মমতার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধাতেই ব্যর্থ হয়েছে লালগড় আন্দোলন, বিস্ফোরক বিবৃতি মাওবাদীদের

মমতার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধাতেই ব্যর্থ হয়েছে লালগড় আন্দোলন, বিস্ফোরক বিবৃতি মাওবাদীদের

মমতার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধাতেই ব্যর্থ হয়েছে লালগড় আন্দোলন। কিষেণজির মৃত্যুর চার বছর পর রাখঢাক না করে এই বিস্ফোরক বিবৃতি দিল মাওবাদীরা। তাদের মতে, তৃণমূলকে ব্যবহার করে রাজ্যে মাওবাদীদের সংগঠন বিস্তারের চেষ্টা করেছিলেন কিষেণজি। কিন্তু লালগড়ে আন্দোলনে উল্টে মাওবাদীরাই ব্যবহৃত হয়েছে। লালগড় আন্দোলনের পর্যালোচনা করে এটাই মাওবাদীদের প্রথম প্রকাশ্য বিবৃতি। সিপিআই মাওবাদীর পূর্বাঞ্চলীয় ব্যুরোর পাঠানো সেই সাংগঠনিক চিঠিতে লালগড় আন্দোলনের রীতিমতো ময়নাতদন্ত করা হয়েছে।

খানাখন্দে বড়া রাস্তা, লালগড়ে বন্ধ বাস চলাচল খানাখন্দে বড়া রাস্তা, লালগড়ে বন্ধ বাস চলাচল

বন্ধ বাস চলাচল। কারণ, রাস্তাটা আর রাস্তা নেই। খানা খন্দে এতদিন ঝুঁকি নিয়েই যানবাহন চলাচল করছিল। কিন্তু পরিস্থিতি এতটাই বিপজ্জনক যে, লালগড়ের খাস জঙ্গল থেকে সারেঙ্গা পর্যন্ত বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাস মালিকরা। শুধু বেসরকারি নয়, সরকারি বাস চলাচলও বন্ধ এই রাস্তায়। অবিলম্বে বাস চালু না হলে আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এ ছবি একটু আধটু রাস্তার নয়। দীর্ঘ ষোল কিলোমিটার রাস্তা জুড়েই এমন খানা খন্দ।

হায়দরাবাদ থেকে গ্রেফতার নেতাই কাণ্ডে অভিযুক্ত ৫, আজই পেশ মেদিনীপুর আদালতে

নেতাই কাণ্ডে হায়দরাবাদ থেকে ৫ জনকে গ্রেফতার করল সিআইডি। গ্রেফতার করা হল তপন দে, রথীন দণ্ডপাট, ডালিম পান্ডে, জয়দেব গিরি, মহম্মদ খলিলউদ্দিনকে। এর আগে নেতাই কাণ্ডে আরও ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এই নিয়ে এই ঘটনায় মোট ১৭ জনকে গ্রেফতার করা হল।

বিজেপির পর এবার কংগ্রেসের মঞ্চে শিলাদিত্য

মাওবাদী তকমা লাগা শিলাদিত্য চৌধুরীকে দেখা গেল লালগড়ে কংগ্রেসের মঞ্চে। আর এই ঘটনা ঘিরে নতুন করে তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক। বিতর্ক তৈরি হয়েছে, ৪

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর জনসভার নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও। লালগড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভা। সারের দাম কেন বাড়ছে তা নিয়ে নালিশ জানাতে উঠে দাঁড়িয়েছিলেন এক

লালগড়বাসী। এহেন কর্মের জন্য জেলে যেতে হয়েছিল তাঁকে। জুটেছিল মাওবাদী তকমা। শনিবার তাঁকেই দেখা গেল কংগ্রেসের মঞ্চে। কেন্দ্রের গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রীর সঙ্গে তাঁকে

পরিচয় করিয়ে দিলেন আরেক মন্ত্রী দীপা দাশমুন্সি। হাতে হাত মিলিয়ে তাঁকে অভিনন্দন জানালেন জয়রাম রমেশ। রীতিমতো বুকে জড়িয়ে ধরলেন আরেক কংগ্রেস নেতা,

