শহরের সৌন্দর্যায়নের কতটা শরিক হতে পারলেন শহরের বস্তিবাসীরা? শহরের সৌন্দর্যায়নের কতটা শরিক হতে পারলেন শহরের বস্তিবাসীরা?

নিয়ন আলো, ত্রিফলা বাতি, নীল-সাদার খেলা, পাড়ায় পাড়ায় পার্ক। সাজানো কলকাতার কোলাজে অনেক সুন্দর সুন্দর ছবি। কিন্তু সেই সৌন্দর্যায়নের কতটা শরিক হতে পারল এই শহরের বিশাল সংখ্যক বস্তিবাসী গরিব মানুষ? আমাদের প্রতিনিধির অনুসন্ধান রিপোর্টে কলকাতা পুরসভা থেকে যে তথ্য মিলেছে, তাতে প্রদীপের নীচে অন্ধকারের ছবিটাই প্রকট। ২০০৭ থেকে ২০১৫। এই ৯ বছরে বস্তিবাসীদের নতুন বাড়িতে পুনর্বাসনের জন্য কেন্দ্র থেকে প্রায় ৯৮ কোটি টাকা পেয়েছিল কলকাতা পুরসভা। কিন্তু ৯ বছরে তারা মাত্র ১০ কোটি টাকা খরচ করতে পেরেছে। বিপুল অঙ্কের টাকা খরচ করতে না পারায়, তা আবার কেন্দ্রের কাছে ফেরত চলে গিয়েছে। ফলে অথৈ জলে বস্তিবাসীর উন্নয়ন। বিষয়টি নিয়ে শোরগোল শুরু হতেই দোষারোপের খেলা। ২০১০ সাল থেকে কলকাতা পুরসভা রয়েছে তৃণমূলের দখলে। তার আগে ছিল বামেদের দখলে। ২০০৭ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে দুই শিবিরের জমানাই রয়েছে। তৃণমূল শিবিরের অভিযোগ, বাম পরিচালিত পুরসভা বিস্তারিত প্রকল্প রিপোর্টে ভুল করায় টাকা ফেরত গেছে। বামেদের পাল্টা প্রশ্ন, রিপোর্টে ভুল থাকলে তৃণমূলের পুরসভা এতদিনেও তা ঠিক করে উঠতে পারল না কেন?