ঐতিহাসিক পরমাণু সমঝোতা ইরানের ঐতিহাসিক পরমাণু সমঝোতা ইরানের

পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে বিশ্বের ৫ শক্তিধর দেশের সঙ্গে ঐতিহাসিক বোঝাপড়ায় পৌছল ইরান। সুইত্‍জারল্যান্ডের লুসান শহরের ম্যারাথন বৈঠকে এই মর্মে বোঝাপড়া হয়েছে যে, ইরানের  পরমাণু কর্মসূচি এমনভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে, যাতে তেহরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে না পারে। এই বোঝাপড়ার ভিত্তিতে আগামি তিন মাসের মধ্যে  একটি পূর্ণাঙ্গ চুক্তিতে পৌছবে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষ।বৈঠক শেষে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিদেশ নীতির প্রধান ফেদেরিকা মোঘেরিনি জানিয়েছেন, এক দশকের বেশি সময় ধরে আলোচনার পর এই বোঝাপড়া একটা নির্ধারক পদক্ষেপ। একই বিবৃতি দিয়েছেন ইরানের বিদেশমন্ত্রী মহম্মদ জাভেদ জারিফ। এই বোঝাপড়াকে ঐতিহাসিক বলে স্বাগত জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।  বোঝাপড়ার জেরে উঠে যাবে ইরানের ওপর জারি করা আর্থিক নিষেধাজ্ঞা। এই আশায় উচ্ছ্বসিত লোকজন নেমে পড়েন তেহরানের রাস্তায়। তবে ইরানের কট্টারপন্থীরা এই সমঝোতার সমালোচনা করেছেন।