স্টিংকাণ্ডের ফুটেজ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাছে জমা দিতে চান ম্যাথু স্যামুয়েল

স্টিংকাণ্ডের ফুটেজ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাছে জমা দিতে চান ম্যাথু স্যামুয়েল

পশ্চিমবঙ্গ তাঁর কাছে নিরাপদ নয়। নিরাপদ নয় দিল্লি থেকে কলকাতায় আসাও। সেকারণেই নারদ স্টিংকাণ্ডের ফুটেজ কেন্দ্রীয় কোনও তদন্তকারী সংস্থার কাছে জমা দিতে চান ম্যাথু স্যামুয়েল। আজ কলকাতা হাইকোর্টে একথাই জানান ম্যাথু স্যামুয়েলের আইনজীবী। আর এতেই তীব্র আপত্তি স্টিংকাণ্ডে অভিযুক্তদের আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

নারদকাণ্ডে সেমসাইড আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নারদকাণ্ডে সেমসাইড আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের

নারদকাণ্ডে সেমসাইড কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এদিন আইনজীবী হিসাবে তাঁর সওয়াল ছিল, স্টিং কাণ্ডে যে ছবি দেখানো হচ্ছে তা ঘুষ না অনুদান খতিয়ে দেখা উচিত। আর এই যুক্তিকে হাতিয়ার করেই পাল্টা আক্রমণে  বিরোধীরা। তাদের দাবি, টাকা যে নেওয়া হয়েছিল, শাসকপক্ষের আইনজীবীই তো তা স্বীকার করে নিচ্ছেন।

স্পিকারকে মোদীর মুখপাত্র বলায় ক্ষমা চাইলেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়

সংসদে বিশৃঙ্খলার দায়ে ক্ষমা চাইলেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়

নির্বাচন কমিশনে জাখিল হলফনামা বলছে তৃণমূলের সব সাংসদই কোটিপতি

এই মুহুর্তে তৃণমূলের প্রায় সব সাংসদই কোটিপতি। নির্বাচন কমিশনের কাছে দাখিল করা তাঁদের হলফনামা সেকথাই বলছে। কোটিপতিদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন কল্যাণ ব্যানার্জি। তাঁর পরে রয়েছেন শতাব্দী রায়, তাপস পাল, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রসূন ব্যানার্জি সহ আরও অনেকে। দু হাজার চোদ্দ সালের লোকসভা নির্বাচনে কমিশনের কাছে দাখিল করা হলফনামায় তৃণমূল প্রার্থীদের তাঁদের সম্পত্তির যে তথ্য দিয়েছেন তাতে দেখা যাচ্ছে বেশিরভাগ তৃণমূল সাংসদের সম্পত্তির পরিমান গত পাঁচ বছরে প্রায় তিনগুন বা তার বেশি বেড়েছে।

শ্রীরামপুরে নির্বাচনী প্রচারে মুখ্যমন্ত্রীর নিশানায় মোদী আর বিজেপি

সাতাশে এপ্রিল শ্রীরামপুর কেন্দ্রের প্রার্থী বাপি লাহিড়ির সমর্থনে সভা করতে আসছেন নরেন্দ্র মোদী। তার আগে এই কেন্দ্রে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে সভা করতে এসে বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থনে গের সভাগুলিতে চড়া সুরে আক্রমণ করেছিলেন সিপিআইএম ও কংগ্রেসকে। এদিন অবশ্য তৃণমূল নেত্রীর নজরে ছিল বিজেপি।

সততা বিতর্কে বুদ্ধদেবকে আক্রমণ কল্যাণের

মুখ্যমন্ত্রীর সততা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। তাতে কি খানিকটা ব্যাকফুটে তৃণমূল কংগ্রেস? প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে ব্যক্তিগত আক্রমণের পাশাপাশি, বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর দুই ভাইকেও আড়াল করতে চেয়ে তেমনই ইঙ্গিত দিলেন তৃণমূলের আইনজীবী সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জি।