প্রকাশিত হল জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফল

প্রকাশিত হল এই বছরের রাজ্যের জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফলাফল।  আজ বেলা দু'টোর সময় জয়েন্ট এন্ট্রান্স কাউন্সিলের তরফ থেকে ফলাফল প্রকাশ করা হয়। যেহেতু এই বছর থেকে মেডিক্যালের পরীক্ষা সর্বভারতীয় স্তরে কমন এন্ট্রান্সের মাধ্যমে নেওয়া হয়েছিল তাই এই বছর রাজ্যে শুধুমাত্র ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের জন্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল। এই বছর মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন  ১লাখ ১০হাজার ৫৯৯ জন। সাধারণ কোটার পরীক্ষার্থী ছিলেন ১০০৬৫৯ জন। তপশিলী জাতীর ৮৯৯৯ জন তপশিলী উপজাতির ৯৪১ জন। এদের মধ্যে কাউন্সিলিংয়ের জন্য ডাকা হয়েছে ৮৭, ৭৮৬ জনকে। এই বছরই প্রথম ত্রিপুরার পাশাপাশি অসমেও একটি পরীক্ষা কেন্দ্র করা হয়েছিল।

জয়েন্টের প্রশ্নে নাকাল পরীক্ষার্থীরা

বাংলায় পরীক্ষা দেওয়ার জন্য ফর্ম ফিলাপ করেছিল। কিন্তু প্রশ্নপত্র এল ইংরাজিতে। শেষপর্যন্ত বহু প্রশ্নের উত্তর না দিয়েই পরীক্ষার হল ছাড়তে বাধ্য হলেন পরীক্ষার্থীরা। এবছরের মেডিক্যালের অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষায় এমনই সমস্যার মুখে পড়তে হল এরাজ্যের বহু পরীক্ষার্থীকে। দমদমের কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ে এবছরের জয়েন্টের মেডিক্যালের অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষার সিট পড়েছিল রবিবার। সকাল দশটায় শুরু হয় পরীক্ষা। কিন্তু পরীক্ষা শুরু হতেই ছাত্রছাত্রীদের একটা বড় অংশ দেখেন তাদের ইংরাজি মাধ্যমের প্রশ্ন পত্র তুলে দেওয়া হয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের দাবি, বাংলা মাধ্যমের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দেওয়ার জন্যই তাঁরা ফর্ম পূরণ করেছিলেন।

নজিরবিহীন ভাবে জয়েন্ট এন্ট্রান্সে পৌঁছল কম প্রশ্নপত্র

নজিরবিহীন ভাবে এবার জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় কম প্রশ্নপত্র পৌঁছল। ঘটনাটি ঘটেছে পলতা শান্তিনগর হাইস্কুলে। কি কারণে এতগুলি প্রশ্ন কম পৌঁছল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তিরাশিটি প্রশ্নপত্র দেরিতে পৌঁছনোয়  ওই কেন্দ্রে একঘণ্টা দেরিতে শুরু হয় পরীক্ষা।

আজ জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা

আজ রাজ্যে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা। পরীক্ষা শুরু হয়ে গেছে সকাল সাড়ে নটায়।  পরীক্ষা চলবে বিকেল চারটে পর্যন্ত। এবছর  পরীক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় এক লক্ষ কুড়ি হাজার।