জোকা মেট্রো প্রকল্পে চালু হচ্ছে বাজ টানার নয়া প্রযুক্তি

জোকা মেট্রো প্রকল্পে চালু হচ্ছে বাজ টানার নয়া প্রযুক্তি

এ দেশে বজ্র নিরোধক ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন হচ্ছে। আর বজ্র দণ্ড নয়। এবার আসছে রোলিং স্পিয়ার পদ্ধতি। এই নয়া ব্যবস্থা বিদেশে ইতিমধ্যেই কার্যকরী হয়েছে। জোকা মেট্রোর হাত ধরে এই প্রথম রেলে এই নয়া ব্যবস্থা চালু হচ্ছে।

এবার মেট্রোতে নন এসি রেকে মিলবে এসি-র সুবিধা! এবার মেট্রোতে নন এসি রেকে মিলবে এসি-র সুবিধা!

পুরনোকে উন্নত করেই যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যের ব্যবস্থা। নতুন নয়, খোলনলচে বদলে আজ থেকে যাত্রা শুরু হল মেট্রোর ৭টি পুরনো নন এসি রেকের। ভবিষ্যতে মেট্রোর বাকি ৫টি নন এসি রেকেরও আধুনিকীকরণ করা হবে। জানানো হয়েছে মেট্রো রেলের তরফে। নতুন করে নতুন রূপে আজ থেকে যাত্রা শুরু করল মেট্রোর পুরনো ৭টি রেক। যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে পুরনো রেকগুলিকে নতুন করে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। এসি রেকের সমতুল্য করে তোলা হয়েছে এই পুরনো রেকগুলিকে।

আমূল বদল মেট্রোর নন AC রেকে আমূল বদল মেট্রোর নন AC রেকে

মেট্রোয় সৌন্দর্যায়ন। নন এসি পুরনো রেকগুলিকে বদলে দিয়ে, এবার আরও আধুনিক ফর্মে এল নয়া রেক। একেবারে আমূল পরিবর্তন। যার উদ্বোধনে রাজ্যে হাজির রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু।

যানজটের সমস্যা থেকে দিল্লিবাসীকে মুক্তি দিতে এবার আসছে মেট্রিনো যানজটের সমস্যা থেকে দিল্লিবাসীকে মুক্তি দিতে এবার আসছে মেট্রিনো

আরও হাইটেক হতে চলেছে দিল্লির পরিবহণ পরিষেবা। মেট্রোর পর এবার সেখানে মেট্রিনো। রোপওয়েতে দিল্লি এনসিআর থেকে সোজা চলে যাওয়া যাবে হরিয়ানার মানেসার পর্যন্ত। সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে আগামী দুমাসের মধ্যেই শুরু হবে কাজ। কীরকম হচ্ছে সেই প্রকল্প এক নজরে দেখে নেওয়া যাক। 

মেট্রোতে আর আত্মহত্যা করা যাবে না! মেট্রোতে আর আত্মহত্যা করা যাবে না!

মেট্রোয় আত্মহত্যা। অফিস টাইমে দুর্ভোগের একশেষ। তবে  ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় বন্ধ হচ্ছে এমন ভোগান্তি। এব্যাপারে বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। প্ল্যাটফর্মে বসছে টানা কাচের দেওয়াল। সেই দেওয়ালের নির্দিষ্ট জায়গায় থাকবে দরজা। ট্রেন এলে খুলে যাবে সব দরজা। ওঠা-নামা করতে পারবেন যাত্রীরা। এরপর ট্রেন চলে গেলে বন্ধ হয়ে যাবে দরজা। এখানেই শেষ নয়।

মেট্রো রেলে যে সুবিধা পেতে চলেছেন, তা শুনলে খুব আনন্দ পাবেন মেট্রো রেলে যে সুবিধা পেতে চলেছেন, তা শুনলে খুব আনন্দ পাবেন

মেট্রো রেল যাত্রীদের জন্য সুখবর। এতদিন মেট্রোতে যাতায়াত করছেন। তাতে সুবিধা অনেক। সময় বাঁচে। একটু আরামে যাতায়াত করা যায়। টিকিটের দামও তুলনায় কমই। কিন্তু সমস্যা হল, মেট্রোতে ঢুকলেই আপনার মোবাইলে আর টাওয়ার পাবেন না!

গঙ্গার তলা দিয়ে মেট্রো যাত্রা আর মাত্র কয়েক মাসের অপেক্ষা গঙ্গার তলা দিয়ে মেট্রো যাত্রা আর মাত্র কয়েক মাসের অপেক্ষা

গঙ্গার তলা দিয়ে মেট্রো যাত্রা আর মাত্র কয়েক মাসের অপেক্ষা। পুজোর পরেই অ্যাডভেঞ্চারাস এই জার্নির সওয়ার হতে পারবেন সকলে। মাটির নিচে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। কিন্তু যদি ভূমিকম্প হয়, তখন কী হবে? নদী তলদেশের মেট্রো টানেল কতটা নিরাপদ ভূমিকম্প প্রতিরোধে? মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রবল ভূমিকম্পেও একচুলও টলবে না অত্যাধুনিক মেট্রো টানেল।

মেট্রো রেলের কর্মীকে ছুরি মেরে লক্ষাধিক টাকার লুঠ মেট্রো রেলের কর্মীকে ছুরি মেরে লক্ষাধিক টাকার লুঠ

রেলের কর্মীকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে ১২ লক্ষ টাকার লুঠ। সোমবার ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ঘটনাটি ঘটে দিল্লির রাজেন্দ্র প্যালেস মেট্রো স্টেশনে।

