গণেশ থেকে ছট, পুজো উদ্বোধনে সবাইকে পিছনে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী গণেশ থেকে ছট, পুজো উদ্বোধনে সবাইকে পিছনে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী

সিদ্ধিদাতা গণেশকে দিয়ে শুরু। শেষ আপাতত ছট পুজোয়। এবার উৎসবের মরশুমকে আসন্ন পুরভোটের  প্রস্তুতি হিসাবে চুটিয়ে ব্যবহার করলেন রাজনৈতিক নেতারা। এঁদের মধ্যে সবার থেকে এগিয়ে অবশ্যই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।দক্ষিণপন্থী রাজনীতিকদের জনসংযোগের একটা বড় অবকাশ চিরকালই শারদোত্সব। দুর্গা পুজোয় শুধু আটকে না থেকে জাতি বর্ণ ধর্ম ভাষা নির্বিশেষ সমস্ত ধর্মীয় উতসবকে জনসংযোগের উপলক্ষ করে তোলা কিন্তু রাজ্য রাজনীতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবদান। সামনেই পুরভোট। কলকাতায় বিজেপির রাজনৈতিক উত্থান চোখে পড়ছে সকলেরই। এই অবস্থায় ধর্মীয় উতসবকে যথাসাধ্য জনসংযোগের কাজে ব্যবহারে রীতিমতো নির্দেশ ছিল দলনেত্রীর।

রাজ্যের ঋণ মকুবের আবেদন, ফিকি-কেও পাশে চান মমতা রাজ্যের ঋণ মকুবের আবেদন, ফিকি-কেও পাশে চান মমতা

রাজ্যের ঋণ মকুব ইস্যুতে বরাবর সরব মুখ্যমন্ত্রী। এনিয়ে এবার বণিকসভা ফিকিকেও পাশে দাঁড়ানোর আবেদন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। আজ বণিকসভার এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এবিষয়ে সরব হওয়া উচিত ফিকিরও। শিল্পপতিদের উদ্দেশে তাঁর আহ্বান, রাজ্যে আসুন। আরও বিনিয়োগ করুন। জমি কোনও বাধা হবে না। ঋণের সুদ আদায়ের নামে রাজ্যের আয়ের একটা বড় অংশ কেটে নিয়ে যাচ্ছে  কেন্দ্র। ক্ষমতায় আসার পর থেকে বহুবার, বহুক্ষেত্রে এই অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। শুক্রবারও করলেন। বণিকসভা ফিকির এক অনুষ্ঠানে। তবে এই প্রথম শিল্পমহলকে পাশে দাঁড়াতে আবেদন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।