সিরিজে সমতার স্বপ্ন বিসর্জনের পথে

শেষ পর্যন্ত বোধহয় `ট্রট`-এ এসে ডুবে গেল ভারতের সিরিজে সমতা ফেরাবার তরী। কুক, কেপি, কমপটনকে দ্রুত প্যাভিলিয়নবাসী করেও ম্যাচ জেতার লড়াই থেকে

কয়েক যোজন দূরে ছিটকে গেলেন ধোনিবাহিনী। দলের প্রাথমিক বিপর্যয়কে সামলে নিয়ে জমাটি পার্টনারশিপ গড়ে তুলছেন ট্রট আর বেল। ইতিমধ্যে চতুর্থ উইকেটে দু`জনে

কার্যকরি ৬৭ রান যোগ করে ফেলেছেন। চতুর্থ দিনের শেষে ইংল্যান্ড ১৬৫ রানে এগিয়ে রয়েছে। ক্রিজে ব্যক্তিগত ৬৬ রানে অপরাজিত ট্রট। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিচ্ছেন

বেল (২৪)। হাতে ৭ উইকেট আর একটা গোটা দিন নিয়ে কাল মাঠে নামবেন ব্রিটিশরা। একটা ড্র। তাহলেই কেল্লাফতে। কালকের দিনটা কাটিয়ে দিতে পারলেই ভারতের

মাটিতে দীর্ঘ ২৮ বছর পর সিরিজ জয়ের গৌরব লাভ করবেন কুকরা। তাই বিন্দুমাত্র তাড়াহুড়ো না করে নাগপুরের ২২গজ আঁকড়ে থাকাই এখন তাঁদের প্রধান লক্ষ্য।

ফের টেস্ট দলে ডাক পেলেন অশোক দিন্দা!

প্রথম টেস্টে ধোনির এক ডাকে তিনি তড়িঘড়ি আমেদাবাদ হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু ব্রিটিশ বাহিনীর বিরুদ্ধে মোতেরাতে মাঠে নামার সৌভাগ্য হয়নি তাঁর। টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন ভরসা রেখেছিলেন দুই স্পিনারের উপরই। তবে ড্রেসিং রুমে বসে না থেকে দিন্দা বাংলার হয়ে রঞ্জি খেলতে ফিরে আসেন। অন্যদিকে মুম্বই টেস্টের আগে উমেশ যাদবের চোট থাকায় `বদলার সিরিজে`-এর দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হওয়ার আগে কিছুটা বিপাকে মাহী। প্রথম টেস্ট জিতে যতই `অ্যাডভানটেজ` ভারত থাকুক না কেন ধোনির মাথা থেকে বোধহয় `কুক` বিক্রমের কথা এখনও মুছে যায়নি। তাই কোন ঝুঁকি নিতেই রাজি নন তিনি। অতএব কিছুটা বাধ্য হয়েই ডাক পড়ল দিন্দার। যদি সুযোগ পান তাহলে এটাই তাঁর টেস্ট অভিষেক হবে। তবে প্রথম টেস্টে চোট পাওয়া ইশান্ত শর্মা কিন্তু এখন পুরোপুরি ফিট। তাঁর দলে ফিরে আসার সম্ভাবনাও প্রবল। তাই এবারও দিন্দার ভাগ্যে শিকে ছেঁড়াটা কিন্তু বেশ অনিশ্চিত।