প্রাক্তন মন্ত্রী মানস ভুঁইঞা।

কলকাতার বুকে কিষেণজি স্মরণসভা, অন্ধকারে গোয়েন্দারা

খাস শহর কলকাতার বুকে পালিত হল কিষেণজির স্মরণসভা। খবরই ছিল না গোয়েন্দাদের কাছে। রীতিমতো স্লোগান দিয়ে, স্যালুট জানিয়ে পালিত হল মাওবাদী নেতা কিষেণজির প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। চব্বিশ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।

কিষেনজির মৃত্যুর এক বছর পর কেমন আছে জঙ্গলমহল?

গত বছর ২৪ নভেম্বর যৌথ বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছিলেন কিষেনজি। মনে করা হয়েছিল তাঁর মৃত্যুর মাধ্যমে নিশ্চিত হবে জঙ্গলমহলের শান্তি। একইসঙ্গে দ্রুত গতিতে

শুরু হয়েছিল জঙ্গলমহলে বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ। কখনও মাওবাদীদের আত্মসমর্পণ, একের পর এক সরকারি উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি বদলে দিয়েছিল জঙ্গলমহলকে। স্বাস্থ্য,

শিক্ষা ,কর্মসংস্থানের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিতে পরিবর্তনের স্রোতে গা ভাসিয়েছিলেন আমজনতা। কিন্তু মাওবাদী শীর্ষনেতার মৃত্যুর ঠিক একবছরের মাথায় কেমন আছে

জঙ্গলমহল? কতটা হয়েছে উন্নয়ন?

প্রতিশ্রুতিই প্রাধান্য পেল মুখ্যমন্ত্রীর লালগড় সফরে

মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম লালগড় সফরে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একদিকে উন্নয়নমুলক পরিকল্পনা রূপায়ণ, অন্যদিকে জেলার আইনশঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি। লালগড়ে সফরে গিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকে মূলত এই ২টি বিষয়েই জোর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রতিশ্রুতিই সার, জঙ্গলমহল রয়েছে তিমিরেই

আরও একবার জঙ্গলমহলে মুখ্যমন্ত্রী। এবার লালগড়ে। নতুন সরকারের আমলে মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়ন কর্মসূচিতে বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে জঙ্গলমহল। ঘোষণা করা হয়েছে জঙ্গলমহল প্যাকেজ। কিন্তু গত ১১ মাসে জঙ্গলমহলকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি কতটা পূরণ করতে পারল সরকার?

লালগড়ে মুখ্যমন্ত্রী

লালগড় সফরে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে একটি সরকারি কর্মসূচিতে যোগ দেবেন তিনি। সোমবার সন্ধে সাড়ে ছটা নাগাদ কলকাতা থেকে রওনা হওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। রাতে তিনি মেদিনীপুর সার্কিট হাউসে থাকবেন। সেখানে পৌঁছে স্থানীয় বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী।

বুদ্ধিজীবীদের খোলা চিঠি ছত্রধরের

মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিভঙ্গের অভিযোগ আগেই তুলেছে জঙ্গলমহল। এবার সরাসরি কলকাতা তথা এরাজ্যের বুদ্ধিজীবী, নাগরিক সমাজ এবং মানবাধিকার সংগঠনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল। পাশে না থাকার এই অভিযোগ তুললেন একসময় এই মানুষগুলি যাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সেই ছত্রধর মাহাত।

সহকর্মীকে মেরে আত্মঘাতী সিআরপি জওয়ান

লালগড়ের শিলাপাড়ার সিআরপি ক্যাম্পে গুলিতে নিহত হলেন ৩ জওয়ান। দুই সহকর্মীকে গুলি করে একজন আত্মঘাতী হয়েছেন বলে সিআরপিএফ সূত্রে জানা গেছে। নিহত দুই কনস্টেবল আর কুমার এবং রিয়াজ আহমেদ ভাট। তাঁদের মেরে আত্মঘাতী হয়েছেন হেড কনস্টেবল বা হাবিলদার তুলসীধরন।