসের মানুষ। গণভোটে অধিকাংশ মানুষের রায় গেল না এর পক্ষে। আন্তর্জাতির ঋণদাতাদের শর্ত মেনে আর্থিক ত্রাণ প্যাকেজ, নাকি নিজেদের শর্তে ঘুরে দাঁড়ানোর একটা সুযোগ?  কোনটা সঠিক ?

গ্রিসে ঐতিহাসিক গণভোট শুরু হল গ্রিসে ঐতিহাসিক গণভোট শুরু হল

গ্রিসে আজ গণভোট। ঋণসঙ্কটের জেরে শেষপর্যন্ত কোন পথে হাঁটবে গ্রিস, আজ চূড়ান্ত রায় দেবে জনতা। ঋণদাতারা ত্রাসের দাসত্ব তৈরি করতে চাইছে বলে কটাক্ষ করেছেন গ্রিসের অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস ভারুফকিস। আইএমএফ এবং বাদবাকি ইউরোপীয় দেশগুলির প্রতিই কটাক্ষ করেছেন তিনি। দাসত্ব মেনে নেবে না বলেই গ্রিস সরকার ত্রাণ প্রকল্প সায় দেয়নি বলে মন্তব্য ভারুফকিসের।