হাত ধুয়ে ফেলতে ব্যস্ত হায়দরাবাদের নির্মাণ সংস্থা IVRCL হাত ধুয়ে ফেলতে ব্যস্ত হায়দরাবাদের নির্মাণ সংস্থা IVRCL

উড়ালপুল বিপর্যয়ে নিজেদের দায় মানতে নারাজ হায়দরাবাদের নির্মাণকারী সংস্থা IVRCL। আজও তাদের দাবি, নির্মাণ সামগ্রী যাচাই থেকে বাকি সব কাজই হয়েছে KMDA-র অনুমতি নিয়ে। এর আগে ভগবানের ইচ্ছের ওপর দায় চাপানোর পর, আজ তাদের আরেক যুক্তি, বিস্ফোরণেও তো ভেঙে পড়তে পারে উড়ালপুল!   

স্রেফ মনের তাগিদে সাহায্য করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন স্থানীয়দের অনেকেই স্রেফ মনের তাগিদে সাহায্য করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন স্থানীয়দের অনেকেই

কোনও ট্রেনিং নেই, অভিজ্ঞতাও নেই। স্রেফ মনের তাগিদে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন ওরা, জীবন বাঁচানোর লড়াইয়ে। বিবেকানন্দ উড়ালপুলের দুর্ঘটনা, কয়েক মুহুর্তে বদলে দিয়েছে ওদের জীবনটাও। কীভাবে, কী করে সাহায্য করা যায়! দিনরাত এক করে সেই চেষ্টাই করে যাচ্ছেন স্থানীয়দের অনেকেই।

সেতুর ঝুলে থাকা অংশটিকে ভাঙাই এই মুহূর্তে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ সেতুর ঝুলে থাকা অংশটিকে ভাঙাই এই মুহূর্তে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ

ঘটনার পর কেটে গিয়েছে গোটা একটা দিন। সেনাবাহিনী জানিয়ে দিয়েছে উদ্ধারের কাজ শেষ। কিন্তু সেতুর ঝুলে থাকা অংশটিকে ভাঙাই এই মুহূর্তে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ। আর ঘটনাস্থল ঘুরে ফরেনসিক দল জানিয়ে দিল, গতকালের ঘটনার সঙ্গে বিস্ফোরণ বা নাশকতার কোনও যোগ নেই।

বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি পোস্তা উড়ালপুলের নির্মাণকর্মীদের বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি পোস্তা উড়ালপুলের নির্মাণকর্মীদের

বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি পোস্তা উড়ালপুলের নির্মাণকর্মীদের। ভেঙে গিয়েছিল উড়াল পুলের ক্যান্টিলিভারের দুটি নাট। তাদের দাবি, ঝালাই দিয়ে কাজ চালিয়ে নিতে বলেন দায়িত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়ার। তার পরেই ঘটে যায় বিপত্তি।

কী ভাবে ভেঙে পড়ল পোস্তা উড়ালপুল? কী ভাবে ভেঙে পড়ল পোস্তা উড়ালপুল?

কী ভাবে ভেঙে পড়ল পোস্তা উড়ালপুল? কেন ঘটল এই বিপর্যয়? উত্তর খুঁজতে গ্রাউন্ড জিরোয় ২৪ ঘণ্টা। 

বিপর্যয় মোকাবিলায় রাজ্য অক্ষম, দেখিয়ে দিল পোস্তার বিপর্যয়ের ঘটনা বিপর্যয় মোকাবিলায় রাজ্য অক্ষম, দেখিয়ে দিল পোস্তার বিপর্যয়ের ঘটনা

প্রশিক্ষণ নেই। নেই অভিজ্ঞতা। নেই প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিও। এমনকি জানা নেই ভিড় নিয়ন্ত্রণের কৌশল। সেকারণেই গতকাল ভেঙে পড়া উড়ালপুলে উদ্ধার কাজ শুরু করতে সময় লেগে যায় আড়াই ঘণ্টা। বেহাল দশা ধরা পড়ে সেনা জওয়ানেরা উদ্ধার কাজ শুরুর পর। বিপর্যয় মোকাবিলায় রাজ্য যে অক্ষম, তা দেখিয়ে দিল পোস্তার গতকালের ঘটনা।

কান ঘেঁষে চলে গেছে মৃত্যু, কিন্তু আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না কান ঘেঁষে চলে গেছে মৃত্যু, কিন্তু আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না

কান ঘেঁষে চলে গেছে মৃত্যু। মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ফারাক। রাস্তায় ট্রাফিক সিগন্যালের এপার আর ওপার। তাই বাঁচিয়ে দিল প্রাণ। পোস্তার বাসিন্দা রাজকুমার সোনকার এবং তাঁর ভাই মানব মালিক এখনও ভেবে পাচ্ছেন না, কী করে মৃত্যুকে এড়ালেন তাঁরা!

কান্নায় ভারী হয়ে গিয়েছে জোড়াসাঁকোর বাতাস কান্নায় ভারী হয়ে গিয়েছে জোড়াসাঁকোর বাতাস

২১শে মে ছেলের বিয়ে। একটু একটু করে ব্যস্ততা বাড়ছিল বাড়িটায়। আনন্দ, হইহুল্লোড় সবই ছিল। কিন্তু নিমেষে বদলে গেছে গোটা ছবিটা। হাসির বদলে কান্নায় ভারী হয়ে গেছে জোড়াসাঁকোর বাতাস।