ঝাড়গ্রামে জঞ্জাল সাফাই অভিযানে নেমেছেন সিআরপিএফ জওয়ানরা

ঝাড়গ্রামে জঞ্জাল সাফাই অভিযানে নেমেছেন সিআরপিএফ জওয়ানরা

ঝাড়গ্রামে জঞ্জাল সাফাই অভিযানে নেমেছেন সিআরপিএফ জওয়ানরা। শহরের হাসপাতাল, রাস্তা, স্টেডিয়াম সর্বত্র চলছে জওয়ানদের নাকাবন্দি। নোংরা-জঞ্জাল পেলেই ঝাঁপিয়ে পড়ছেন জওয়ানরা। জওয়ানরা আশাবাদী, মাওবাদী দমনের মত জঞ্জাল সাফাইয়েও সাফল্য মিলবে। আশাবাদী ঝাড়গ্রামের সাধারণ মানুষও।

প্রচন্ড গরমে জলের খোঁজে লোকালয়ে বাড়ছে হাতির হানা প্রচন্ড গরমে জলের খোঁজে লোকালয়ে বাড়ছে হাতির হানা

প্রচন্ড গরমে খাল-বিল শুকিয়ে কাঠ। অতিষ্ঠ বনের পশুরাও। জলের খোঁজে লোকালয়ে বাড়ছে হাতির হানা। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে হতাহতের সংখ্যাও। শুধুমাত্র গত ১০ দিনেই, ঝাড়গ্রাম মহকুমায় হাতির হানায় মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের।

ঝাড়্গ্রাম বিধানসভা কেন্দ্র

ভোটগ্রহণ- ৪ এপ্রিল

২০১৬ বিধানসভা নির্বাচন

সুকুমার হাঁসদার বদল চেয়ে পোস্টার পড়ল ঝাড়গ্রামে সুকুমার হাঁসদার বদল চেয়ে পোস্টার পড়ল ঝাড়গ্রামে

তৃণমূল কংগ্রেস মনোনিত প্রার্থী সুকুমার হাঁসদার বদল চেয়ে এবার পোস্টার পড়ল ঝাড়গ্রামে। সোমবার রাত থেকেই শহরের বিভিন্ন জায়গায় এধরনের পোস্টার পড়েছে। তবে কে বা কারা এই পোস্টার লাগিয়েছে, পুলিসের কাছে এখনও স্পষ্ট নয়।

'গতিধারা'-য় গতি পাচ্ছে জঙ্গলমহল 'গতিধারা'-য় গতি পাচ্ছে জঙ্গলমহল

একটা সময়ে অন্যের গাড়ি চালিয়ে দিন গুজরান হত ওদের। তাও নিয়মিত কাজ নেই। সংসার চালাতে প্রাণপাত। কিন্তু  রাজ্য সরকারের গতিধারা প্রকল্পে ওরা এখন গাড়ির মালিক। দিন ফিরেছে জঙ্গলমহলের শুভাশিষ,অমল, রফিকদের। তাঁদের সঙ্গে খুশি পরিবারের লোকজনও।  

মধ্যযুগীয় বর্বরতা ঝাড়গ্রামে, ডাইনি অপবাদে ঘর ছাড়া পরিবারের আশ্রয় ফুটপাথ মধ্যযুগীয় বর্বরতা ঝাড়গ্রামে, ডাইনি অপবাদে ঘর ছাড়া পরিবারের আশ্রয় ফুটপাথ

ডাইনি অপবাদে মারধর করে গ্রামছাড়া করা হয়েছে গোটা পরিবারকে। আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েও জুটেছে হুমকি। তাই শেষ পর্যন্ত রাস্তার ফুটপাথকেই আশ্রয় হিসাবে বেছে নিয়েছে ঝাড়গ্রামের বৃন্দাবনপুরের  নীলমনি হেমব্রমের পরিবার। বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিডিও।

বিদ্যুৎ বিল ৮০ হাজার টাকা, মাথায় হাত  ঝাড়গ্রামের মানুষের  বিদ্যুৎ বিল ৮০ হাজার টাকা, মাথায় হাত ঝাড়গ্রামের মানুষের

পশ্চিম মেদিনীপুরের ঝাড়গ্রামের চুবকা গ্রামপঞ্চায়েত এলাকা। ২০১০ সালে বাড়িতে বিদ্যুতের রিডিং নিতে যাওয়া দুই বিদ্যুতকর্মীকে খুন করে মাওবাদীরা। এরপরই তড়িঘড়ি বাড়িতে গিয়ে বিদ্যুতের রিডিং নিতে যাওয়ার কাজ বন্ধ করে দেয় রাজ্য বিদ্যুত নিগম। কিন্তু মিটার রিডিং নেওয়া বন্ধ হলেও বিদ্যুতসংযোগ নিরবিচ্ছিন্ন ছিল। ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতেই গ্রাহকদের বাড়িতে পৌছতে শুরু করে কয়েক হাজার টাকার বিদ্যুতের বিল।

দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে মামুলি মামলা পুলিসের, সহজেই জামিন অভিযুক্তদের দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে মামুলি মামলা পুলিসের, সহজেই জামিন অভিযুক্তদের

ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় দোকানমালিককে ব্যাপক মারধর অভিযুক্ত যুবকদের।  হাসপাতালে মৃত্যু আক্রান্তের । তবু অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামুলি ধারায় মামলা দায়ের করে ঝাড়গ্রাম থানার পুলিস। যার নিট ফল আদালতেও খুব সহজেই জামিন পেয়ে যায় দুষ্কৃতীরা।

খানাখন্দে বড়া রাস্তা, লালগড়ে বন্ধ বাস চলাচল খানাখন্দে বড়া রাস্তা, লালগড়ে বন্ধ বাস চলাচল

বন্ধ বাস চলাচল। কারণ, রাস্তাটা আর রাস্তা নেই। খানা খন্দে এতদিন ঝুঁকি নিয়েই যানবাহন চলাচল করছিল। কিন্তু পরিস্থিতি এতটাই বিপজ্জনক যে, লালগড়ের খাস জঙ্গল থেকে সারেঙ্গা পর্যন্ত বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাস মালিকরা। শুধু বেসরকারি নয়, সরকারি বাস চলাচলও বন্ধ এই রাস্তায়। অবিলম্বে বাস চালু না হলে আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এ ছবি একটু আধটু রাস্তার নয়। দীর্ঘ ষোল কিলোমিটার রাস্তা জুড়েই এমন খানা খন্দ।

যৌথবাহিনী সরে গেলে সক্রিয় হবে মাওবাদীরা, আশঙ্কায় জঙ্গলমহলের মানুষ যৌথবাহিনী সরে গেলে সক্রিয় হবে মাওবাদীরা, আশঙ্কায় জঙ্গলমহলের মানুষ

জঙ্গলমহল থেকে যৌথবাহিনী সরে গেলে ফের সক্রিয় হবে মাওবাদীরা। এমনটাই বলছেন সেখানকার মানুষ। স্থানীয় তৃণমূল নেতারা বলছেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। জঙ্গলমহলের বামনেতাদেরও বক্তব্য, বাহিনী সরে গেলে ফের দাপট বাড়বে মাওবাদীদের।একসময় মাওবাদী নাশকতায় দিনের পর দিন দীর্ণ হয়েছে জঙ্গলমহল। এখন আপাতভাবে শান্ত। এলাকার মানুষের বক্তব্য, যৌথবাহিনী থাকাতেই বাগে এসেছে নাশকতা।

বৈধ কাগজ থাকা সত্ত্বেও কয়লা ভর্তি ট্রাক আটকে পুলিসের তোলা আদায়, ব্যহত হচ্ছে রাজ্যের শিল্প

বৈধ কাগজপত্র থাকার পরেও ঝাড়গ্রামে আটকে দেওয়া হচ্ছে কয়লা আর কেন্দুপাতা বোঝাই ট্রাক। টাকা আদায়ের জন্য পুলিসি জুলুমের অভিযোগ তুলেছেন ট্রাক মালিকেরা। তাঁদের দাবি, গোটা ঘটনাই ঘটছে পুলিসের ওপরওয়ালার নির্দেশে। তাঁদের অভিযোগ সরাসরি ঝাড়গ্রামের পুলিস সুপারের বিরুদ্ধে। যদিও বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেনি প্রশাসন।

কেন্দ্র-ঝাড়গ্রাম

৩৩. কেন্দ্র-ঝাড়গ্রাম

কেন্দ্রভিত্তিক LIVE UPDATE: ঝাড়গ্রাম ও মেদিনীপুর

রাজ্যে চলছে চতুর্থ দফার ভোটগ্রহণ। এ রাজ্যের ৬ কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে মোট ৭২ জন প্রার্থী। ভোট জঙ্গলমহলের মতো স্পর্শকাতর অঞ্চলে। ঝাড়গ্রাম ও মেদিনীপুরের LIVE UPDATE-

বাড়ি বাড়ি গিয়ে রোগী দেখে প্রচার চালাচ্ছেন উমা সোরেন

পেশায় চিকিৎসক। ভোট প্রচারে পেশাগত সেই দক্ষতাকেই কাজে লাগাতে চাইছেন ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী উমা সোরেন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে রোগী দেখার সঙ্গেই চলছে ভোট প্রচারের কাজ। হাতের কাছে ডাক্তার বন্ধুকে পেয়ে খুশি গ্রামবাসীরাও।